অকারণে অস্ত্র তাক করার খেসারত! | বিশ্ব | DW | 31.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভাইরাল ভিডিও

অকারণে অস্ত্র তাক করার খেসারত!

অনিচ্ছাকৃত কোনো ঘটনার জন্য যদি কেউ পিস্তল উঁচিয়ে জবাবদিহিতা চাইতে আসে, তখন সেই ব্যক্তির কাণ্ডজ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক৷ এমনই এক ঘটনা ঘটল অ্যামেরিকার মিসিসিপিতে৷

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

গত রবিবারের ঘটনা৷ বিকালবেলা স্থানীয় একটি ক্যাম্পগ্রাউন্ডে বেড়াতে যান আর্মি ন্যাশনাল গার্ডের সার্জেন্ট ফ্রাঙ্কলিন রিচার্ডসন ও তাঁর স্ত্রী জেসিকা রিচার্ডসন৷

কৃষ্ণাঙ্গ এ দম্পতিকে ক্যাম্পগ্রাউন্ডে প্রবেশ করতে দেখে দৌড়ে আসেন গ্রাউন্ডটির শ্বেতাঙ্গ নারী ম্যানেজার৷ এসেই তিনি পকেট থেকে পিস্তল বের করে কৃষ্ণাঙ্গ দম্পতির কাছে জানতে চান, ‘‘তাঁরা এখানে কেন ঢুকেছেন, এখানে ঢুকতে তো অনুমতি লাগে৷’’

এ কথা বলেই পিস্তল তাক করে তাঁদেরকে সেখান থেকে বেরিয়ে যেতে বলেন তিনি৷ কৃষ্ণাঙ্গ এ দম্পতি উত্তরে জানান, তাঁরা জানতেন না যে, এখানে আসার আগে বুকিং দিতে হয়৷

এ ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে প্রকাশ করেছেন জেসিকা৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘হাঁটাহাঁটি করার জন্য গ্রাউন্ডটিতে প্রবেশ করেছিলাম আমরা৷ আর তখনি ছুটে এলেন এই ম্যানেজার৷ চিৎকার করে আমাদের দিকে বন্দুক উঁচিয়ে এগিয়ে এলেন তিনি৷ যদিও আমরা পরে জানতে পেরেছি, এখানে প্রবেশের জন্য কোনো অনুমতির প্রয়োজন নেই৷’’

সিবিএস নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের জন্য ম্যানেজারকে চাকরিচ্যুত করেছে কর্তৃপক্ষ৷

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে ভিডিওটি৷ গত রবিবার ফেসবুকে প্রকাশিত এ ভিডিও এখন পর্যন্ত ১০ লাখ বার দেখা হয়েছে৷

ফেসবুক পোস্টে মন্তব্যের ঘরে ক্যাম্প ম্যানেজারের এমন আচরণকে বর্ণবাদী হিসেবে বর্ণনা করেছেন অনেকে৷ একজন লিখেছেন, ‘‘আপনি যদি শ্বেতাঙ্গ হতেন, তাহলে আপনার সঙ্গে এমন আচরণ করতো না৷’’

আরআর/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন