অভিজিৎ হত্যা: ৫ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড, ফারাবীর যাবজ্জীবন | বিশ্ব | DW | 16.02.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

অভিজিৎ হত্যা: ৫ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড, ফারাবীর যাবজ্জীবন

বিজ্ঞান লেখক অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে হত্যার মামলায় সেনাবাহিনী থেকে চাকরিচ্যুত মেজর জিয়াউল হক ওরফে জিয়াসহ পাঁচ জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ড এবং উগ্রপন্থি ব্লগার শফিউর রহমান ফারাবীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত৷

মঙ্গলবার দপুরে ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন বলে বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানায়৷

২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে অভিজিৎ রায় স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাকে নিয়ে বইমেলা থেকে ফিরছিলেন৷ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সামনে চালানো হামলায় ঘটনাস্থলেই নিহত হন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী অভিজিৎ৷ চাপাতির আঘাতে আঙুল হারান বন্যা৷

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, পদার্থবিদ অধ্যাপক অজয় রায়ের ছেলে অভিজিৎ থাকতেন যুক্তরাষ্ট্রে৷ বিজ্ঞানের নানা বিষয় নিয়ে লেখালেখির পাশাপাশি মুক্তমনা ব্লগ সাইট পরিচালনা করতেন তিনি৷ হত্যাকাণ্ডের পর শাহবাগ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন৷ একুশে পদকজয়ী পদার্থবিদ অজয় রায় বার্ধক্যজনিত সমস্যা, নিউমোনিয়া ও ব্রংকাইটিসে ভুগে ২০১৯ সালের ৯ ডিসেম্বর মারা যান৷ তার মৃত্যুর একবছর দু মাস পর অভিজিৎ হত্যা মামলার রায় হলো৷

মামলার রায়ে বলা হয়, ‘‘আসামিরা সাংগঠনিকভাবে অভিন্ন অভিপ্রায়ে স্বাধীনভাবে মত প্রকাশে বাধা দেওয়ার উদ্দেশ্যে অভিজিৎ রায়কে হত্যা করে৷ সে কারণে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তিই প্রাপ্য৷’’

এ মামলায় অভিযুক্ত ছয় আসামির মধ্যে সেনাবাহিনী থেকে চাকরিচ্যুত মেজর জিয়াউল হক ওরফে জিয়া, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন ওরফে শাহরিয়ার, আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব, আরাফাত রহমান ওরফে সিয়াম ওরফে সাজ্জাদ ওরফে শামস), আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে আবদুল্লাহকে মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে৷

তারা সবাই নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য৷

আরেক আসামি উগ্রপন্থি ব্লগার শফিউর রহমান ফারাবী হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত ছিলেন না৷ তবে তিনি ফেইসবুকে পোস্ট দিয়ে অভিজিৎ রায়কে ‘হত্যার প্ররোচনা দিয়েছিলেন’ বলে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে৷

আসামিদের মধ্যে জিয়া ও আকরাম পলাতক৷ বাকি চার আসামি রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন৷

মঙ্গলবার দুপুরে রায় ঘোষণার আগে ঢাকার আদালতে  আসামিদের আনা হয়৷ আইনজীবীরা জানান, ফারাবীকে রায়ের পর কিছুটা বিমর্ষ দেখালেও বাতি তিনজন রায়ের আগের মতোই ‘উৎফুল্ল ও উদ্ধত’ ছিল৷  দণ্ডিত আসামিদের মধ্যে জিয়া, সায়মন ওরফে শাহরিয়ার, আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব, আকরাম হোসেন ওরফে হাসিবকে প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যা মামলার রায়েও মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে৷

মঙ্গলবার দীর্ঘপ্রতীক্ষিত এ মামলার রায় ঘোষণার সময় অভিজিতের পরিবারের কেউ আদালতে উপস্থিত ছিলেন না৷

এসিবি/জেডএইচ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

২০১৫ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারির ছবিঘরটি দেখুন...

সংশ্লিষ্ট বিষয়