অর্ধেকের বেশি এশীয় জানেন না তাঁদের ডায়াবেটিস আছে | বিশ্ব | DW | 17.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ডায়াবেটিস

অর্ধেকের বেশি এশীয় জানেন না তাঁদের ডায়াবেটিস আছে

আন্তর্জাতিক ডায়াবেটিস ফেডারেশন বা আইডিএফ-এর বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এশিয়ায় যাঁদের ডায়াবেটিস আছে, তাঁদের অর্ধেকেরও বেশি মানুষ জানেন না যে, তাঁরা এই রোগে ভুগছেন৷

শরীরে ডায়াবেটিস রোগের উপস্থিতি সম্পর্কে না জানা এবং সে কারণে তার চিকিৎসা না করা প্রাণঘাতী হতে পারে বলে জানিয়েছে আইডিএফ৷ ইতিমধ্যে বাংলাদেশ ও ভারতে মানুষের মৃত্যুর দশটি কারণের একটি হয়ে উঠেছে ডায়াবেটিস৷

‘‘ডায়াবেটিস একটি ‘নীরব’ রোগ৷ তৃষ্ণা কিংবা ক্লান্তির মতো লক্ষণ যে দেখা দেবেই, বিষয়টি তেমন নয়,’’ ডয়চে ভেলেকে বলেন ভারতের ক্যাথলিক হেলথ অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়ার চিকিৎসক সমীর বালাশংকর৷  

বর্তমানে বাংলাদেশে ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা প্রায় এক কোটি দশ লক্ষ৷ ২০৪৫ সালের মধ্যে সংখ্যাটি এক-তৃতীয়াংশ বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ বাংলাদেশের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী এর জন্য ‘খাদ্যাভ্যাস, অনুশীলনের অভাব ও ধূমপান’কে দায়ী করছেন৷ ডয়চে ভেলেকে তিনি বলেন, গ্রামাঞ্চলে মানুষ এখন বেশি মাছ খেতে পান না, কারণ মাছ বিক্রির বিনিময়ে তাঁদের অন্য খাবারের সংস্থান করতে হচ্ছে৷ খাবারে মূল্যও বেড়ে যাচ্ছে৷ ‘‘সে কারণে মানুষ কার্বোহাইড্রেট বেশি খাচ্ছে৷ তাঁরা ভাত বেশি খাচ্ছে, সবজি কম খাচ্ছে৷ এছাড়া কোকাকোলা, এনার্জি ড্রিংক পানও বেড়েছে,’’ বলেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী৷

তিনি বলেন, মানুষের শারীরিক পরিশ্রম কমে গেছে৷ ‘‘স্কুলগুলোতে খেলার মাঠ নেই৷ শহরের স্কুলগুলোতে খেলার মাঠের অভাব রয়েছে৷ সে কারণে শিশুরা খেলাধুলা করতে পারে না৷’’ 

Infografik Zuckerkonsum empfohlene Menge BN

২০১৭ সালে ‘ঢাকা ট্রিবিউন’ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ স্পিড, পাওয়ার, ব্ল্যাক হর্স, রেডবুলসহ কয়েকটি এনার্জি ড্রিংক পরীক্ষা করে দেখেছে যে, বেশিরভাগ পানীয়তে সাধারণত ৫৪ গ্রাম চিনি আছে, যা সাড়ে তের চা-চামচের সমান৷

ভারতেও একই অবস্থা
বার্তা সংস্থা এপি-র এক প্রতিবেদনে দিল্লির ১৭ বছর বয়সি এক ডায়াবেটিস রোগীর কথা তুলে ধরা হয়েছে৷ রোহিন সারিন নামের এই রোগীর সাত বছর আগে ডায়াবেটিস ধরা পড়ে৷ তাই এখন তাঁকে স্কুল ব্যাগে ইনসুলিন পেন রাখতে হয়, দিনে চারবার ইনজেকশন নিতে হয় এবং রক্তে চিনির মাত্রা ঠিক রাখার জন্য এনার্জি বার খেতে হয়৷

India Diabetes Rohin Sarin Insulinspritze

রোহিন সারিন

এপিকে তিনি জানিয়েছেন, ডায়াবেটিসের সঙ্গে বসবাসের নিয়ম তিনি জানেন৷ তাই তো মিষ্টি ও চিনিযুক্ত পানীয় এড়িয়ে চলেন৷

আন্তর্জাতিক ডায়াবেটিস ফেডারেশন বা আইডিএফ বলছে, ভারতের ৮ দশমিক ৮ শতাংশ মানুষের এই রোগ আছে৷ সংখ্যার হিসেবে তা প্রায় সাড়ে এগারো কোটি৷ চীনের পরে ভারতেই ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি

ভারতে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির কারণে মানুষের জীবনযাত্রায় পরিবর্তন এসেছে৷ মানুষ এখন খাবার খেতে বাইরে বেশি যাচ্ছেন৷ এবং সেক্ষেত্রে ফাস্ট ফুড, যেমন, বার্গার, পিৎজা ইত্যাদি বেছে নিচ্ছেন৷ বার্গারের আন্তর্জাতিক চেন ‘বার্গার কিং’ যখন প্রথমবারের মতো নতুন দিল্লিতে দোকান চালু করেছিল, তখন সেখানে দীর্ঘ লাইন পড়ে গিয়েছিল৷

তবে শুধু শহর এলাকার ধনী মানুষই নয়, গ্রামের গরিব মানুষের মধ্যেও এই সমস্যা রয়েছে৷ 

Infografik Altersverteilung Diabetis BN

ভারতের ক্যাথলিক হেলথ অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়ার চিকিৎসক সমীর বালাশংকর ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘ভারতীয়রা ইদানীং হাঁটাচলা কম করে আর প্রক্রিয়াজাত খাবার বেশি খাচ্ছে৷ শহরের মানুষ সবজি, ফলমূল কম খাচ্ছেন৷ এর পরিবর্তে প্রক্রিয়াজাত খাবার, যেমন ‘ম্যাগি’ নুডুলস বেশি খাচ্ছে৷ কারণ, এই নুডুলস দ্রুত রান্না করা যায় এবং এটা সব জায়গায় পাওয়া যায়৷ দামেও সস্তা৷ বর্তমানে এক কেজি টমেটোর দাম প্রায় ৪০ রূপি৷ সেখানে এক প্যাকেট নুডুলসের দাম মাত্র ১০ রূপি৷ ফলে গরিব মানুষরা এর প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছেন৷ অনেক শিশু দিনে দুই/তিনবার ইনস্ট্যান্ট নুডুলস খাচ্ছে৷’’

ডিডাব্লিউ ভিজ্যুয়াল জার্নালিজম টিম/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন