অবশেষে গাড়ি চালানোর অনুমতি পাচ্ছেন সৌদি নারীরা | বিশ্ব | DW | 27.09.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

নারীর অধিকার

অবশেষে গাড়ি চালানোর অনুমতি পাচ্ছেন সৌদি নারীরা

প্রথমবারের মতো গাড়ি চালানোর অনুমতি পাচ্ছেন সৌদি আরবের নারীরা৷ বাদশাহ সালমান মঙ্গলবার এই আদেশ জারি করেছেন বলে জানিয়েছে সেদেশের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম৷ আদেশ কার্যকর হলে আগামী গ্রীষ্ম থেকে নারীরা গাড়ি চালাতে পারবেন৷

সৌদি আরব বিশ্বের একমাত্র দেশ, যেখানে এখনো নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি নেই৷ গত কয়েক দশক ধরে গাড়ি চালানোয় নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আন্দোলন করে যাচ্ছেন নারীরা৷ এ পর্যন্ত অনেক নারীকে গাড়ি চালানোর অপরাধে গ্রেফতার বা হয়রানির শিকার হতে হয়েছে৷

১৯৯০ সালে রাজধানী রিয়াদের রাস্তায় প্রথম এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন ৫০ জন নারী৷ তখন গ্রেফতার করার পাশাপাশি তাঁদের পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করে চাকুরিচ্যুতও করা হয়েছিল৷ এরপর ২০১১ সালে গাড়ি চালানোর অপরাধে এক নারীকে ১০ বার বেত্রাঘাত করার নির্দেশ দেয় আদালত৷ তবে প্রয়াত বাদশাহ আব্দুল্লাহ পরে সেই শাস্তি মওকুফ করে দেন৷

সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, নারীদের গাড়ি চালানোর বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোকে ৩০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন তৈরি করতে বলা হয়েছে৷ আদেশটি ২০১৮ সালের জুন থেকে কার্যকর হবে৷ বাদশাহ'র এই আদেশ অনুযায়ী, পুরুষের পাশাপাশি নারীদেরও গাড়ি চালানোর লাইসেন্স দেওয়া হবে, এক্ষেত্রে কোনো বৈষম্য থাকবে না বলেও জানানো হয়েছে৷

এদিকে, নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতিসংক্রান্ত আদেশকে ‘ঐতিহাসিক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত প্রিন্স খালেদ বিন সালমান৷ তিনি বলেছেন, ‘‘সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷’’

প্রিন্স খালেদ বিন সালমান আরো বলেন, ‘‘গাড়ি চালানোর লাইসেন্স পাওয়ার জন্য নারীদের তাঁদের পুরুষ অভিভাবকদের অনুমতি নিতে হবে না৷ নারীরা তাঁদের ইচ্ছানুযায়ী যে কোনো জায়গায় গাড়ি চালাতে পারবেন৷’’ সৌদি সরকারের এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র৷ জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসও এই উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন৷

গত বছরের নভেম্বরে সৌদি আরবের যুবরাজ আলওয়ালিদ বিন তালাল নারীদের গাড়ি চালানোর উপর নিষেধাজ্ঞা অবিলম্বে তুলে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন৷

এপিবি/এসিবি (এপি, এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন