অস্থিরতা বেড়েই চলেছে ইরানে | বিশ্ব | DW | 02.01.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইরান

অস্থিরতা বেড়েই চলেছে ইরানে

ইরানে সরকারবিরোধীদের সঙ্গে নিরাপত্তাবাহিনীর সংঘর্ষে মঙ্গলবার রাতে অন্তত ন'জনের নিহত হবার খবর পাওয়া গেছে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে৷ সেখানে বিক্ষোভকারীরা থানা থেকে অস্ত্র চুরি করার প্রচেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে৷

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, দেশটির কাহদেরিজান শহরে থানা লুট করার সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ছ'জন মারা যান৷ এছাড়া খোমেইনশাহরে ১১ বছর বয়সি এক শিশু ও ২০ বছর বয়সি এক যুবকের মৃত্যু হয়৷ আর নাজাফাবাদ শহরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর এক সদস্য মারা গেছেন৷ এই তিন জনই শিকার করার রাইফেলের গুলিতে মারা গেছেন বলে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম দাবি করেছে৷ এ নিয়ে গেল দু'দিনেই অন্তত ২১ জনের নিহত হবার খবর পাওয়া গেছে৷

এদিকে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে ইরানে যেন কোনো বিদেশি হস্তক্ষেপ না পড়ে মঙ্গলবার সে ‘‘আশা'' প্রকাশ করেছে তুরুস্ক৷

ইরানের আধা সরকারি সংবাদ সংস্থা আইএলএনএ জানিয়েছে যে, গেল তিন দিনে সাড়ে চারশ' বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ তেহরানের একজন নিরাপত্তা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে সংস্থাটি বলছে, এদের মধ্যে গেল শনিবার ২০০ জনকে, রবিবার ১৫০ জনকে এবং সোমবার ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়৷

ভিডিও দেখুন 01:31
এখন লাইভ
01:31 মিনিট

New protests in Iran after Rouhani calls for calm

ইরানে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি ও ভঙ্গুর অর্থনৈতিক ব্যবস্থার প্রতিবাদে ছয়দিন আগে শুরু হওয়া বিক্ষোভ পরে সরকার বিরোধী আন্দোলনে রূপ নেয়৷ বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন পর্যায়ের দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন৷ আরব অঞ্চলে চলমান সংঘাতে ইরানের সম্পৃক্ততারও প্রতিবাদ জানান৷ বিশেষ করে সিরিয়ায় আসাদ সরকারকে অর্থনৈতিক ও সামরিক সহায়তা দেয়ার বিষয়টির সমালোচনা করেন বিক্ষোভকারীরা৷

ইরানের প্রেসিডেন্ট রোহানি জনগণকে শান্ত থাকার আহ্বান জানান৷ একইসঙ্গে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হবারও হুঁশিয়ারি দেন৷ কিন্তু তাতেও বিক্ষোভ থামেনি৷ বরং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রতিবাদকারীরা নানা শহরে বিক্ষোভের ডাক দেন৷ কর্তৃপক্ষ টেলিগ্রাম নামের বার্তা আদান প্রদানকারী অ্যাপটি বন্ধ করে দিয়েছে৷

এর আগে, ইরান সরকার ও বিক্ষোভকারী উভয় পক্ষকেই সহিংসতা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছে জার্মানি৷

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য বিক্ষোভকারীদের সমর্থন দিয়েছেন৷ তিনি বলেছেন যে, ইরানের জনগণ ‘‘খাবার ও স্বাধীনতা দু'টোর জন্যই ক্ষুধার্ত৷''

জেডএ/ডিজি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন