অভিবাসন নিয়ে ট্রাম্পের আরও কড়া নীতি | বিশ্ব | DW | 25.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

অভিবাসন নিয়ে ট্রাম্পের আরও কড়া নীতি

অভিবাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানের পথ থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্প সরে আসেননি৷ টুইটারে তিনি যে শেষ বার্তা দিয়েছেন, তার কড়া সমালোচনা করেছেন মানবাধিকার কর্মীরা৷

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই অভিবাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর মনোভাব নিয়েছেন ট্রাম্প৷ রবিবারের একগুচ্ছ টুইটে তিনি শরণার্থীদের নিশানা করেছেন৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেছেন, মেক্সিকো থেকে অনুপ্রবেশকারীরা জোর করে দেশে ঢুকতে চাইছে৷ তাই তিনি কোনো আইনি প্রক্রিয়া ছাড়াই এই শরণার্থীদের মেক্সিকোয় ফেরত পাঠানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন৷ লিখেছেন, ‘‘যখন কেউ ঢুকে পড়ে, যেখান থেকে তারা এসেছে সেখানে অবিলম্বে তাদের ফেরত পাঠানো উচিত৷ আদালতের ভরসায় না থেকে তাদের ফেরত পাঠানোই উচিত আমাদের৷''

মার্কিন মানবাধিকার কর্মীরা তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, প্রেসিডেন্টের ঘোষণা দেশের সংবিধান বিরোধী৷

অ্যামেরিকান সিভিল লিবার্টিজ ইউনিয়ন (এসিএলডি) বলেছে, ‘‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যা বলেছেন, তা একইসঙ্গে বেআইনি ও সংবিধানবিরোধী৷ তাদের টুইটে বলা হয়েছে, যিনি সংবিধানের নামে শপথ নিয়ে সরকারি দায়িত্ব পালন করছেন, তাঁর উচিত প্রেসিডেন্টের মন্তব্যের বিরোধিতা করা৷''

ট্রাম্পের নীতি সমালোচনার মুখে

ট্রাম্পের অবস্থান নতুন কিছু নয়৷ হোয়াইট হাউস অভিবাসনের ব্যাপারে যে কঠোর নীতি নিয়েছে, তা ডেমোক্র্যাট তো বটেই, শাসক দল রিপাবলিকানদের অনেক আইনপ্রণেতাকে চিন্তায় রেখেছে৷

গত সপ্তাহে অবশ্য ট্রাম্প অভিবাসন সংক্রান্ত একটি কঠোর নীতি ঘোষণা করেও প্রত্যাহার করে নিয়েছেন৷ এই নীতি অনুযায়ী যে অভিভাবকরা বেআইনিভাবে অ্যামেরিকায় এসেছেন, তাদের থেকে সন্তানদের বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হতো৷ তবে পর্যাপ্ত নথিপত্র ছাড়া অ্যামেরিকায় প্রবেশ করলে কঠোর নিয়মের মুখে পড়তে হবে৷

ট্রাম্প নীতি বদল করলেও গত শনিবার ডিপার্টমেন্ট অফ হোমল্যান্ড সিকিউরিটি পরিবারের পৃথকীকরণ নিয়ে প্রথম তথ্য প্রকাশ করেছিল৷ নভেম্বরের নির্বাচনের আগে ট্রাম্প অভিবাসন নিয়ে মার্কিনি জনতাকে বার্তা দিতে চাইছেন৷

অভিবাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর ট্রাম্প

বরাবরই অভিবাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর কথা বলেছেন ট্রাম্প৷ তাঁদের বিপজ্জনক ও হিংস্র অপরাধীও বলেছেন৷ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপকে তিনি অ্যামেরিকাকে শক্তিশালী করার পথ হিসেবে ব্যাখা করেছেন৷ তিনি এই পথে মহান অ্যামেরিকা গঠনের স্লোগান দিয়েছেন৷

রবিবারের টুইটে ট্রাম্প বলেছেন, ‘‘আমাদের অভিবাসন নীতি নিয়ে সব জায়াগায় হাসাহাসি হচ্ছে৷ কিন্তু, যারা নিয়ম মেনে অভিবাসী হয়েছেন, তাঁদের প্রতি এটা অবিচার৷''

অ্যামেরিকাকে শক্তিশালী করে তুলতে দেশকে অন্যদের থেকে বিচ্ছিন্ন করতে চান ট্রাম্প৷ এই নমুনা তাঁর অনেক সিদ্ধান্তে মিলেছে৷

অভিবাসন বিশ্বজনীন সমস্যা

যেদিন ট্রাম্প টুইট করেছেন, সেদিন ব্রাসেলসে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল সহ ইউরোপীয় নেতারা ব্রাসেলসে অভিবাসন নিয়ে বৈঠক করেছেন৷ ট্রাম্প অভিবাসন নিয়ে বারবার ম্যার্কেলের সমালোচনা করেছেন, জার্মানিকে অভিবাসনের পক্ষে বিপজ্জনক বলেছেন৷ ম্যার্কেল অভিবাসন নিয়ে উদার দৃষ্টিভঙ্গি নেওয়ায় ট্রাম্পের এই ক্ষোভ৷

পিএস/ডিজি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন