অবিস্মরণীয় এক দৌড় | বিশ্ব | DW | 16.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

অবিস্মরণীয় এক দৌড়

সাচ্চা খেলোয়াড় শুধু পদক জিতেই হয় না, দেখাতে হয় স্পোর্টসম্যান স্পিরিট৷ তেমনই স্পিরিটের এক বিরল উদাহরণ তৈরি করেছিলেন ব্রিটিশ অ্যাথলিট ডেরেক রেডমন্ড৷ ১৯৯২ সালের অলিম্পিকে৷

Derek Redmond Britischer Sportler (picture-alliance/PhotoShot)

ডেরেক রেডমন্ড

অলিম্পিক আসরে বহু ইতিহাস তৈরি হয়েছে, বহু ইতিহাস ভেঙেছে৷ বহু ঘটনা মানুষ মনে রেখেছেন, বহু কিছু ভুলেও গিয়েছেন৷ কিন্তু এমন ঘটনা বড় একটা দেখেননি কেউ৷ ব্রিটিশ অ্যাথলিট ডেরেক রেডমন্ডকে এখনো মনে রেখেছে খেলার বিশ্ব৷

নব্বইয়ের দশকের বিখ্যাত অ্যাথলিট ছিলেন রেডমন্ড৷ ৪০০ মিটার দৌড়ে তখন তাঁর ধারেকাছে কেউ ছিলেন না৷ বিভিন্ন আসরে সোনা জেতার পর ১৯৯২ সালের অলিম্পিকে অংশ নেন তিনি৷ সকলে ধরেই নিয়েছিলেন অঘটন না ঘটলে ডেরেকই স্বর্ণপদক পাবেন৷ কিন্তু দৌড় শুরু হওয়ার খানিকক্ষণের মধ্যেই হ্যামস্ট্রিংয়ে টান ধরে ডেরেকের৷ বসে পড়েন তিনি ট্র্যাকের ওপর৷ পদক জেতার স্বপ্ন ততক্ষণে হাতের বাইরে চলে গিয়েছে৷ যে কোনো খেলোয়াড়ের কাছেই এমন ঘটনা হৃদয়বিদারক৷ ট্র্যাকের ওপর খানিকক্ষণ বসে থাকেন ডেরেক৷ কেঁদে ফেলেন৷ তারপর দাঁড়ান৷ এক পায়েই দৌড়াতে শুরু করেন৷

খানিকক্ষণ পর দেখা যায় দর্শকাসন থেকে এক ভদ্রলোক নিরাপত্তরক্ষীদের সরিয়ে দৌড়ে আসছেন ডেরেকের দিকে৷ তিনি ডেরেকের বাবা৷ ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে ফিনিশ লাইন পর্যন্ত তিনি যান৷ রেস শেষ করেন ডেরেক৷ গ্যালারিতে তখন ৬৫ হাজার দর্শক৷ প্রত্যেকে উঠে দাঁড়িয়ে হাততালি দিয়ে সম্ভাষণ জানিয়েছিলেন বাবা-ছেলেকে৷

অলিম্পিক্ ইতিহাসে এখনো উজ্জ্বল সেই ঘটনা৷ এখনো সেই দৌড়ের দৃশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল৷

এসজি/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন