অনার কিলিংয়ের শিকার এক ফিলিস্তিনি তরুণী | বিশ্ব | DW | 03.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ফিলিস্তিন

অনার কিলিংয়ের শিকার এক ফিলিস্তিনি তরুণী

একজন পুরুষের সঙ্গে তোলা ছবি ইন্সটাগ্রামে প্রকাশ করায় ফিলিস্তিনি এক তরুণীর পরিবার ক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন৷ পরে তাদের সহিংসতার শিকার হয়ে ঐ তরুণীর মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ৷

ইসরা ঘ্রায়েব নামে ২১ বছর বয়সি ঐ তরুণী গতমাসের ২২ তারিখ মারা যান৷ ছবিতে থাকা পুরুষটি সম্প্রতি ইসরাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন বলে জানা যায়৷

ইন্সটাগ্রামে ছবি প্রকাশ করায় ইসরার পরিবার তাঁর ভাইকে ইসরাকে শাস্তি দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল৷

ভাই তাঁকে মারতে থাকলে এক পর্যায়ে ইসরা শাস্তি থেকে বাঁচতে গিয়ে তিন তলার বাসার ব্যালকনি থেকে নীচে পড়ে যান৷ এতে তাঁর মেরুদণ্ড ভেঙে যায় বলে গণমাধ্যমের খবর প্রকাশিত হয়৷

হাসপাতালে থাকা অবস্থায়ও ইসরা একের পর এক পোস্ট দিয়ে যান৷ প্রথমে আহত অবস্থার ছবি পোস্ট করে ইসরা লিখেছিলেন, ‘‘আমি শক্ত আছি এবং আমার বাঁচার ইচ্ছা আছে৷ যদি এই ইচ্ছাশক্তি না থাকতো তাহলে আমি গতকালই মরে যেতাম৷''

এরপর আরেক পোস্ট ইসরা লিখেছিলেন, ‘‘আমাকে শক্ত থাকার পরামর্শ দিয়ে মেসেজ পাঠাবেন না৷ আমি শক্ত আছি৷ আমাকে যারা মেরেছেন আল্লাহ তাদের বিচার করবেন৷''

এসব পোস্ট প্রকাশিত হওয়ার পর ইসরার ভাই আরও কয়েকজন পুরুষ আত্মীয়কে নিয়ে হাসপাতালে গিয়ে ইসরাকে আবারও মারধর করেন৷

ইসরার পরিবার দাবি করছে, তারা ইসরার মৃত্যুর জন্য দায়ী নন৷ ইসরা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলে দাবি করছেন তারা৷

ফিলিস্তিনের পুলিশ এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি৷

প্রতিক্রিয়া

অনার কিলিং নিয়ে চলচ্চিত্র তৈরি করছেন ফিলিস্তিনের তথ্যচিত্র নির্মাতা ইমতিয়াজ আল-মাঘরাবি৷ তিনি বলেন, ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ সাম্প্রতিক সময়ে অনার কিলিং সংক্রান্ত আইনকানুন আধুনিক করেছে৷ তবে সেসব আইনের কার্যকারিতা সীমিত৷ তিনি বলেন, ‘‘প্রথা, ঐতিহ্য আর ধর্ম দিয়ে ফিলিস্তিনি সমাজ প্রভাবিত হয়৷ সেখানে আইনের চেয়ে এসবের মূল্য বেশি৷'' এছাড়া সম্মান রক্ষার্থে অপরাধ করা ব্যক্তিরা অনেক সময় অল্প শাস্তি পেয়ে পার পেয়ে যান৷

রামাল্লাহ সেন্টার ফর হিউম্যান রাইটস স্টাডিজের সমাজবিজ্ঞানী আয়াদ বারঘুতি মনে করছেন, ফিলিস্তিনি সমাজের কারণে অনার কিলিংয়ের ঘটনা ঘটতেই থাকবে৷

এদিকে ইসরার মৃত্যুতে বার্লিনে একদল ফিলিস্তিনি বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন৷

কেয়ার্স্টেন ক্নিপ, দিনা এলবাসনালি/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন