আবার ছাত্রলীগের হামলা এবং দায় অস্বীকার | বিশ্ব | DW | 23.07.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

আবার ছাত্রলীগের হামলা এবং দায় অস্বীকার

কোটাসংস্কার আন্দোলনের নেতা-কর্মীদের অব্যাহতভাবে হামলা নির্যাতনের পর এবার কুষ্টিয়ায় ‘আমার দেশ' পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে৷

কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা-কমীদের ওপর অব্যাহত হামলার পর রবিবার ছাত্রলীগকে বাড়াবাড়ি না করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা৷ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের জানান, ‘‘কোটা সংক্রান্ত আন্দোলন নিয়ে ছাত্রলীগের বিষয়ে যেন আর কোনো বাড়াবাড়ির অভিযোগ না আসে এমন নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷'' কিন্তু ওইদিন বিকেলেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় আবারো কোটা সংস্কার আন্দোলনকরীদের ওপর হামলা করে ছাত্রলীগ৷

অন্যদিকে, দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কুষ্টিয়ার একটি আদালতে মানহানির মামলায় হাজিরা দিতে গেলে আদালত তাকে জামিন দেয়৷ স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা প্রথমে তাকে আদালতে অবরুদ্ধ করে রাখে৷ পরে তিনি বের হলে তার ওপর হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ করেন মাহমুদুর রহমানের সঙ্গে থাকা সাংবাদিক নেতা এম আব্দুল্লাহ৷ মাহমুদুর রহমান এখন ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷

অডিও শুনুন 02:39

‘ছাত্রলীগ কোনো বাড়াবাড়ি করছে না’

তবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সোমবার মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার ঘটনাকে অনাকাঙ্খিত ও অনভিপ্রেত বলে মন্তব্য করেছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘রাজনীতি ও সাংবাদিকতায় যে কারো ভিন্নমত থাকতে পারে৷ আমরা এ ধরনের হামলা সমর্থন করি না৷ ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের খুঁজে বের করা হবে৷''

মাহমুদুর রহমান যেসব কারণে আলোচিত এবং বিতর্কিত 

খালেদা জিয়ার জ্বালানি উপদেষ্টা মাহমুদুর রহমান ২০০৮ সালে আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের দায়িত্ব নেন৷ অপপ্রচার, ধর্মীয় উসকানি এবং অসত্য খবর পরিবেশনের অভিযোগে ২০১৩ সালের ১১ এপ্রিল তাকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ মানবাধিকার বিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের একজন বিচারকের কথোপকথন ফাঁস করার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে মামলা হয় তখন৷ ওই বছরের ১৯ আগস্ট আদালত অবমাননার অভিযোগে মাহমুদুর রহমানকে ছয় মাসের কারাদণ্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ১ মাসের কারাদণ্ড দেয় সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ৷ সাড়ে তিন বছর কারাভোগের পর তিনি ২০১৬ সালের ২৩ নভেম্বর মুক্তি পান৷

শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলনকে তার পত্রিকায় ‘নাস্তিকদের আন্দোলন’ বলে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ রয়েছে মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে৷ ওই আন্দোলনকে ‘ফ্যাসিবাদী’ আখ্যাও দেয়া হয় সেখানে৷ শাপলা চত্বরে হেফাজতের তাণ্ডবকে সমর্থন জানিয়েও খবর প্রকাশ করে আমার দেশ৷ তার আগে হেফাজতের বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে তারা৷ সাঈদীকে চাঁদে দেখা যাওয়ার গুজবও ছাপা হয় একই পত্রিকায়৷ এছাড়া কাবা ঘরের গিলাফ পরিবর্তণের ছবি ব্যবহার করে অসত্য খবর পরিবেশনের অভিযোগও রয়েছে৷ ওই ছবি ব্যবহার করে দাবি করা হয়, বাংলাদেশে আলেমদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে কাবাঘরের ইমামের নেতৃত্বে প্রতিবাদ হয়েছে, যা ছিল সম্পূর্ণ অসত্য৷

অডিও শুনুন 01:55

‘এখনো হামলা এবং হুমকি অব্যাহত আছে’

বেপরোয়া ছাত্রলীগ

এর আগে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের অব্যাহত হামলার ব্যাপারে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘‘ছাত্রলীগের এখন কমিটি নেই৷ ছাত্রলীগের সম্মেলনের পর এখনো কমিটি ঘোষিত হয়নি৷ ছাত্রলীগের নামে কেউ কিছু করেছে কিনা এটা আমাকে জেনে বলতে হবে, আমি শিওর না৷ ছাত্রলীগ নামধারী আছে কিনা সেটা আমাদের দেখতে হবে৷''

গত ৫ জুলাই ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী ও সদ্যবিদায়ী নেতারা গণভবনের বৈঠকেও উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করেন৷ প্রধানমন্ত্রীর সামনে ছাত্রলীগ নেতাদের বক্তৃতার এক পর্যায়ে পক্ষ-বিপক্ষ সৃষ্টি হলে উত্তেজনা শুরু হয়৷ এ সময় প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় নিয়োজিত স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ) সদস্যরা তাদের নিবৃত্ত করেন৷ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা তখন ছাত্রলীগ নেতাদের আরও সুশৃঙ্খল হতে নির্দেশ দেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সদ্য বিদায়ী সভাপতি আবিদ আল হাসান ডয়চে ভেলের কাছে দাবি করেন, ‘‘ছাত্রলীগের কোনো কমিটি না থাকলেও আমাদের অভিভাবক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন কমিটি গঠন না হওয়া পর্যন্ত আমাদের সদ্য বিদায়ী কমিটিকে কাজ চালিয়ে যেতে বলেছেন৷ আমরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছি৷''

আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘ছাত্রলীগ কোটা সংস্কার আন্দোলনের কোনো নেতা-কর্মীর ওপর হামলার সঙ্গে জড়িত নয়৷''  তিনি দাবি করেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের ঘোষণা দেয়ার পর আন্দোলনের কোনো যৌক্তিকতা থাকে না৷ তারপরও কিছু ষড়যন্ত্রকারী আন্দোলনের নামে ভিন্ন উদ্দেশ্যে মাঠে নামে৷ ফলে তাদের মধ্যেই আন্দোলনের পক্ষে-বিপক্ষে দু'টি গ্রুপ হয়ে যায়৷ তারাই এখন নিজেদের মধ্যে হামলা-পাল্টা হামলা ও মারামারি করছে৷''

তিনি আরও বলেন, ‘‘কোটা সংস্কার আন্দোলকারীদের নিয়ে ছাত্রলীগকে বাড়াবাড়ি না করতে প্রধানমন্ত্রী যে নির্দেশ দিয়েছেন তা আমরা জেনেছি৷ ছাত্রলীগ কোনো বাড়াবাড়ি করছে না৷''

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. ফাহমিদুল হক নিজেও প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে কয়েকদিন আগে হামলার শিকার হয়েছেন৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমরা ছাত্রদের কাছ থেকে যেসব তথ্য পাচ্ছি, তাতে এখনো হামলা এবং হুমকি অব্যাহত আছে৷ আমার মনে হয়, আমরা যে তথ্য পাই, পরিস্থিতি তার চেয়ে আরো ভয়াবহ৷ সংবাদ মাধ্যম থেকে জেনেছি, হামলায় আহত কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নূরের হলের কক্ষ থেকে মালপত্র সরিয়ে নেয়া হচ্ছে৷''

তিনি আরও বলেন, ‘‘এটা স্পষ্ট যে, হামলা চালাচ্ছে ছাত্রলীগ৷ এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায় আছে৷ আর দায়িত্ব নিতে হবে আওয়ামী লীগকে৷ বাড়াবাড়ি না করতে ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পরও তারা থামছে না৷ তাদের শক্তির উৎস কোথায় এটাই এখন আমার প্রশ্ন৷''

শুধু কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা নয়, এর বাইরে গত কয়েক বছরে ধর্ষণ, ধর্ষণের ভিডিও ছাড়ানোসহ কিছু নেতা-কর্মীর অপরাধের কারণে ছাত্রলীগ আবারো সমালোচনার পড়ে৷ অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে ১৩ নভেম্বর চার ছাত্রলীগ নেতাকে সংগঠন থেকে বহিস্কার কর হয়েছে৷

গত বছরের ১৭ জুলাই বরিশালের বানারীপাড়ায় এক অটোরিকশা চালককে আটকে রেখে তার স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন হোসেন মোল্লার বিরুদ্ধে৷ ওই বছরের ৮ এপ্রিল শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ করা হয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জীবন চক্রবর্তী পার্থের কয়েকজন অনুসারীর বিরুদ্ধে৷ এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় দুই সাংবাদিকের ওপর হামলাও হয়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন