অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি জয় | বিশ্ব | DW | 15.11.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি জয়

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ফাইনালে দাপটে খেলে আট উইকেটে জিতল তারা। তিনবার ফাইনালে হারল নিউজিল্যান্ড।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতল অস্ট্রেলিয়া।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতল অস্ট্রেলিয়া।

রোববার টস জিতে প্রথমে নিউজিল্যান্ডকে ব্যাট করতে পাঠান অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। আমিরাতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এবার টস জিতলে ম্যাচে সুবিধাজনক অবস্থায় থেকেছে দলগুলি। কারণ, পরের দিকে শিশিরেোর জন্য বল ভিজে যাচ্ছিল এবং ভারি হয়ে যাচ্ছিল। বোলারদের গ্রিপ করতে অসুবিধা হচ্ছিল। পেসাররা সুইং পাচ্ছিলেন না। ফলে টস জিতে কাজের কাজটা করে ফেলেন ফিঞ্চ। প্রথমেই এগিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।

উইলিয়ামসনের লড়াই

বিশ্বকাপ ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের ইনিংস টেনে নিয়ে যান অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ৪৮ বলে ৮৫ রান করেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের যথেচ্ছ মেরেছেন, ক্রিকেটীয় শট খেলেছেন। তবে একবার তার ক্যাচ ফসকেছে অস্ট্রেলিয়া। উইলিয়ামসনের দাপুটে ইনিংসের জন্য নিউজিল্যান্ড ২০ ওভারে চার উইকেটে ১৭২ রান তোলে।

অস্ট্রেলিয়ার দাপট

অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস শুরু হওয়ার পর মাত্র পাঁচ রান করে আউট হয়ে যান ফিঞ্চ। কিন্তু তাদের ইনিংসকে টেনে তোলেন ওয়ার্নার এবং মার্শ। ওয়ার্নার ৩৮ বলে ৫৩ রান করেন, আর মার্শ ৫০ বলে ৭৭ রানে অপরাজিত। ম্যাক্সওয়েলও ১৮ বলে ২৮ রান করে নট আউট থাকেন। ১৮ দশমিক পাঁচ ওভারে দুই উইকেট হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয়।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে সোধি এবার খুবই ভালো বল করেছেন। কিন্তু ফাইনালে তিনি তিন ওভারে ৪০ রান দিয়েছেন। সাউদি তিন ওভার ও পাঁচ বল করে দিয়েছেন ৪৩ রান। একমাত্র বোল্ট ছাড়া কেউ ভালো বল করতে পারেননি। দুইটি উইকেট তিনিই পেয়েছেন।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে অস্ট্রেলিয়াকে সম্ভাব্য চ্যাম্পিয়ন হিসাবে দেখেননি অধিকাংশ বিশেষজ্ঞই। অনেকে ভারতকে ফেভারিট বলেছিলেন। ভারত সেমিফাইনালেউঠতে পারেনি। অস্ট্রেলিয়াও গ্রুপ পর্যায়ে যে সব ম্যাচে দুর্দান্ত খেলেছে, তা নয়। কিন্তু সেমিফাইনাল ও ফাইনালে দেখা গিয়েছে সেই পুরনো দাপুটে অস্ট্রেলিয়াকে, যারা বিপক্ষকে দুরমুশ করে দিয়ে জেতে।

সদ্যসমাপ্ত আইপিএলে একেবারেই ফর্মে ছিলেন না ওয়ার্নার। রান পাননি। তিনিই টুর্নামেন্টে অসাধারণ ইনিংস খেলেছেন। তিন বছর আগে বল বিকৃতির জন্য যাকে নিন্দায় ভরিয়ে দিয়েছিল ক্রিকেট বিশ্ব, সেই ওয়ার্নার এবার অসাধারণ খেলেছেন।

তিন ফাইনালে হার

নিউজিল্যান্ড ২০১৫, ২০১৯, ২০২১ সালের বিশ্বকাপে ফাইনালে উঠল, কিন্তু একবারও জিততে পারল না। কিছুদিন আগে ভারতকে হারিয়ে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছে তারা। কিন্তু টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ান হতে পারল না উইলিয়ামসনের দল।

ম্যাচের পর উইলিয়ামসন বলেন, ''উইকেট ধীরগতির ছিল। ১৭২ রান তোলার পর আমরা ভেবেছিলাম লড়াই করা যাবে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া খুবই ভালো খেলল। ওরা সহজে রান তাড়া করেছে। আমাদের একটুও জায়গা ছাড়েনি।'' তিনি জানিয়েছেন হার থেকে শিক্ষা নেবেন।

ব্যাটে বাবর, বলে জাম্পা, বোল্ট

এই বিশ্বকাপে ব্যাটে সব চেয়ে বেশি রান পেযেছেন পাকিস্তানের অধিনাযক বাবর আজম। তিনি ছয় ম্যাচে ৩০৩ রান করেছেন। দ্বিতীয় স্থানে পাকিস্তানের রিজওয়ান, তিনি ছয় ম্যাচে করেছেন ২৮১ রান।

বোলিংয়ে উইকেট নেয়ার নিরিখে এক নম্বরে অস্ট্রেলিয়ার জাম্পা ও নিউজিল্যান্ডের বোল্ট। দুজনেই ১৩টি করে উইকেট পেয়েছেন। ১১টা করে উইকেট নিয়েছেন সাকিব ও হ্যাজেলউড।

জিএইচ/এসজি (স্টার স্পোর্টস)