আইএস জঙ্গিদের সন্তানদের ফিরিয়ে আনতে চায় বার্লিন | বিশ্ব | DW | 03.12.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

আইএস জঙ্গিদের সন্তানদের ফিরিয়ে আনতে চায় বার্লিন

ইসলামিক স্টেট বা আইএস জঙ্গিদের বন্দি সন্তানদের দেশে ফিরিয়ে আনতে চায় জার্মানি৷ তবে তাদের ফিরিয়ে আনার সম্ভাব্য বিপদের দিকটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ বর্তমানে এমন অন্তত ছ'জন জার্মান শিশু ইরাকের কারাগারে বন্দি রয়েছে৷

সিরিয়াতে তথাকথিত জঙ্গি গোষ্ঠী জঙ্গি সংগঠন আইএস-এ যোগ দিয়েছে বেশ কয়েকজন জার্মান নাগরিক৷ এদের কয়েকজনের স্ত্রী ও সন্তান বর্তমানে ইরাকে বন্দি অবস্থায় রয়েছে৷ জার্মান দৈনিক স্যুডডয়চে সাইটুং ও পাবলিক ব্রডকাস্টার এনডিআর ও ভিডিআর-এর সূত্রমতে, এ সব শিশুদের জার্মানিতে ফিরিয়ে আনতে ইতিমধ্যেই ইরাকের সহযোগিতা চেয়েছে জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়৷ নাগরিকদের প্রতি রাষ্ট্রের দায়িত্ব ও মানবিকতার বিচারে এদের ফিরিয়ে আনতে চায় জার্মানি৷

সংবাদে জানানো হয়, কূটনীতিকরা কারাবন্দি জার্মান পরিবারের সাথে দেখা করতে গেলে এ সব শিশুদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ জানায় বন্দি মায়েরা৷ অবশ্য এখনো ইরাকের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি৷

আইএস বাহিনীর কবল থেকে ইরাকের বিভিন্ন এলাকা উদ্ধারের পর, আটক করা হয় জঙ্গি পরিবারের এ সব নারীও শিশুদের৷ আইএস-এর প্রতি আনুগত্য দেখিয়ে পালিয়ে আসা পরিবারের সাথে সিরিয়াতে পৌঁছায় অনেক শিশু, আবার অনেকে জন্ম নিয়েছে সিরিয়াতেই৷ যেসব শিশু সিরিয়াতে আইএস অধ্যুষিত এলাকায় জন্ম নিয়েছিল, আইএস-এর পক্ষ থেকে তাদের জন্মসনদ দেয়া হয়েছিল, যদিও পরিবারের সূত্রে তারা জার্মান নাগরিক৷

পরিসংখ্যান মতে, জার্মানি থেকে যে ৯৪০ জন আইএস-এ যোগ দিতে সিরিয়া বা ইরাকে পালিয়ে যায়, তাদের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশেরই রয়েছে জার্মান নাগরিকত্ব৷

তবে এ সব শিশুদের জার্মানিতে ফিরিয়ে আনার সম্ভাব্য বিপদের দিকটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ রিপোর্টে জানানো হয়, একেবারে ছোট শিশুরা ‘ট্রমার' শিকার হলেও যেহেতু আদর্শগতভাবে প্রভাবিত নয়, তাই তাদের নিয়ে নিরাপত্তা ঝুঁকি না থাকলেও অপেক্ষাকৃত বড় বাচ্চাদের ক্ষেত্রে সে সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়া যায় না৷ জার্মানির অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান হান্স-গেয়র্গ মাসেন বলেন, আইএস যোদ্ধাদের সন্তানরা যেহেতু কট্টর ইসলামি চিন্তাধারায় বেড়ে উঠেছে, তারা জার্মান সমাজের জন্য বিপদের কারণ হয়ে উঠতে পারে৷ অর্থাৎ জার্মানির মাটিতেই ‘জিহাদিদের নতুন এক প্রজন্ম তৈরি হতে পারে'৷

    

আরএন/ডিজি

প্রতিবেদনটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য জানান, লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়