আবার আলোচনায় নর্দান আয়ারল্যান্ড প্রটোকল | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 18.05.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাজ্য

আবার আলোচনায় নর্দান আয়ারল্যান্ড প্রটোকল

সম্প্রতি নর্দান আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রথমবারের মতো সবচেয়ে বেশি আসনে জিতেছে আয়ারল্যান্ডপন্থি দল শিন ফেইন৷ কিন্তু তাদের সঙ্গে সরকার গঠনে যেতে রাজি হচ্ছে না যুক্তরাজ্যপন্থি দল ডিইউপি৷

সম্প্রতি নর্দান আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রথমবারের মতো সবচেয়ে বেশি আসনে জিতেছে আয়ারল্যান্ডপন্থি দল শিন ফেইন৷ কিন্তু তাদের সঙ্গে সরকার গঠনে যেতে রাজি হচ্ছে না যুক্তরাজ্যপন্থি দল ডিইউপি৷

নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড প্রটোকলের অনেক প্রশ্নই অমীমাংসিত থেকে গেছে

নির্বাচনে ৯০টি আসনের মধ্যে শিন ফেইন পেয়েছে ২৫টি আসন আর ডিইউপি পেয়েছে ২৫টি আসন৷

সরকারে যেতে ডিইউপি ২০২০ সালের ডিসেম্বরে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে সই হওয়া ব্রেক্সিট চুক্তিতে থাকা নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড প্রটোকল বাতিলের দাবি জানিয়েছে৷

এই প্রটোকলে ইইউ থেকে ব্রিটেন চলে যাওয়ার পর নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের বাণিজ্যনীতি কী হবে, তা বলা আছে৷ আয়ারল্যান্ড দ্বীপে সীমান্ত নির্মাণ এড়াতে এই প্রটোকল করা হয়েছিল৷ উল্লেখ্য, আয়ারল্যান্ড দ্বীপের আয়ারল্যান্ড অংশটি ইইউর সদস্য৷ আর নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড যুক্তরাজ্যের অংশ৷

ডিইউ মনে করে নর্দান আয়ারল্যান্ড প্রটোকলের কারণে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের সম্পর্ক দুর্বল হচ্ছে৷

কিন্তু শিন ফেইন ও তৃতীয় সর্বোচ্চ আসন (৯টি) পাওয়া অ্যালায়েন্স পার্টি (পুরো আয়ারল্যান্ড এক হওয়া প্রশ্নে তারা নিরপেক্ষ অবস্থান থাকে) ঐ প্রটোকলের পক্ষে আছে৷

ডিইউপি সরকার গঠনে রাজি হচ্ছে না বলে সম্প্রতি নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড সফরে গিয়েছিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন৷ কিন্তু ডিইউপি নেতারা জনসনকে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে, প্রটোকল বাতিল হলেই কেবল তারা সরকারে যোগ দেবেন৷

এই অবস্থায় আগামী মঙ্গলবার ব্রিটিশ সংসদে ব্রেক্সিট চুক্তি থেকে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড প্রটোকল বাদ দেয়ায় প্রস্তাব উঠতে যাচ্ছে৷ তবে ব্রিটেন জানিয়েছে এই প্রটোকল নিয়ে ইইউর সঙ্গে আলোচনা ভেঙে গেলেই কেবল ব্রিটেন এককভাবে ঐ প্রটোকল বাতিলের সিদ্ধান্ত নেবে৷

এমন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে জানিয়েছেন আয়ারল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইমন কোভনি৷

ইইউ বলেছে তারা প্রটোকলের নিয়মকানুন সংস্কার করতে রাজি আছে৷

নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের সব বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে এমন একটি গ্রুপ হচ্ছে ‘নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড বিজনেস ব্রেক্সিট ওয়ার্কিং গ্রুপ’৷ তারা বিশ্বাস করে প্রটোকল কার্যকর হতে পারে৷ তবে এতে পাঁচটি সম্ভাব্য পরিবর্তন আনলে তা আরও ভালো হবে বলে মনে করছে তারা৷

এদিকে যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল রিসার্চের গবেষণা বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাজ্যের অর্থনীতির চেয়ে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের অর্থনীতি ভালো করছে৷ এর অন্যতম একটি কারণ নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড প্রটোকল বলে গবেষণায় উল্লেখ করা হয়েছে৷

আর্থার সুলিভান/জেডএইচ

দেখুন ২০২০ সালের ছবিঘর...

নির্বাচিত প্রতিবেদন