অভিবাসনবিরোধীরা ম্যার্কেলের চেয়ে বেশি ভোট পেলেন | বিশ্ব | DW | 28.10.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

অভিবাসনবিরোধীরা ম্যার্কেলের চেয়ে বেশি ভোট পেলেন

জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের দল সিডিইউ টুরিঙ্গিয়া রাজ্য নির্বাচনে অভিবাসনবিরোধী এএফডি দলের চেয়ে কম ভোট পেয়েছে৷ ঐ রাজ্যে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছে বাম দল৷

সাবেক পূর্ব জার্মানির অংশ টুরিঙ্গিয়া রাজ্যে রবিবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বাম দল সর্বোচ্চ ৩১ শতাংশ ভোট পেয়েছে৷ এর পরে আছে অভিবাসনবিরোধী এএফডি দল৷ তারা পেয়েছে ২৩.৪ শতাংশ ভোট৷ আর চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের খ্রিষ্টীয় গণতন্ত্রী সিডিইউ দল ২১.৮ শতাংশ ভোটারের মন জয় করতে পেরেছে৷

২০১৪ সালের রাজ্য নির্বাচনের আগে টানা ২৪ বছর রাজ্য সরকার পরিচালনা করেছে সিডিইউ৷ ২০১৪ সালের নির্বাচনের পর বাম দলের নেতৃত্বাধীন জোট সরকার ক্ষমতায় যায়৷ কেন্দ্রে মহাজোট সরকারে সিডিইউর সঙ্গী সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি দল এবং সবুজ দলকে সঙ্গে নিয়ে এতদিন রাজ্য প্রশাসন চালিয়েছে বাম দল৷

তবে রোববারের নির্বাচনে এসপিডি ও সবুজ দলের ভোট কমে যাওয়ায় বাম দলকে এবার নতুন সরকার গঠন করতে আরও একটি দলের সহায়তা নিতে হবে৷

গত সেপ্টেম্বরে পূর্ব জার্মানির আরও দুটি রাজ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়৷ সেখানেও এএফডির ভোট বেড়েছে৷ সাক্সোনি-আনহাল্ট রাজ্যে ২৭.৫ শতাংশ ভোট পায় এএফডি৷ আর ব্রান্ডেনবুর্গে ২৩.৫ শতাংশ ভোট পায় তারা৷ দুটো রাজ্যেই দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভোট পায় অভিবাসন ও মুসলমানবিরোধী এই দলটি৷

টুরিঙ্গিয়া রাজ্যে এএফডির নেতা বিয়র্ন হ্যোকে বিভিন্ন সময়ে দেয়া তাঁর কট্টরপন্থি বক্তব্যের জন্য বিতর্কিত৷ যেমন বার্লিনে হলোকস্ট স্মরণে নির্মিত স্মৃতিসৌধকে একবার তিনি ‘মেমোরিয়াল অফ শেম' বলে আখ্যায়িত করেছিলেন৷ তাঁর এমন সব বক্তব্যের জন্য জার্মানির অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থার নজরদারিতে ছিলেন তিনি৷

টুরিঙ্গিয়ায় এএফডির ভোট বাড়ায় জার্মানির ইহুদি নেতারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন৷

জেডএইচ/কেএম (ডিপিএ, রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন