আপোশ করার মানসিকতা প্রয়োজন: ম্যার্কেল | বিশ্ব | DW | 23.01.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

দাভোস

আপোশ করার মানসিকতা প্রয়োজন: ম্যার্কেল

জার্মানির সাম্প্রতিক রাজনৈতিক অস্থিরতা দূর হয়েছে উল্লেখ করে চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল বহুপক্ষীয় সংস্থাগুলোর গুরুত্ব নিয়ে কথা বলেন৷ এগুলো দুর্বল হলে দুর্দশা বাড়বে বৈ কমবে না বলে মনে করেন তিনি৷

বুধবার সুইজারল্যান্ডের দাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ম্যার্কেল৷ এ সময় তিনি বহুপাক্ষিকতার পক্ষে তাঁর দৃঢ় সমর্থন ব্যক্ত করেন৷

‘‘বহুপাক্ষিকতার পক্ষে আমাদের পরিষ্কার অঙ্গীকার দরকার৷ অন্যথায় আমাদের দুর্দশাই বাড়াবে,'' বলেন ম্যার্কেল৷ রাষ্ট্রগুলোর বহুপাক্ষিক সম্পর্কে চিড় ধরেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি৷ এতে করে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মনে করেন জার্মান চ্যান্সেলর৷

বিশ্ব নেতাদের এই বার্ষিক সম্মেলন এমন একটা সময়ে শুরু হলো যখন সারা বিশ্বে বাণিজ্য যুদ্ধ, ব্রেক্সিট নিয়ে ধোঁয়াশা, জলবায়ু পরিবর্তন ও অন্য আরো অনেক বিষয় চিন্তার কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে৷

ম্যার্কেল বলেন যে, পশ্চিমকে অবশ্যই এই ভাগাভাগি বা বাদানুবাদের বিষয়ে আপোশকামী হতে হবে৷ তিনি বলেন, ‘‘অনেকেই ভাবছেন, শুধু নিজের কথা চিন্তা করলেই হবে, কিন্তু তাতে কতটা ভালো হবে আমার সন্দেহ হয়৷''

ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাপানের মধ্যকার শর্তহীন বাণিজ্য চুক্তিকে তিনি উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরেন৷ আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে এই চুক্তি৷

আগামী ২৯ মার্চ যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে গেলেও দেশটির সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক বজায় রাখার ওপরও জোর দেন তিনি৷

ইন্টারন্যাশনাল মনিটারি ফান্ড ও ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের মতো আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সংস্কারের প্রয়োজন আছে বলে মনে করেন ম্যার্কেল৷

ম্যার্কেল প্রতি বছরই দাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামে বক্তব্য দেন৷ তবে নিজের দেশে গেল বছর টালমাটাল রাজনৈতিক পরিস্থিতির পর তা নিয়ে তিনি কী বলেন, সেটি দেখার অপেক্ষায় ছিলেন অনেকেই৷ এ বিষয়ে জার্মান চ্যান্সেলর বলেন, ‘‘আমি আপনাদের বলতে পারি যে, জার্মানি আরেকবার একটি স্থিতিশীল সরকার গঠন করেছে এবং কঠিন পরিস্থিতি পেছনে ফেলে এসেছি আমরা৷''

সম্মেলনে অন্য বিশ্বনেতারাও অংশ নিচ্ছেন৷ ২৫ জানুয়ারি শেষ হবে দাভোসের এই সম্মেলন৷

জেডএ/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন