অমিত শাহ ঠিক বলেননি: বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী | বিষয় | DW | 12.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

অমিত শাহ ঠিক বলেননি: বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশে সংখ্যালঘুরা নির্যাতিত হচ্ছে, এ তথ্য সত্য নয়৷ লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় এ কথাই বলেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন৷

বাংলাদেশে সংখ্যালঘুরা নির্যাতিত হচ্ছে, ভারতের দেয়া এ তথ্য সত্য নয়৷ ভারতের লোকসভায় নাগরিকত্বসংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় এ কথাই বলেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন৷

লোকসভায় পাস হওয়ার পর বুধবার ভারতের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায়ও বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি পাস হয়৷

তার একদিনের মাথায় জরুরি সফরে দিল্লি যাচ্ছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন৷

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মোমেনের দিল্লি পৌঁছানোর কথা৷ সেখানে তিন দিনের সফরে তিনি কয়েকটি অধিবেশনে যোগ দেওয়া ছাড়াও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন৷

গত সোমবার লোকসভায় বিপুল ভোটে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর অমিত শাহ বাংলাদেশসহ তিন প্রতিবেশী দেশের সংবিধানকে উদ্ধৃত করে বলেছিলেন, ওই দেশগুলোর রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বলেই সেখানে অন্য ধর্মের মানুষরা নিপীড়িত হচ্ছেন।

যার বিরোধিতা করে বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের আবদুল মোমেন বলেন, ‘‘আমাদের দেশে সংখ্যালঘু বা ধর্মের নামে নির্যাতন হয় না৷ আমাদের দেশে ধর্ম যার যার, কিন্তু উৎসব সবার৷''

‘‘যারা আমাদের এখানে সংখ্যালঘুদের উপর নিপীড়ন হওয়ার তথ্য দিয়েছেন তারা সত্য বলেননি৷ আমি আশা করব, আমাদের দেশে যারা সংখ্যালঘু নেতৃত্বে রয়েছেন তারাই এই বিষয়ে কথা বলবেন।''

ভারত ঐতিহাসিকভাবে একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ। নাগরিকত্ব সংশোধনীর নামে বিভেদ হলে দেশটির পদস্খলন হবে এবং তাদের ঐতিহাসিক অবস্থান দুর্বল হয়ে পড়বে বলেও মনে করেন মোমেন।

এসএনএল/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়