আফগানিস্তান: নারীর উপর তালেবানের বিধিনিষেধ বাড়ছে | বিশ্ব | DW | 19.09.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তান

আফগানিস্তান: নারীর উপর তালেবানের বিধিনিষেধ বাড়ছে

তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর সেদেশের নারীদের স্বাধীনতা সীমাবদ্ধ হওয়ার যে আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল তা সত্যি হচ্ছে৷ দেশটির নারী বিষয়ক মন্ত্রণালয় বন্ধের পাশাপাশি শুধু ছেলেদের স্কুলে যেতে বলেছে ইসলামী মৌলবাদী গোষ্ঠীটি৷

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

কাবুলের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ছেলে ও মেয়ে শিশুদের আলাদা শ্রেণিকক্ষে বসানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ আর যেসব মেয়ের বয়স বেশি তাদের স্কুলে ফেরত যাওয়া থেকে বিরত রাখা হয়েছে৷

গতমাসে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করা তালেবান শুধু ছেলে শিক্ষার্থী এবং পুরুষ শিক্ষকদের ক্লাসরুমে যেতে বলেছে৷ 

কিন্তু মাধ্যমিক স্কুল পড়ুয়া মেয়েদের স্কুলে ফিরে যাওয়ার বিষয়ে কোনো নির্দেশনা দেয়নি তালেবান৷ ফলে তাদের মধ্যে তীব্র অনিশ্চয়তা কাজ করছে৷

এর আগে নব্বইয়ের দশকের শেষের দিকে আফগানিস্তান শাসন করার সময় মেয়ে এবং নারীদের শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছিল তালেবান এবং তাদেরকে জনজীবন থেকেও বিচ্ছিন্ন করা হয়েছিল৷

তবে, ইসলামী মৌলবাদী গোষ্ঠীটি এবার নিজেদের আগের চেয়ে কিছুটা উদারপন্থি হিসেবে দেখাতে চাচ্ছে৷ কিন্তু এখন পর্যন্ত তাদের কর্মকাণ্ডে অতীতের কট্টর অবস্থানেরই প্রমাণ মিলছে৷

নারী মন্ত্রণালয়কে অনৈতিকতারোধের দপ্তরে রূপান্তর

কাবুলের ক্ষমতা দখলের পর তালেবান দেশটির নারী বিষয়ক মন্ত্রণালয় বন্ধ করে দিয়েছে৷ সেখানে এখন ‘পুণ্যের প্রচার এবং অনৈতিকতারোধের' দপ্তরে রূপান্তর করা হয়েছে৷ দুই দশক আগে তালেবানের তৈরি এরকম এক দপ্তর ধর্মীয় মতবাদ কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে গিয়ে কুখ্যাতি অর্জন করেছিল৷ 

ভিডিও দেখুন 02:10

তালেবানের সাংবাদিক নির্যাতন

গত কয়েকদিন ধরেই নারী বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মীরা অভিযোগ করে আসছিলেন যে তাদের অনেকে চাকুরি হারাচ্ছেন৷ বার্তাসংস্থা এপি জানিয়েছে, বিশ্বব্যাংকের নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন এবং আঞ্চলিক উন্নয়ন প্রকল্পের কর্মীদেরও শনিবার বের করে দেয়া হয়েছে৷ 

এই পরিস্থিতিতে আফগান মেয়েদের ভবিষ্যত নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংগঠন ইউনিসেফ৷

‘‘এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যে অপেক্ষাকৃত বয়সি থেকে শুরু করে সব মেয়েরা দ্রুত যাতে লেখাপড়া আবার শুরু করতে পারে৷ আর এজন্য নারী শিক্ষকদেরকেও স্কুলে ফিরতে সুযোগ দিতে হবে,'' এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ইউনিসেফ৷

এআই/এসএস (এএফপি, এপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়