অ্যামেরিকার আগামী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প | বিশ্ব | DW | 09.11.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

অ্যামেরিকার আগামী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবার পর প্রথম ভাষণে ট্রাম্প প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিন্টনের প্রশংসা করলেন৷ বিরোধীদের দিকেও হাত বাড়িয়ে দিলেন৷ সংসদীয় নির্বাচনেও সাফল্য পেয়েছে তাঁর রিপাবলিকান দল৷ হিলারি শিবিরে শোকের ছায়া৷

এ যেন এক ভিন্ন ব্যক্তি৷ কটু ভাষা, ব্যক্তিগত আক্রমণ, কদর্য অঙ্গভঙ্গি পেছনে ফেলে ‘স্টেটসম্যান’ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আগামী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ প্রথমেই প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিন্টন সম্পর্কে বেশ কিছু প্রশংসামূলক মন্তব্য করলেন৷ নির্বাচনি প্রচারের সময় বিভাজন ভুলে ঐক্য প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার করলেন তিনি৷ এমনকি যে সব ভোটার তাকে ভোট দেন নি, তাঁদের প্রতিও সৌজন্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন৷ বিশ্বের বাকি দেশগুলির সঙ্গে সহযোগিতার মাধ্যমে দেশ চালাবেন – এমনটাও বললেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ 

জনমত সমীক্ষায় দুই প্রার্থীর মধ্যে ব্যবধান কম ছিল৷ কিন্তু তা সত্ত্বেও হিলারি ক্লিন্টন অ্যামেরিকার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট হবেন, এমন সম্ভাবনা ও আশা শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত উজ্জ্বল ছিল৷ কিন্তু গণনার এই পর্যায়ে সেই আশার আলো নিভে গেল৷ প্রয়োজনীয় ২৭০টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটের সীমা পেরিয়ে গেছেন তিনি৷ অতএব তিনিই হতে চলেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট৷

শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত সবার নজর ছিল পেনসিলভেনিয়া, মিশিগানের মতো মোট ৮টি রাজ্যের গণনার দিকে৷ এই কয়েকটি রাজ্যের ফলাফলের উপর সার্বিক চিত্র নির্ভর করছিল৷ হিলারি ক্লিন্টন আশাভরে তাকিয়ে ছিলেন সেদিকে৷ কিন্তু শেষরক্ষা হলো না৷

প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় মার্কিন ডলার ও মেক্সিকোর পেসো-র বিনিময় মূল্য পড়ে গেছে৷ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প-এর আমলে গোটা বিশ্বে অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তার আশঙ্কা করছে পুঁজিবাজারের একাংশ৷

ক্ষমতায় এলে ট্রাম্প তাঁর ঘোষিত নীতি বিনা বাধায় বাস্তবায়ন করতে পারবেন – এটা ধরে নেওয়া যেতে পারে৷ কারণ সংসদের উভয় কক্ষেই তাঁর রিপাবলিকান দলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা এসে গেছে৷

এসবি/এপি (রয়টার্স, এএফপি)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন