আরও ‘উদারপন্থি’ সৌদি আরব গড়ার অঙ্গীকার | বিশ্ব | DW | 25.10.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সৌদি আরব

আরও ‘উদারপন্থি’ সৌদি আরব গড়ার অঙ্গীকার

সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স অর্থাৎ ভবিষ্যৎ বাদশাহ মহম্মদ বিন সালমান বলেছেন, তাঁর দেশ আরও ‘উদারপন্থি’ ও ‘উন্মুক্ত’ হয়ে উঠবে৷ দেশ থেকে মৌলবাদী ইসলামি আদর্শ ‘দূর' করারও অঙ্গীকার করেন তিনি৷

মঙ্গলবার রিয়াদে বিনিয়োগকারীদের এক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন৷ ‘‘আমরা আগে যেমন ছিলাম সেই অবস্থায় ফিরছি - এমন একটি দেশ, যেখানে উদারপন্থি ইসলাম বিরাজমান এবং যেটি সব ধর্মের মানুষজন ও বিশ্বের জন্য উন্মুক্ত থাকবে,’’ বলেন সালমান৷ ৩২ বছর বয়সি এই ক্রাউন প্রিন্স বলেন, ‘‘আমরা শিগগিরই জঙ্গিবাদের যেটুকু বাকি আছে, তা সমূলে উৎপাটন করব - আমরা ইসলামের উদারপন্থি শিক্ষা ও নীতির প্রতিনিধিত্ব করি৷’’

চলতি বছর বিন সালমান ক্রাউন প্রিন্সের দায়িত্ব পাওয়ার পর সৌদি আরবে নারীরা গাড়ি চালানোর অনুমতি পেয়েছেন৷ এছাড়া দেশটিতে আবারও সিনেমা হল চালুর অনুমতিও দেয়া হতে পারে বলে খবর প্রকাশিত হয়েছে৷

৫০০ বিলিয়ন ডলারের শহর!

বিনিয়োগকারীদের সম্মেলনে ক্রাউন প্রিন্স বিন সালমান জানান, ভবিষ্যতে ৫০০ বিলিয়ন ডলার খরচ করে একটি শহর গড়ে তোলা হবে৷ এটি হবে একটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং সেখানে সৌদি আরবের অন্যান্য এলাকার নিয়মকানুন প্রযোজ্য হবে না৷ শহরটি পুরোপুরি বিকল্প জ্বালানি দিয়ে চলবে৷ ‘এনইওএম’ নামক একটি প্রকল্পের আওতায় এই শহর গড়ে তোলা হবে৷ সেখানকার সব সেবা ও ব্যবস্থা পুরোপুরি স্বয়ংক্রিয় হবে বলে জানা গেছে৷ তবে কবে নাগাদ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হতে পারে, তার কোনো নির্দিষ্ট সময় জানা যায়নি৷

‘ভিশন ২০৩০’-এর আওতায় বিন সালমান সৌদি আরবকে শুধুমাত্র তেলভিত্তিক অর্থনীতির উপর নির্ভরতা থেকে সরিয়ে আনার চেষ্টা করছেন৷ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য নতুন নতুন খাত তৈরির পরিকল্পনা করছেন তিনি৷

জেডএইচ/এসিবি (রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন