অ্যান্টি-বায়োটিক প্রতিরোধক নতুন ব্যাকটিরিয়া সুপারবাগ নিয়ে দুশ্চিন্তা | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 12.08.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান পরিবেশ

অ্যান্টি-বায়োটিক প্রতিরোধক নতুন ব্যাকটিরিয়া সুপারবাগ নিয়ে দুশ্চিন্তা

ব্রিটিশ গবেষকের নেতৃত্বে চিকিত্সা বিজ্ঞানীদের এক আন্তর্জাতিক দল সম্প্রতি ব্যাকটিরিয়ার এমন এক নতুন জিনের সন্ধান পেয়েছেন, যার ওপর কোন অ্যান্টি-বায়োটিক ওষুধ কাজ করেনা৷ আর এই ব্যাকটিরিয়ার উত্স ভারত সহ কিছু দক্ষিণ এশিয় দেশ৷

সুপারবাগ : অ্যান্টি-বায়োটিক প্রতিরোধক এক নতুন ব্যাকটিরিয়া

সুপারবাগ : অ্যান্টি-বায়োটিক প্রতিরোধক এক নতুন ব্যাকটিরিয়া

মেডিক্যাল জার্নালে প্রকাশিত গবেষনাপত্রে এনডিএম-১ নামে এই নতুন জিনের ওপর কোন অ্যান্টি-বায়েটিক ওষুধ কাজ করেনা৷ এর উত্স নাকি মূলতঃ ভারত৷ ব্রিটেনে ২৯জন রোগির ওপর পরীক্ষা করে দেখা গেছে, তাঁদের মধ্যে ১৭ জন গত এক বছরে হয় ভারতে না হয় পাকিস্তানে ছিল৷ এবং ১৪ জন সেদেশের হাসপাতালে চিকিত্সাধীন ছিল৷ উল্লেখ্য, মেডিক্যাল ট্য্যুরিজিমে বহু বিদেশি ভারতে আসেন চিকিত্সা করাতে৷ চিকিত্সা বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা, এদের মাধ্যমে সারা বিশ্বে দ্রুত ছড়িয়ে পড়বে এই ব্যাকটিরিয়া যার ফল হবে মারাত্মক৷ ব্রিটেনে ঐসব দেশ থেকে আসা কয়েকজন রোগির দেহে ঐ ব্যাকটিরিয়া ধরা পড়েছে৷ এই সুপারবাগ ব্যাকটিরিয়াকে কাবু করার মত কোন ওষুধ এখনও আবিষ্কৃত হয়নি৷

10.02.2010 DW-TV Fit und Gesund Antibiotika 1

-১ নামে নতুন জিনটির ওপর কোন অ্যান্টি-বায়েটিকই কাজ করেনা

ভারতের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিস্ময় প্রকাশ করে বলছেন, কোন বিশেষ দেশে সুপারবাগ ব্যাকটিরিয়ার অস্তিত্ব আছে, এই ধরণের চটজলদি সিদ্ধান্তে আসাটা অন্যায় ও অযৌক্তিক৷ মাল্টি-ড্রাগ রেসিস্ট্যান্স পৃথিবীর যে কোন জায়গায় থাকতে পারে৷ এটা জীবদেহের একটা বৈশিষ্ট্য৷ ভারতকে এজন্য দায়ী করা যেতে পারেনা৷ ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় লিখিতভাবে এর উপযুক্ত জবাব তৈরি করছে৷ যথেচ্ছভাবে অ্যান্টি-বায়োটিক ওষুধ খাওয়াও এর একটা কারণ হতে পারে, জানাচ্ছেন ভারতীয় চিকিত্সা বিশেষজ্ঞরা৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

ইন্টারনেট লিংক

বিজ্ঞাপন