অলিম্পিকে একশ মিটার দৌড়ে জয়ী জেকবস | বিশ্ব | DW | 02.08.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জাপান

অলিম্পিকে একশ মিটার দৌড়ে জয়ী জেকবস

টোকিও অলিম্পিকে একশ মিটার দৌড়ে জিতলেন ইটালির ল্যামন্ট মার্সেল জেকবস। ব্যাডমিন্টনে ব্রোঞ্জ ভারতের সিন্ধুর।

অলিম্পিকে প্রথমবার সোনা জিতলেন ইটালির কোনো অ্য়াথলিট।

অলিম্পিকে প্রথমবার সোনা জিতলেন ইটালির কোনো অ্য়াথলিট।

এই প্রথম ইটালির একজন অ্যাথলিট অলিম্পিকে একশ মিটার দৌড়ে জিতলেন। ২৬ বছর বয়সি জেকবস নতুন ইউরোপীয় রেকর্ডও করেছেন। তিনি একশ মিটার দৌড়েছেন নয় দশমিক আট সেকেন্ডে। অ্যামেরিকার ফ্রেড কের্লিকে টপকে গিয়ে জেকবস জেতেন।

জেকবস বলেছেন, ''শৈশব থেকে এটাই আমার স্বপ্ন ছিল। জেতার পরেও বিশ্বাস হচ্ছে না। শোয়ার সময় সিলিংয়ের দিকে তাকিয়ে থাকার সময় বোধহয় বিশ্বাস হবে।''

তার জন্ম অবশ্য অ্যামেরিকায়। কিন্তু তার মা ছিলেন ইটালির মেয়ে। এক মাস বয়সে মায়ের সঙ্গে তিনি ইউরোপে চলে আসেন। এই বছরে দুই বার তিনি ১০ সেকেন্ডের কমে একশ মিটার দৌড়েছেন।

জেকবস একশ মিটার দৌড়ে জেতার ১০ মিনিটের মধ্যেই ইটালির তামবেরি পুরুষদের হাইজাম্পে সোনা জেতেন।

সিন্ধুর ব্রোঞ্জ

ব্যাডমিন্টনে ব্রোঞ্জ জিতেছেন ভারতের পি ভি সিন্ধু। এই নিয়ে পরপর দুইটি অলিম্পিকে তিনি ব্রোঞ্জ জিতলেন। চীনের হি বিং জিয়ায়কে হারিয়েছেন সিন্ধু।

এরপর সিন্ধু জানিয়েছেন, তিনি চান তাকে দেখে আরো অনেক ক্রীড়াবিদ অনুপ্রাণিত হোক। আরো ভালো ক্রীড়াবিদ উঠে আসুন। তিনি বলেছেন, 'আমি কঠোর পরিশ্রম করছি। কিন্তু এখন আমি ব্রোঞ্জ জিতে খুশি নাকি সোনা হারানোয় দুঃখিত, সেটা বুঝে উঠতে পারছি না। অবশ্য এখন আবেগকে দূরে সরিয়ে রাখতে হবে। তবে আমি দেশকে গর্বিত করতে পেরে খুশি।'

৪১ বছর পর

ভারতের হকি দল আবার অলিম্পিকের সেমিফাইনালে উঠল। ৪১ বছর পর। ব্রিটেনকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে ভারত। এবার তাদের সামনে শক্তিশালী বেলজিয়াম। যারা এখনো একটাও ম্যাচ হারেনি। বেলজিয়ামকে হারাতে পারলে ফাইনালে উঠে অন্ততপক্ষে রুপো নিশ্চিত করবে ভারত। আর হেরে গেলে ব্রোঞ্জের জন্য লড়তে হবে।

অলিম্পিকে হকিতে ভারতের শেষ পদক ১৯৮০ সালে। তবে সেবার বয়কটের জেরে অনেক দেশ খেলেনি। ভারত সেখানে হকিতে সোনা পায়।

সেমিফাইনালে মেয়েরাও

ভারতের মেয়ে হকি দলও সেমিফাইনালে উঠেছে। অলিম্পিকে এই প্রথমবার। সেটাও তিনবারের সোনা জয়ী অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে। ভারতের একমাত্র গোল গুরজিত কাউরের। গ্রুপে নেদারল্যান্ডস, জার্মানি ও যুক্তরাজ্যের কাছে হেরেছিল ভারত। তারপর তারা যে সেমিফাইনালে যেতে পারবে তা ভাবা যায়নি।

জিএইচ/এসজি (রয়টর্স, এপি, এএফপি)