আফগানিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলা | বিশ্ব | DW | 22.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

আফগানিস্তান

আফগানিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলা

রাজধানী কাবুলের একটি ভোটার রেজিস্ট্রেশন সেন্টারে রোববার এই বোমা হামলায় কমপক্ষে ৩১ জন নিহত হয়েছেন৷ ইসলামিক স্টেট হামলার দায় স্বীকার করেছে৷

দেশটির জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াহিদ মাজরো বার্তা সংস্থা এপি-কে জানিয়েছেন, আরো ৫৪ জন এই হামলায় আহত হয়েছেন৷ কাবুল পুলিশ প্রধান জেনারেল দাউদ আমিন বলেছেন যে, জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহের জন্য জড়ো হওয়া সরকারি এক ভবনের প্রবেশপথে দাঁড়িয়ে থাকা সাধারণ মানুষকে লক্ষ্য করে এই বোমা হামলা করা হয়৷
এছাড়া আশেপাশের বেশ কয়েকটি যানবাহনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা গেছে৷

নিকটবর্তী হাসপাতালগুলোতে আহতদের চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়৷ স্থানীয় টিভি চ্যানেলগুলোর ফুটেজে দেখা যায়, আহতদের শতাধিক আত্মীয়-পরিজন হাসপাতালগুলোতে জড়ো হয়েছেন৷

জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস-এর বার্তা সংস্থা আমাক নিউজ এজেন্সি হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে৷ তারা বলেছে যে, শিয়া ‘মুরতাদ'-দের লক্ষ্য করেই এই হামলা চালানো হয়েছে৷

আগামী অক্টোবরে সংসদীয় নির্বাচন হবার কথা রয়েছে আফগানিস্তানে৷ এরপর ২০১৯ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন৷ ভোটার নিবন্ধন শুরু হয়েছে এ মাসেই৷
কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত সপ্তাহেও দেশটির দু'টি রাজ্যের তিনজন পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা৷ তারাও ভোটার নিবন্ধন কাজে নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন৷
গত কয়েকবছরে আইএসের সমর্থনকারীদের ও তালেবানদের হামলা কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না আফগান নিরাপত্তা বাহিনী৷ তালেবানদের মূল লক্ষ্য সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনী, এবং আইএসের লক্ষ্য শিয়া সম্প্রদায়৷ উভয় পক্ষই আফগানিস্তানে গণতান্ত্রিক নির্বাচনের বিরোধী৷
রোববার এছাড়াও দেশটির উত্তরের বাগলান রাজ্যের রাজধানী পুলি খোমরিতে বোমা হামলা হয়েছে৷ সেখানে পাঁচজন নিহত ও চারজন আহত হয়েছেন৷
এদিকে, শনিবার উত্তরের আরেক রাজ্য বালখে জঙ্গিদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা মারা গেছেন৷ তবে পুলিশ জানিয়েছে বন্দুকযুদ্ধ এখনো চলছে৷ বেশ কয়েকজন জঙ্গিও মারা গেছে৷


জেডএ/ডিজি (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়