‘‘আমি ধার্মিক নই, সংগীতই আমার ধর্ম’’ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 26.07.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

‘‘আমি ধার্মিক নই, সংগীতই আমার ধর্ম’’

‘‘গান গাওয়াটা আমার কাছে এক পবিত্র মন্ত্র’’ – সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এভাবেই বললেন ইটালিয়ান রক গায়িকা গিয়ানা নানিনি৷ ‘‘গান গাইতে গাইতে আমি যেন মোহাচ্ছন্ন হয়ে পড়ি৷ গান আমাকে সুখী করে এবং আমার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়৷’’

ফ্রাঙ্কফুর্টে বসবাসকারী সুইস সংগীত বিশেষজ্ঞ ও মনোবিজ্ঞানী মারি স্পিশিগার বলেন, ‘‘সংগীত ও ধর্ম একই শেকড় থেকে আসা৷ এ দুটিই এমন এক অনুভূতি জাগায়, যা ভাষায় প্রকাশ করা কঠিন৷ এটি এমন এক অভিজ্ঞতা যা নিত্যদিনের সবকিছুকে ছাড়িয়ে যায়৷'' ভক্তরাও তাঁর গানের সেই আনন্দ স্রোতে অবগাহন না করে পারেন না৷ অবশ্য তিনি জোর দিয়েই বলেন, ‘‘আমি কিন্তু ধার্মিক নই৷''

যেন স্বর্গীয় দূতের ডানা ঝাপটানো

সংগীতের আধ্যাত্মিক শক্তি মানব ইতিহাসের সেই শুরু থেকে আজ পর্যন্ত বিরাজমান৷ এই একবিংশ শতাব্দীতে এসেও তবলচি ও বাদকরা আগের মতো একই ধরনের ঢাকঢোল ও বাঁশি বাজান৷ অবশ্য আদিবাসী মানুষের কাছে সংগীত আজও কোনো বিনোদন নয়, বরং এর মাধ্যমে তারা ঈশ্বরের সান্নিধ্য পেতে চেষ্টা করেন৷

Zwei Dinge fehlen bei keiner Zeremonie: Trommelklänge und farbenfrohe Kleidung. Titel: DW_Voodoo14 Schlagworte: Voodoo, Benin Wer hat das Bild gemacht/Fotograf?: Katrin Gänsler Wann wurde das Bild gemacht?: 10. Januar 2010 Wo wurde das Bild aufgenommen?: Ouidah, Benin Beschreibung: Eine Frau in bunten Kleidern tanzt zu den Trommelklängen am Strand

সংগীতের আধ্যাত্মিক শক্তি মানব ইতিহাসের সেই শুরু থেকে আজ পর্যন্ত বিরাজমান

খ্রিষ্ট ধর্মেও সংগীত সবসময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে আসছে৷ গ্রেগরিয়ান গানের পালা থেকে বাখ সংগীত হয়ে গসপেল পর্যন্ত সংগীতের সব ধারাতেই উঠে এসেছে ধর্মীয় কর্মকাণ্ড, উৎসব ও ধ্যান ধারণা৷

পাডেরবর্ন-এর সংগীত মনোবিজ্ঞানী হাইনের গেমব্রিস তাই এ বিষয়টির উপর জোর দিয়ে বলেন, ‘‘সংগীত যেন স্বর্গীয় দূতের ঝাপটানো ডানা, যা আমাদের মন ছুঁয়ে যায়৷ যার মাধ্যমে আমরা বিশাল কোনো কিছুর উপস্থিতি অনুভব করতে পারি৷ আর এই বিশালত্ব আমাদের নিজস্ব গণ্ডি থেকে বের করে আনতে পারে, ছড়িয়ে দিতে পারে সারা বিশ্বে৷''

ধর্ম ছাড়াই আধ্যাত্মিকতা

ধর্মনিরপেক্ষ পশ্চিমা জগতে সংগীতের ভূমিকা অনেকটা পশ্চাত্পটে চলে এসেছে৷ এককালে উপাসনা ও ধর্মীয় রীতি-নীতির মাধ্যমে মানুষের মনে যে অনুভূতির সঞ্চার হতো, তা আজ নানা ধরনের কনসার্টের মাঝে খুঁজে পেতে চেষ্টা করে তারা৷ আজকের তরুণদের কাছে তারকা শিল্পীরাই যেন আধ্যাত্মিক জগতের সাধু, সন্ত৷ তাদের সংগীতেই আনন্দ ও সান্তনা খোঁজে তারা৷

সংগীত বিশেষজ্ঞ মারিয়া স্পিশিগার বলেন, ‘‘সংগীতের সুরে স্বর্গীয় সুধার আবেশ মানুষ খুব সহজে পায় না৷ নিজের সংস্কৃতির ভাণ্ডার থেকে এটি খুঁজে নিতে হয়৷ অনেকের কাছেই সংগীতের রয়েছে বিশেষ গুরুত্ব৷ তারা এর মাঝে জীবনের অর্থ ও যৌক্তিকতা খোঁজে৷ আবার কেউ কেউ সংগীতের মাধ্যমে ধর্মীয় আকাঙ্খা মেটায়৷''

রয়েছে ধ্বনির উন্মাদনা

একই মত পোষণ করেন ৩৬ বছর বয়সি এলিজাবেথ ডিক-এর মতো সংগীত ভক্তরা৷ তিনি বলেন, ‘‘আগে আমি ‘এনিগমা' পছন্দ করতাম৷ ব্যান্ডের কোমল সুরের গানগুলো আমার কাছে পুরোপুরি স্বর্গীয় বলে মনে হতো৷ আমার এমন এক অনুভূতি হতো, যেন আমি অন্য জগতে ভাসছি৷'' এখন অবশ্য তিনি রক কনসার্টে বেশি যান৷ এ সম্পর্কে এলিজাবেথ বলেন, ‘‘এক্ষেত্রে কারো ভাবা ঠিক হবে না যে, সেখানে আধ্যাত্মিক কিছু আছে৷ কিন্তু শত শত ভক্ত যখন আনন্দ-উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠে, তখন নিজেকেও তাদের সাথে মিলিয়ে দিতে ইচ্ছা করে৷ তখন আমি যেন মোহমুগ্ধ হয়ে পড়ি৷''

Kreischende Teenager beim Konzert

ধর্মনিরপেক্ষ পশ্চিমা জগতে সংগীতের ভূমিকা অনেকটা পশ্চাত্পটে চলে এসেছে

টেকনো পার্টিগুলিতেও এই রকম আবহ সৃষ্টি হয়৷ সেখানে তরুণরা ছন্দের তালে তালে এক উন্মাদনায় দুলতে থাকে৷ গবেষণায় দেখা গেছে, এটি স্নায়ুতন্ত্রের মাধ্যমে সারা শরীরেই প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে৷ ফলে কয়েক ঘণ্টা নাচতে থাকলে সবাই একরকম মোহে আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে৷

ধর্মের বিকল্প সংগীত

এভাবে শুধু সংগীত তারকারাই নয়, বরং ডিস্কজকি বা ডিজেরাও এক ধরনের ধর্মীয় মডেল বা আদর্শে পরিণত হচ্ছেন৷ তরুণরা এখন এই সব শিল্পীকে অনুকরণ করে নিজেদের গড়ে তুলতে চাইছে৷ তাই তো এই ধারার সাথে তাল মিলিয়ে মার্কিন শিল্পী ‘পিঙ্ক' ‘গড ইজ এ ডিজে' শিরোনামের গান করে দারুণ হিট করেছেন৷

পছন্দের তারকা বা শিল্পীর কনসার্টগুলোতে ভক্তরা একে অন্যের সঙ্গে এক ধরনের একাত্মতা অনুভব করেন৷ তাঁদের চালচলন, পোশাক-আশাক ও অলংকার একই রকমের হয়৷ এক ধরনের ফ্যানগ্রুপ গড়ে তোলেন তাঁরা৷ আর এই ভাবে সংগীতের অন্যান্য ধারার অনুরাগীদের কাছ থেকে সচেতনভাবেই নিজেদের আলাদা করতে চান ভক্তরা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন