আরও একটি পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী | বিশ্ব | DW | 06.09.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আরও একটি পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পর বাংলাদেশে আরও একটি পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ তিনি জানান, রূপপুর কেন্দ্র নির্মাণের প্রথম পর্যায়ের কাজ শুরু সময়ের ব্যাপার মাত্র৷

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ বাংলাদেশের পাঁচ দশকেরও বেশি সময়ের স্বপ্ন৷ কখনো আশার আলো জাগে আবার কখনো তা মিইয়ে যায়৷ কেন্দ্রের জন্য জমি অধিগ্রহণ হয়েছে তাও চার দশক হয়ে গেল৷ বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর আবার এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে বাস্তবে রূপ দিতে কাজ করছে৷ আজ ঢাকার অদূরে সাভারে পারমাণবিক শক্তি গবেষণা কেন্দ্রের ছয়টি বৈজ্ঞানিক গবেষণা কেন্দ্রের উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ শুরু এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র৷ সেখানে দুটি কেন্দ্র থেকে দুই হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে৷ আর ভবিষ্যতে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে আরো একটি পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী৷

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিজ্ঞানীদের গবেষণার সময় যেমন বেঁধে দেয়া যায় না তেমনি গবেষকদের চাকরির সময় বেঁধে দেয়া যায় না৷ তাই তাদের চাকরির মেয়াদ কিভাবে বাড়ানো যায় তা নিয়ে চিন্তা করছে সরকার৷ তবে এটি সাধারণভাবে বাড়িয়ে দিলে আবার সবাই গবেষক হয়ে যাবেন৷ তাই সরকার কৌশল নির্ধারণ করছে৷

প্রধানমন্ত্রী বিজ্ঞানীদের মৌলিক গবেষণার পাশাপাশি প্রায়োগিক গবেষণার ওপর জোর দেয়ার আহ্বান জানান৷ বিশেষ করে কৃষি উন্নয়ন এবং জলবায়ুর প্রভাব মোকাবিলায় লাগসই প্রযুক্তি আবিষ্কারের কথা বলেন তিনি৷ তিনি বলেন, তাঁর সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে৷ এখন ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত ইন্টারনেট সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে৷ মেডিকেল শিক্ষার প্রসারের জন্য চট্টগ্রাম এবং রাজশাহীতে দুইটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী৷ তিনি বলেন তাঁর সরকার দায়িত্ব নেয়ার পর দারিদ্র্য শতকরা ১০ ভাগ কমেছে৷ আর মাথাপিছু আয় ৬৩০ মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে ৮৪০ ডলার হয়েছে৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়