আগে চালান মানে নির্বাচনটা বাঁচুক! | বিশ্ব | DW | 22.01.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সংবাদভাষ্য

আগে চালান মানে নির্বাচনটা বাঁচুক!

জন্মশহর ঢাকায় নির্বাচনের দিন দশেক বাকি৷ শুধু ঢাকায় নয়, বেশিরভাগ বড় শহরের ক্ষেত্রে গত কয়েক বছরে এরকম সময়ে দর্শক উপস্থিতিতে টেলিভিশনে সরাসরি কেমন মেয়র চাই অনুষ্ঠান করেছি৷ এবার সে উপায় নেই৷ তবে ভাবনার তো আর ঢাকা আর বন নাই৷

কিন্তু ভাবতে বসে খুঁজে পেলাম আমার কেমন মেয়র চাই প্রশ্নের বদল হয়েছে৷ আমার ভাবনায় এখন শুধু কেমন নির্বাচন চাই৷

সবশেষ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেমন হয়েছে তেমন নির্বাচন আমি চাই না৷ আওয়ামী লীগের বন্ধুরা অবশ্য খুবই আক্রমণাত্মক ভঙিতে বলেন, বিএনপি জিতলে আমি নিশ্চয়ই খুশি হতাম৷ না, খুশি হতাম না৷ ইভিএম থাকলে রাতে ভোট হওয়ার সুযোগ নেই বলেছেন খোদ সিইসি৷ এছাড়া ভোটের আগে ব্যাপক ধরপাকড়, হামলা, প্রচারণা চালাতে না দেওয়া, দিনের বেলা ভোট দিতে গিয়ে লম্বা লাইন, খাবার বিরতির জন্য ভোট নেওয়া বন্ধ, বিরোধীপক্ষের এজেন্ট না থাকার বিষয়গুলো বারবার খবর হয়েছে৷ এর বিপক্ষে সরকারি দলের যুক্তি একটাই- অবৈধ সরকার কোনোদিন টিকে থাকতে পারে না, যেমন পারেনি ১৫ ফেব্রুয়ারির সরকার৷ আর দেশে-বিদেশে এই সরকারের অনেক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে৷

আপনি সূচনার আগে উপসংহারে পৌঁছে গেলে বা তালগাছটি আপনার জেনে গেলে আপনার পক্ষেও আপনি অনেক যুক্তি দিতে পারবেন৷ যুক্তির কোনো অভাব হবে না৷ এই পর্যন্ত কারোরই অভাব হয়নি৷ এটা যুক্তির বড় দুর্বলতাও বটে৷

ঢাকার নির্বাচনের কথায় আসি৷ এই নির্বাচন কমিশনের ওপর বলা উচিত এর সামর্থ্যের ওপর আস্থা বজায় রাখতে হলে আপনাকে অনেক আশাবাদী হতে হবে৷ প্রশাসন বা নির্বাচনের পরিচালকেরা যেমন অ্যাসাইনমেন্ট পাবেন তেমন কাজই করবেন৷ অনেককেই বলতে শুনি উপরওয়ালারা যেভাবে বলেছেন, সেভাবেই কাজ করেছেন তারা৷ একটু আজব না! মানে আমাদের কোনো আদর্শিক বা নৈতিক অবস্থান নেই৷ আমাদের প্রীতি বা ভীতি দিয়ে যেকোনো কাজ করানো সম্ভব!

Khaled Muhiuddin (DW/P. Böll)

খালেদ মুহিউদ্দীন, প্রধান, ডয়চে ভেলে বাংলা বিভাগ

আসি সকল কাজের কাজি সরকারের কথায়৷ সরকার কি একটা সুষ্ঠু নির্বাচন চায় ঢাকায়? এতদিন ধরে ক্ষমতায় থেকে তারা কি ছোট হলেও একটা পরীক্ষা দিতে রাজি? আমার মনে হয় না৷ পরীক্ষার ঝুঁকি নিয়ে সরকারের কী লাভ? এইটা জিরোসাম গেম৷ ফেইল করলেও সরকার ফেইল আর পাস করলেও ফেল৷ সুতরাং সরল ও সহজ পথে হাঁটাই ভালো৷ এজন্যই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েই শুভেচ্ছার ফুলে ভেসেছেন দুই মেয়রপ্রার্থী৷

প্রার্থীদের কথা যখন এলোই তখন বলে রাখি, চারজনের মধ্যে শুধু ইশরাক হোসেন বাদে বাকি তিনজনকেই আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি৷ মেয়র হিসেবে তারা কেমন হবেন বলার আগে দেখা দরকার, মেয়র হিসেবে কী করতে পারবেন তারা৷ এখন আনিসুল হকের কথা প্রায় সবাই বলেন, তাকে অনুসরণও করতে চান অনেকে৷ কিন্তু মেয়র থাকা অবস্থায় কিন্তু জলাবদ্ধতা বা মশাবাহিত রোগের কারণে বারবার সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে তাকে৷ অসহায়ত্বের কথা বলতে গিয়ে ঢাকার মেয়রেরা প্রায়ই বলেছেন, তাদের কাছে নগর সরকার নেই, পুলিশ নেই, ৫০টির বেশি সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে হয় তাদের৷ তো তারা যে-ই মেয়র হোন আমার বা আপনার কী লাভ?

লাভ লোকসানের কথা পরে হবে, আগে চালান মানে নির্বাচনটা বাঁচুক!

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন