1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

৯/১১ বিলে ওবামার ভেটো অগ্রাহ্য করল মার্কিন কংগ্রেস

সেনেট ও হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো, নাইন-ইলেভেন আক্রমণের যারা শিকার হয়েছেন, তাদের পরিবারবর্গ সৌদি আরবের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে পারবেন৷ ওবামা বিলটির বিরুদ্ধে ভেটো প্রয়োগ করেছিলেন৷

কংগ্রেসের উভয় কক্ষেই দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতায় ওবামার ভেটো প্রত্যাখ্যান করা হল৷ সেনেটের ১০০ জন সদস্যের মধ্যে ৯৭ জন ভেটো প্রত্যাখ্যানের সপক্ষে ভোট দিয়েছেন৷ বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন একমাত্র হ্যারি রিড, যিনি সেনেটে সংখ্যালঘিষ্ট ডেমোক্র্যাটদের নেতা৷ ভোট দেওয়া থেকে বিরত থেকেছেন হিলারি ক্লিন্টনের ভাইস প্রেসিডেন্সিয়াল রানিং মেট টিম কেইন ও ক্লিন্টনের প্রাক্তন ডেমোক্র্যাটিক প্রতিযোগী বার্নি স্যান্ডার্স৷

হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ ৩৪৮ বনাম ৭৭ ভোটে প্রত্যাখ্যাত হয়েছে ওবামার ভেটো৷ তাঁর আট বছরের কর্মকালে ওবামা আরো ১১ বার ভেটো প্রয়োগ করেছেন, কিন্তু তার সব ক’টি বজায় থেকেছে৷ তথাকথিত জাস্টা বা জাস্টিস এগেন্সট স্পন্সরস অফ টেররিজম অ্যাক্ট নাইন-ইলেভেনের পঞ্চদশ বার্ষিকীর ঠিক আগে কংগ্রেসে গৃহীত হয়৷ ওবামা ভেটো প্রয়োগ করা সত্ত্বেও এবার কংগ্রেসে তাঁর সবচেয়ে কট্টর সমর্থক ডেমোক্র্যাটরা পর্যন্ত রিপাবলিকানদের সঙ্গে যোগ দিয়ে বিলটি পাশ করিয়েছেন৷

সেনেটের একজন প্রথম সারির ডেমোক্র্যাট সদস্য চার্লস শুমার একটি বিবৃতিতে বলেছেন, ‘‘প্রেসিডেন্টের ভেটো অগ্রাহ্য করাটাকে আমরা সহজভাবে নিই না৷ কিন্তু এক্ষেত্রে নাইন-ইলেভেনের শিকারদের পরিবারবর্গের ন্যায়বিচার পাওয়ার প্রচেষ্টা গুরুত্বপূর্ণ ছিল, তার ফলে যদি কিছু কূটনৈতিক অস্বস্তি হয়, তা সত্ত্বেও৷’’ শুমার নিউ ইয়র্কের সেনেটর, যেখানে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের উপর আক্রমণ ঘটে৷

ওবামা কংগ্রেসেরএই সিদ্ধান্তকে ‘‘ভ্রম’’ বলে অভিহিত করেছেন৷ যুদ্ধ ফেরৎ সৈনিকদের একটি টাউনহল ফোরামে তিনি বলেন, নির্বাচনের আগে কেন যে গণপ্রতিনিধিরা নাইন-ইলেভেন পরিবারবর্গের বিরুদ্ধে ভোট দিতে চান না, তা তিনি বোঝেন৷ ভোটের আগেই হোয়াইট হাউস থেকে সাবধান করে দেওয়া হয়েছিল যে, এই আইনের ফলে বিদেশের আদালতে মার্কিন সরকারি কর্মকর্তা, কূটনীতিক ও সৈন্যদের বিরুদ্ধে অনুরূপ মামলা দায়ের করা হতে পারে৷

বস্তুত কংগ্রেসের এই ভোট সংস্কার করবই, বললেন আত্মবিশ্বাসী ওবামাওবামা এবং মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্টের ঘনিষ্ঠ মিত্র সৌদি আরবের বিরুদ্ধে গেছে৷ ভোটের আগে সৌদি তরফে লবিইং-এর কোনো অভাব ছিল না৷ এমনকি সৌদি কর্মকর্তারা  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যাবতীয় সৌদি পরিসম্পদ বিক্রি করে দেবার হুমকি দিয়েছিলেন বলে শোনা গেছে৷ জেনারেল ইলেকট্রিক বা ডাও কেমিক্যালের মতো বড় মার্কিন কোম্পানি, মার্কিন সামরিক বাহিনী, সিআইএ গোয়েন্দা সংস্থা, সকলেই বিলটির বিরোধী ছিল৷

দৃশ্যত সৌদি আরবে মানবাধিকার পরিস্থিতি, সালাফি মতাদর্শকে উৎসাহ প্রদান ও আন্তর্জাতিক উদ্বাস্তু সংকটে নিষ্ক্রিয়তার দরুণ মার্কিন কংগ্রেস সৌদি আরব সম্পর্কে কিছুটা অধৈর্য্য হয়ে পড়েছিল৷

এসি/ডিজি (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন