আবার মহাজোট সরকারের পথে জার্মানি | জার্মানি ইউরোপ | DW | 18.10.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

আবার মহাজোট সরকারের পথে জার্মানি

জার্মানিতে আগামী সরকার গঠনের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়ে উঠছে৷ সবকিছু ঠিকঠাক চললে আগামী ২২শে অক্টোবরই খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী শিবির ও সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি-র মধ্যে কোয়ালিশন গঠনের লক্ষ্যে আলোচনা শুরু হতে পারে৷

সাধারণ নির্বাচন হয়েছে ২২শে সেপ্টেম্বর৷ কিন্তু নতুন সরকারের দেখা নেই৷ দেশ ঠিকই চলছে৷ আড়ালে আলোচনাও চলছে৷ অবশেষে ভবিষ্যৎ সরকারের রূপরেখা স্পষ্ট হতে শুরু হয়েছে৷ তবে চ্যান্সেলর থাকছেন আঙ্গেলা ম্যার্কেল-ই৷

জোট সরকার চালানো সহজ নয়৷ বিশেষ করে পছন্দের সহযোগীর ভরাডুবি হলে তো নয়ই৷ চ্যান্সেলর ম্যার্কেল তাঁর বিপুল ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তার বলে নিজের দলকে সাধারণ নির্বাচনে বিশাল সাফল্য এনে দিতে পেরেছেন বটে, কিন্তু ভরাডুবি হয়েছে বহুকালের সহযোগী উদারপন্থি দল এফডিপি-র৷ এমনকি সংসদ থেকেই মুছে গেছে সেই দল৷ আর কয়েকটা বেশি আসন পেলেই তাঁর খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী শিবিরই প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে একাই সরকার গঠন করতে পারতো৷ কিন্তু সেটা যেহেতু সম্ভব হয় নি, তাই প্রয়োজন পড়েছে নতুন সহযোগীর৷

জোট গঠনের অঙ্কে হিসাব বাঁধা রয়েছে৷ এবারের নির্বাচনে মোট চারটি দল সংসদে প্রবেশ করতে পেরেছে৷ ম্যার্কেল-এর সিডিইউ ও বাভেরিয়ার সিএসইউ একটি শিবির, যাদের একটি সংসদীয় দল রয়েছে৷ দ্বিতীয় স্থানে সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি৷ তারপর সামান্য ব্যবধানে বামপন্থি দল ‘ডি লিংকে' ও সবুজ দল৷ বামপন্থিরা আপাতত ‘অচ্ছুত' – ফেডারেল স্তরে কেউই তাদের সঙ্গে জোট গড়তে প্রস্তুত নয়৷ অতএব থেকে যাচ্ছে বাকি দুই দল৷

CDU und CSU Politiker finden sich am 14. Oktober zu Sondierungsgesprächen ein

২২শে অক্টোবর খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী শিবির ও সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি-র মধ্যে আলোচনা শুরু হতে পারে৷

এমন পরিস্থিতিতে জার্মানির দলীয় রাজনীতি জগতে নির্বাচনের পর তাড়াহুড়োর রেওয়াজ নেই৷ ধীরে-সুস্থে নেপথ্যে আলাপ-আলোচনাই স্বাভাবিক ঘটনা৷ ২৪ ঘণ্টা সংবাদের যুগের পরোয়া না করেই নেতারা মুখে কুলুপ এঁটে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে প্রবেশ করেন, বেরিয়ে আসেন৷ বড়জোর বলেন, ‘‘পরিবেশ ভালো ছিল, প্রতিপক্ষের বন্ধুত্বপূর্ণ মনোভাব দেখা গেছে, একে-অপরকে আরও ভালোভাবে চিনতে পেরেছি''৷

এভাবেই ম্যার্কেল-এর শিবির নির্বাচনের পর থেকে একে একে এসপিডি ও সবুজ দলের সঙ্গে দফায় দফায় ‘প্রাথমিক' আলোচনা চালিয়ে এসেছে৷ সবুজ দলের সঙ্গে সরকার গঠন করা হবে না, এটা এখন স্পষ্ট৷ দুই পক্ষই অবশ্য পরস্পরের প্রতি বেশ সৌজন্য দেখিয়ে বলেছেন, ভবিষ্যতে এমন জোট গড়া যেতেই পারে৷

অতএব থেকে যাচ্ছে একটিমাত্র পথ৷ ‘গ্র্যান্ড কোয়ালিশন

' বা মহাজোট৷ ম্যার্কেল-এর খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী শিবির ও এসপিডি দলের সরকার৷ মানুষও এই অবস্থায় সেটাই চাইছে৷ প্রাথমিক আলোচনার পর এবার দুই পক্ষই এই লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিক আলোচনার জন্য প্রস্তুত৷

২০০৫ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ম্যার্কেল-এর নেতৃত্বেই এমন মহাজোট সরকার ক্ষমতায় ছিল৷ সংসদে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে সেই সরকার এমন অনেক সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছে, যা সাধারণ জোটের পক্ষে সহজে সম্ভব হতো না৷ কিন্তু এমন পরিস্থিতিতে সংসদে বিরোধী পক্ষ বেশ দুর্বল হয়ে পড়ে৷ সরকারের কোনো সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে জোরালো প্রতিবাদ জানানোর পথ প্রায় বন্ধ হয়ে যায়৷ সংসদের আগামী অধিবেশনে বামপন্থি ও সবুজ দলেরও সেই দশা হবে, এমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

এসবি / জেডএইচ (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়