1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

৯০ লাখ মানুষ কাজের জন্য দেশের বাইরে গেছেন

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত ৯০ লাখ মানুষ কাজের জন্য দেশের বাইরে গেছেন৷ এদিকে, সাগর পাড়ি দিয়ে অবৈধ উপায়ে বিদেশ যাওয়া বাড়ছে৷

আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উপলক্ষ্যে গত বুধবার ঢাকায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা কিছুটা কেটে ওঠায় এখন বছরে ছয় থেকে সাত লাখ কর্মীর বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে৷ এ জন্য প্রতিবছর প্রায় সাড়ে চার থেকে সাড়ে পাঁচ লাখ কর্মীর প্রশিক্ষণ দরকার বলে মনে করছেন তিনি৷

স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত ৯০ লাখ মানুষ কাজের জন্য দেশের বাইরে গেছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিদেশে বাংলাদেশিদের কর্মসংস্থান বাড়ায় রেমিটেন্স প্রবাহেও তার প্রভাব পড়েছে৷

বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রবাসী-আয়ের দিক থেকে বিশ্বে বাংলাদেশ এখন সপ্তম

এদিকে, প্রবাসীদের পাঠানো অর্থ দেশের উন্নয়নে কাজে লাগলেও কোনো সরকারই আজ পর্যন্ত প্রবাসীদের প্রাপ্য সম্মান দেয়নি বলে অভিযোগ মাঈনুল ইসলাম নাসিমের৷ ফেসবুকে তিনি নিজেকে ‘ওয়ার্ল্ডওয়াইড বাংলাদেশ কমিউনিটির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী হিসেবে উল্লেখ করেছেন৷ এক ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘‘প্রবাসীদের স্বার্থরক্ষা তথা কল্যাণ নিশ্চিত করতে ‘প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রনালয়' নামে একটি ‘আইওয়াশ মিনিস্ট্রি' থাকলেও তা এক কোটি প্রবাসী বাংলাদেশির তেমন কোনো কল্যাণ সাধন করতে পারেনি কোনো কালেই৷....প্রতিবেশী ভারত সরকার তাদের ‘সোনার সন্তান' অনাবাসী ভারতীয়দেরকে ‘এনআরআই' হিসেবে শুধু সম্মানই করছে না, একইসাথে দিচ্ছে বহুবিধ ‘প্রায়োরিটি'৷

অথচ অনাবাসী বাংলাদেশিরা কি বিএনপি কি আওয়ামী লীগ সব সরকারের কাছ থেকেই ‘দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক'-এর ‘ট্রিটমেন্ট' বৈ অন্য কিছু পায়নি৷ ঢাকার বিমানবন্দরে প্রবাসীদের হয়রানি বন্ধে সরকার নির্বিকার৷ বিশ্বব্যাপী চিহ্নিত বাংলাদেশ দূতাবাসগুলোতে নিরীহ প্রবাসীদের হয়রানি থেমে নেই৷''

সাগড় পাড়ি দিয়ে বিদেশ

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর-এর সম্প্রতি প্রকাশিত এক প্রতিবেদন বলছে, উন্নত জীবনের আশায় অন্য দেশে যেতে নৌকা করে বঙ্গোপসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে চলতি বছর ৫৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে৷

এই সময় প্রায় ৫৪ হাজার মানুষ এভাবে বঙ্গোপসাগর পাড়ি দেয়৷ বেশিরভাগ যাত্রা বাংলাদেশ কিংবা মিয়ানমার থেকে শুরু হয় বলে জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, বৈধভাবে বিদেশে যাওয়ার সুযোগ বাড়াতে পারলে হয়ত মানুষ অবৈধ পথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাগর পাড়ি দেয়ার চিন্তা নাও করতে পারে৷ অভিবাসন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক তাসনীম সিদ্দিকী সম্প্রতি এক দৈনিক পত্রিকাকে বলেন, ‘‘বৈধভাবে বিদেশে যাওয়ার পথ সংকুচিত হয়ে গেলে মানুষ অবৈধভাবে যাওয়ার ঝুঁকি নেয়৷ কারণ, এ দেশের অনেক মানুষই মনে করে, বিদেশে গেলেই ভাগ্য ফিরবে৷ আমার মনে হয়, বৈধভাবে বিদেশে যাওয়ার সুযোগ বাড়াতে পারলে এ সমস্যা থাকবে না৷''

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়