‘অবসরেও সক্রিয়’ বুশ এবার ফেসবুকে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 03.06.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

‘অবসরেও সক্রিয়’ বুশ এবার ফেসবুকে

মাত্র দু’দিন আগে বিশ্বজুড়ে পালিত হলো ‘ফেসবুক বর্জন দিবস’৷ ফেসবুকের নিরাপত্তা নীতির প্রতিবাদে বর্জন দিবসে সাড়া এসেছে ৩০ হাজার সদস্যের৷ তবে হতাশার কিছু নেই৷ দু’দিন পরেই এর সাথে নিজের নাম যোগ করলেন এক মহান মার্কিন নেতা৷

default

টেক্সাসে ‘উইন্ডপাওয়ার ২০১০’ এ জর্জ ডাব্লিউ বুশ

অবশ্য ফেসবুকে এসে শুধুই যে ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন তিনি – এমনটি জোর দিয়ে বলার উপায় নেই৷ বুধবার ফেসবুকে নিজের নাম যোগ করার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই ভক্ত জুটেছে ২৮ হাজারেরও বেশি৷ ভক্ত ম্যাট থুলেন লিখেছেন, ‘‘প্রভু আপনাকে আশীর্বাদ করুন৷ এই মহান জাতিকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ৷ আপনার অভাব খুব বেশি অনুভূত হয়৷'' ভিক্টোরিয়া নিউটন লিখেছেন, ‘‘ফেসবুকে স্বাগত৷ আমাদের দেশের সেবা করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ৷ আমরা আপনাকে ভালোবাসি এবং মিস করি৷''

Facebok Logo

ফেসবুক লোগো

‘‘

অধিকাংশ ভক্তই থুলেন কিংবা নিউটনের মতো উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেও সমালোচনাও কম নেই৷ আপনি ছিলেন অবিশ্বাস্য রকমের একজন অযোগ্য প্রেসিডেন্ট', ব্রেন্ট বেন্ডারের এমন খারাপ মন্তব্যও পড়তে হলো সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডাব্লিউ বুশকে৷ আবার রিচ ব্রডস্কি'র মন্তব্য, ‘‘দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করার জন্য, জর্জ, আপনাকে ধন্যবাদ৷''

২০০৯ সালের জানুয়ারি মাসে হোয়াইট হাউস ছেড়ে যাওয়ার পর বুশের এটিই প্রথম ফেসবুকে হাজির হওয়ার ঘটনা৷ প্রথম পোস্ট, ‘সক্রিয় রয়েছেন প্রেসিডেন্ট বুশ৷' দ্বিতীয় পোস্টটি এরকম, ‘তিনি ঘুরে এসেছেন ২০ টি রাজ্য এবং ৮ টি দেশ৷ বক্তৃতা দিয়েছেন ৬৫ টিরও বেশি৷ খুলেছেন জর্জ ডাব্লিউ বুশ প্রেসিডেন্সিয়াল সেন্টার৷ বুশ ইন্সটিটিউটের মাধ্যমে যোগ দিয়েছেন ৪ টি নীতি নির্ধারণী সম্মেলনে৷ শেষ করেছেন প্রথম স্মৃতিচারণমূলক লেখা ‘ডিসিশন পয়েন্টস' এর প্রথম খসড়া৷ (সাবেক) প্রেসিডেন্ট (বিল) ক্লিন্টনের সাথে যৌথভাবে প্রতিষ্ঠা করেছেন ‘ক্লিন্টন বুশ হাইতি তহবিল'৷'

Twitter Logo

টুইটার লোগো

তৃতীয় পোস্টেই স্থান পেয়েছেন স্ত্রী লরা বুশ৷ এই সাবেক ফার্স্ট লেডির লেখা আত্মজীবনী ‘স্পোকেন ফ্রম দ্য হার্ট' এর প্রশংসা করা হয়েছে এই পোস্টে৷ উল্লেখ করা হয়েছে যে, টানা তৃতীয় সপ্তাহেও নিউইয়র্ক টাইমস'এর বেস্টসেলারর তালিকায় শীর্ষে স্থান পেয়েছে এটি৷ এতোসব কথা বিশ্বাস না হলে এখনই ঘুরে আসতে পারেন facebook.com/georgewbush – এই ঠিকানা থেকে৷ আর লরা বুশের পেজ রয়েছে আরো আগে থেকেই৷ তাঁর ভক্ত সাড়ে ষোল হাজারের কিছু বেশি৷

জর্জ ডাব্লিউ বুশের মুখপাত্র ডেভিড শের্জার বার্তা সংস্থা এএফপি'কে বলেন, ‘‘সাবেক প্রেসিডেন্ট কী করছেন, তা জনগণকে জানানোর জন্য একটি আদর্শ মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুকে তাঁর একটি ফ্যান পেজ৷'' অবশ্য ইতিমধ্যে টুইটারে যারা জর্জ ডাব্লিউ বুশকে খুঁজে পেয়েছেন, তাঁদের জন্য সত্য কথাটি হলো, সেটি তাঁর দপ্তর থেকে খোলা নয়৷ আর এখনও টুইট করার কোন ইচ্ছা বুশের নেই বলে জানিয়ে দিলেন শের্জার৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন