অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা বন্ধ, জার্মানিতে বাড়ছে সংক্রমণ | বিশ্ব | DW | 17.03.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা বন্ধ, জার্মানিতে বাড়ছে সংক্রমণ

জার্মানিতে অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা দেওয়া বন্ধ রাখা হয়েছে৷ এদিকে হুহু করে করোনা সংক্রমণের হার বেড়ে চলেছে৷ চ্যান্সেলর ম্যার্কেল ও মুখ্যমন্ত্রীরা আগামী সপ্তাহে পরবর্তী পদক্ষেপ সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেবেন৷

রবার্ট কখ ইনস্টিটিউটসহ একাধিক বিশেষজ্ঞ জার্মানিতে মারাত্মক এক অবস্থার পূর্বাভাষ দিচ্ছেন৷ করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হার এত দ্রুত বেড়ে চলেছে, যে আসন্ন ইস্টারের ছুটির পর পরিস্থিতি সামলানো কঠিন হয়ে পড়বে বলে তারা আশঙ্কা করছেন৷ মঙ্গলবার দৈনিক সংক্রমণের গড় হার ছিল ৮৩ দশমিক সাত৷ অথচ এক সপ্তাহ আগে সেই হার ছিল ৬৮৷ সংক্রমণের এই গতি বজায় থাকলে হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের উপর আবার চাপ সৃষ্টি হতে পারে৷ ৮০ বছরের বেশি বয়সের বেশিরভাগ মানুষ এরই মধ্যে করোনা টিকা পেয়ে গেছেন বলে মৃত্যুর হার কিছুটা কমলেও অন্য বয়সের মানুষ করোনা সংক্রমণের কারণে গুরুতর অসুস্থ হতে শুরু করেছেন৷

করোনা সংকটের বর্তমান পর্যায়ে জার্মানির সরকার একাধিক ক্ষেত্রে ব্যর্থ হচ্ছে বলে চারিদিকে অভিযোগ উঠছে৷ নেতিবাচক পূর্বাভাষ সত্ত্বেও লকডাউন কিছুটা শিথিল করার কারণে সংক্রমণ বাড়ছে৷ করোনার আরও ছোঁয়াচে সংস্করণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার প্রবণতা আগেই শুরু হয়ে গিয়েছিল৷ আগামী ২২শে মার্চ চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা আবার মিলিত হয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ সম্পর্কে আলোচনা করবেন৷ এর আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দৈনিক সংক্রমণের গড় হার পর পর তিন দিন ধরে একশোর বেশি হলে আবার কড়া সিদ্ধান্ত নেবার কথা৷

এদিকে ইউরোপের একাধিক দেশের মতো জার্মানিও অ্যাস্ট্রাজেনেকা কোম্পানির টিকা দেওয়া বন্ধ রাখায় সামগ্রিকভাবে টিকাদান কর্মসূচির গতি আরও কমে গেছে৷ এপ্রিল থেকে জুন মাসের মধ্যে যে গতিতে টিকা দেবার পরিকল্পনা করা হয়েছে, তা বজায় রাখা কঠিন হবে৷ অন্য কোম্পানিগুলি সেই ঘাটতি পূরণ করতে পারবে কিনা, তা স্পষ্ট নয়৷ তাছাড়া অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা নিয়ে অনিশ্চয়তার ফলে ডাক্তারের চেম্বারে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনাও আপাতত স্থগিত রাখতে হচ্ছে৷

অ্যাস্ট্রাজেনেকা কোম্পানির করোনার টিকা নিয়ে বিভ্রান্তি এখনো কাটছে না৷ কোম্পানির অন্যতম দপ্তর যে দেশে, সেই সুইডেনও এই টিকা বন্ধ রাখায় সংশয় বাড়ছে৷ বিশেষজ্ঞরা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসেবে রক্ত জমাট বাঁধার ঝুঁকি সম্পর্কে এখনো চূড়ান্ত রায় দিতে পারছে না৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউরোপীয় ওষুধ সংস্থার বিশেষজ্ঞরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন৷ তবে কিছু বিশেষজ্ঞের মতে, সেই ঝুঁকির সম্ভাবনা এতই কম যে নির্দ্বিধায় এই টিকা নেওয়া যেতে পারে৷ কারণ ঝুঁকির তুলনায় টিকার ফলে উপকারের মাত্রা অনেক বেশি৷ মানুষের সংশয় কাটাতে কর্তৃপক্ষের ছাড়পত্রের পর সবার জন্য এই টিকা নেবার সুযোগ দেবার প্রস্তাবও শোনা যাচ্ছে৷

এসবি/কেএম (রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়