আবার অ্যামেরিকার নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগ | বিশ্ব | DW | 18.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্র

আবার অ্যামেরিকার নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগ

রাশিয়া এবারও ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর ভাবমূর্তির ক্ষতি করার চেষ্টা করছে বলে এফবিআই প্রধান দাবি করলেন৷ চীন ও ইরানের তৎপরতাও দেখা যাচ্ছে৷ জো বাইডেন রাশিয়াকে সতর্ক করে দিয়েছেন৷

চার বছর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের উপর রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগ নিয়ে এখনো তর্কবিতর্ক চলছে৷ ২০১৬ সালে ডনাল্ড ট্রাম্পের জয় নিশ্চিত করতে রাশিয়া তাঁর প্রতিপক্ষ হিলারি ক্লিন্টনের বিরুদ্ধে জোরালো প্রচার চালিয়েছিল বলে যে অভিযোগ উঠেছিল, তার পক্ষে যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ সত্ত্বেও ট্রাম্প শিবির ও রাশিয়া তা অস্বীকার করে এসেছে৷ এবার নির্বাচনের আগেই এমন পূর্বাভাষ শোনা যাচ্ছে৷

আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে প্রভাবিত করতেও রাশিয়া তৎপর হয়ে উঠেছে বলে সতর্ক করে দিলেন এফবিআই প্রধান ক্রিস্টোফর রে৷ ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন সম্পর্কে লাগাতার ভুয়া খবর সরবরাহ করে সে দেশ বিরোধী শিবিরের ভাবমূর্তির ক্ষতি করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে দাবি করেন মার্কিন অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান৷ তাঁর মতে, এর ফলে ২০২০ সালের নির্বাচনের ফলাফলের উপর আস্থা কমে যেতে পারে৷

সংসদের নিম্ন কক্ষের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি কমিটির সামনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এফবিআই প্রধান রাশিয়ার কার্যকলাপ সম্পর্কে আরো কিছু অভিযোগ করেন৷ তাঁর মতে, অ্যামেরিকার প্রাতিষ্ঠানিক স্তরে রাশিয়া-বিরোধিতা খর্ব করতেও মস্কো চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে৷

শুধু রাশিয়া নয়, চীন ও ইরানও আগামী ৩রা নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন প্রাভাবিত করার চেষ্টা করছে বলে দাবি করেছেন আর এক গোয়েন্দা প্রধান৷ ন্যাশনাল কাউন্টার ইন্টেলিজেন্স ও সিকিউরিটি সেন্টারের প্রধান গত ৭ই আগস্ট সংসদীয় কমিটির সামনে এমন বিস্ফোরক মন্তব্য করেন৷ এফবিআই প্রধান বলেন, চীন মার্কিন প্রযুক্তি ও অন্যান্য গোপন তথ্য পেতে এতই মরিয়া হয়ে উঠেছে, যে তাঁর সংস্থাকে প্রতি দশ ঘণ্টা পর পর নতুন তদন্ত শুরু করতে হচ্ছে৷

ট্রাম্প নিজে আসন্ন নির্বাচনের বৈধতা নিয়ে বার বার প্রশ্ন তুলছেন৷ মেল-ইন ব্যালটের বেড়ে চলা ব্যবহারের কারণে তিনি কোনো ভিত্তি ছাড়াই কারচুপির আশঙ্কা করছেন৷ করোনা মহামারির কারণে ভোটারদের একটা বড় অংশ এবার ডাকযোগে ভোট দেবেন বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷ গত নির্বাচনেও প্রায় এক চতুর্থাংশ ভোটার এভাবে তাঁদের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করেছিলেন৷ বিশেষজ্ঞরা সেই প্রক্রিয়া নিয়ে সংশয়ের কোনো কারণ দেখছেন না৷

বিরোধী নেতা জো বাইডেন এক টাউন হল অনুষ্ঠানে অ্যামেরিকার নির্বাচনে বিদেশি হস্তক্ষেপের প্রচেষ্টা নিয়ে দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেছেন৷ এই প্রথম তিনি প্রকাশ্যে সাধারণ মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত প্রশ্নের জবাব দিলেন৷ বাইডেন বলেন, এবারের নির্বাচনেও রাশিয়ার হস্তক্ষেপের বিষয়টি স্পষ্ট হলে এবং তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে রাশিয়াকে তার মূল্য চোকাতে হবে৷ সে দেশের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক পদক্ষেপের ইঙ্গিত দেন তিনি৷ তাঁর মতে, কোনো বিদেশি শক্তি নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করলে তা অ্যামেরিকার সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করবে৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়