‌অ্যাপ ক্যাবের অসভ্যতা | বিশ্ব | DW | 15.07.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

‌অ্যাপ ক্যাবের অসভ্যতা

কলকাতার হলুদ ট্যাক্সির বেয়াড়াপনা থেকে নিস্তার মিলেছিল অ্যাপ ক্যাব চালু হওয়ার পর৷ এখন সেই ট্যাক্সিতেও যাত্রীদের সঙ্গে, বিশেষত মহিলাদের সঙ্গে একের পর এক অসভ্যতার ঘটনা ঘটছে৷

যেমন হাওড়া ব্রিজ, বা ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হল, তেমনই কলকাতার গণ পরিবহণের অংশ, তার হলুদ রঙের অ্যাম্বাসাডর ট্যাক্সি এ শহরের অন্যতম অভিজ্ঞান৷ কিন্তু সওয়ারিদের সঙ্গে সেই ট্যাক্সির চালকদের বেয়াড়া ব্যবহার, বাইরে থেকে আসা, কলকাতার পথঘাট সম্পর্কে অনভিজ্ঞ মানুষদের ঘুরপথে নিয়ে গিয়ে, মিটার বেশি তুলে ঠকিয়ে নেওয়ার চেষ্টা, এবং সবথেকে বড় কথা, চালকদের মেজাজ–মর্জি মাফিক যাত্রীর গন্তব্যে যাওয়া অথবা না যাওয়া, খুব বিরক্তিকর হয়ে উঠেছিল৷ সেই বিরক্তির থেকে অব্যাহতি মিলেছিল কলকাতায় ‘‌উবার'‌এবং ‘‌ওলা'‌র মতো ট্যাক্সি চালু হওয়ায়৷ এই ট্যাক্সি মোবাইল–অ্যাপ নির্ভর, যা নির্দিষ্ট একটি কেন্দ্র থেকে নিয়ন্ত্রিত হয়৷ ফলে ইচ্ছেমতো যেতে না চাওয়া, বা ইচ্ছেমতো ভাড়া দাবি করার মতো অপ্রীতিকর ঘটনা ক্রমশ কমতে শুরু করেছিল৷ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত, আধুনিক মডেলের গাড়িগুলিতে সফরও হয়ে উঠেছিল অনেক বেশি আরামদায়ক৷

কিন্তু ইদানীং বোঝা যাচ্ছে, যাত্রীদের সেই স্বস্তি ছিল সাময়িক৷ অ্যাপ ক্যাবের ভাড়া দেওয়ার পদ্ধতিও যেহেতু অ্যাপ নির্ভর, সেখানে এখনও কোনও বেনিয়ম করতে না পারলেও অপছন্দের জায়গায় না যাওয়ার পুরনো বদ অভ্যাস ফিরে আসছে অ্যাপ–ক্যাবের চালকদের মধ্যেও৷ সাম্প্রতিকতম ঘটনাটি বুধবার রাতের, যেখানে বাংলা টিভি ধারাবাহিকের এক অভিনেত্রীর সঙ্গে অসভ্যতা করেছে এক চালক৷ বেশি রাতে তরুণী মেয়েটিকে মাঝরাস্তায় জোর করে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ মেয়েটি নামতে না চাইলে তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হয়েছে৷ পুলিস যদিও পরের দিনই তৎপর হয়ে গ্রেপ্তার করেছে অভিযুক্ত চালককে এবং বাজেয়াপ্ত করেছে তার গাড়ি৷ তাতে কিন্তু জনমানসে স্বস্তি ফেরেনি৷ কারণ অ্যাপ–ক্যাবের অসভ্যতা এই প্রথম নয়৷ আগেও একাধিক ঘটনা ঘটেছে, যাত্রীদের, বিশেষত একলা মহিলা যাত্রীদের হেনস্তার৷ এবং সন্দেহ, ভবিষ্যতেও এমন ঘটনা আরও ঘটবে৷ যদিও শেষ ঘটনাটিতে অভিযুক্ত চালককে আদালতে পেশ করার পর, তাকে জামিন না দেওয়ার কারণ হিসেবে বিচারক বলেছেন, এমন ঘটনা বার বার ঘটতে দেওয়া যায় না৷ কাজেই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে৷

অডিও শুনুন 01:18

অ্যাপ–ক্যাব টাকা বেশি নিলেও পুরুষ–মহিলা সবার জন্য ‘হ্যাসেলফ্রি জার্নি


‘‌‘‌এরকম অনেকবার হয়েছে, যে ‘‌ট্রিপ ক্যানসেল করে দিন'‌— ওঠার পর বলেছে৷'‌'‌ডয়চে ভেলে–কে বললেন সুপর্ণা মিত্র৷ ঠিক যে ঘটনা সদ্য ঘটেছে ওই অভিনেত্রীর সঙ্গে৷ পেশায় শিক্ষিকা সুপর্ণা সম্প্রতি পেশাগতভাবে সংযুক্ত হয়েছেন কয়েকটি নামী টিভি সিরিয়াল নির্মাতা সংস্থার সঙ্গে৷ কাজের প্রয়োজনে তাঁকে প্রায়ই বেশি রাত পর্যন্ত বাইরে থাকতে হয় এবং অ্যাপ–ক্যাবে বাড়ি ফিরতে হয়৷ এবং সুপর্ণার বক্তব্য, ‌অ্যাপ–ক্যাব পুরুষ–মহিলা নির্বিশেষে একটাই কারণে নেয়, যে এটা একটা ‘‌হ্যাসেলফ্রি জার্নি'‌৷ টাকা বেশি দিতে হবে, গলির মধ্যে ঢুকব না— এই সব ঝামেলা ঘাড়ে নেবে না বলেই লোকে অ্যাপ ক্যাব নেয়৷

অডিও শুনুন 01:44

রাত হলে চেনা শহরটাও অচেনা হয়ে যায়!‌‘‘ভয় করে: শ্রাবণী খাঁ


আর একটি টিভি চ্যানেলের প্রযোজনার সঙ্গে যুক্ত কর্মী শ্রাবণী খাঁ–এর অভিজ্ঞতা হল, অস্বস্তি, বা আতঙ্কের সময় অ্যাপ ক্যাব কর্তৃপক্ষ খুব ভালভাবেই পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে৷ একবার যখন এক ঘণ্টার দূরত্ব আড়াই ঘণ্টাতেও শেষ হচ্ছিল না, তখন টেলিফোনে তারা সমানে ভরসা এবং সাহস জুগিয়ে গেছে৷ তার পরেও সমস্যা হয়, বিশেষত রাত হলে, যখন চেনা শহরটাও অচেনা হয়ে যায়!‌‘‌‘‌ভয় করে!‌'‌'‌ডয়চে ভেলেকে বললেন শ্রাবণী৷

উবার সংস্থার এক মুখপাত্র ডয়চে ভেলেকে ইমেল মারফৎ জানিয়েছেন, ‘‌‘‌ঘটনাটি গভীরভাবে উদ্বেগজনক৷ উবার–এর নির্দিষ্ট করে দেওয়া সামাজিক বিধির পরিপন্থি৷ অভিযুক্ত চালক আমাদের অ্যাপ আর ব্যবহার করতে পারবেন না৷ আইনরক্ষক সংস্থাগুলির তদন্তে সহযোগিতা করতেও উবের প্রস্তুত৷'‌'‌

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন