1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

৫০০ কেজি ওজনের নারী স্লিম হতে এলেন ভারতে

অনেকের মতে তিনিই বিশ্বের সব চেয়ে স্থূলকায়া নারী৷ তাঁর ওজন প্রায় ৫০০ কেজি৷ মিশর থেকে তিনি এসেছেন মুম্বাই-এর একটি হাসপাতালে৷ রোগা হতে চান তিনি৷ তাঁর এই অস্বাভাবিক স্থূলত্ব নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা৷

গত শনিবার মিশরের আলেকজান্দ্রিয়া থেকে মুম্বাইয়ের হাসপাতালে এসে ভর্তি হয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে মোটা নারী হিসেবে পরিচিত ইমান আহমেদ৷ তাঁর এই অস্বাভাবিক স্থূলতা একটা জটিল রোগবিশেষ, যা নিরাময় করার সুযোগ-সুবিধা কম জায়গাতেই আছে৷ চিকিৎসার খরচও প্রচুর৷ আলেকজান্দ্রিয়া থেকে মুম্বাইতে আনতে ঘাম ছুটে গেছে হাসপাতাল কর্মীদের৷

গত ১৩ বছর ধরে তিনি বিছানায়৷ নড়াচড়া করার ক্ষমতাটুকুও নেই৷ ইমানকে প্রথমে আনা হয় একটি বিশেষ মালবাহী বিমানে৷ বিমান থেকে ক্রেনে করে নামিয়ে তোলা হয় এক বিশেষ ট্রাকে৷ তারপর নিয়ে যাওয়া হয় মুম্বাই-এর চার্নি রোডের সাইফি হাসপতালে৷ হাসপাতালের দোতলায় ইমানের জন্য তৈরি বিশেষ খাটে শোয়ানোও হয় ক্রেনে করে৷ ইমানের চিকিৎসক ড. মুফাজজল লাকড়াওয়ালা৷ মুম্বাইয়ের হাসপাতাল পর্যন্ত আনতেই খরচ হয় প্রায় ৮০ লাখ টাকা, জানান ড. লাকড়াওয়ালা৷

তিনি জানান, ৩৫ বছর বয়সি ইমানের চিকিৎসার জন্য মাসখানেক ধরে চলবে বিভিন্ন পরীক্ষানিরীক্ষা৷ করা হবে নানা ধরণের টেস্ট৷ দেখা হবে লেপটিনের মতো জেনেটিক ত্র্রুটি আছে কিনা৷ ইমানের  জেনেটিক টেস্টের রিপোর্ট দেখে পরবর্তী চিকিত্সার পরিকল্পনা করা হবে৷ দেহের জলীয় পদার্থ নিষ্কাশনেও সময় লাগবে চার সপ্তাহের মতো৷ চিকিৎসাসূচির মধ্যে আছে দুটো অপারেশন, ডায়েট প্ল্যান, ফিজিওথেরাপি ইত্যাদি৷

বিমান থেকে ক্রেনে করে নামিয়ে তোলা হয় এক বিশেষ ট্রাকে

বিমান থেকে ক্রেনে করে নামিয়ে তোলা হয় এক বিশেষ ট্রাকে

প্রথম বারিয়াট্রিক অপারেশনের পর ইমানের ওজন ৮০ থেকে ১০০ কেজির মতো কমবে৷ এই অপারেশনের নাম গ্যাস্ট্রোক্টমি৷ পাকস্থলির আকার এখন যা আছে তার থেকে ১৫ শতাংশ ছোট করা হবে৷ ছোট করার পর দেহ সঙ্কুচিত হবে এবং ইমান সাধারণ বিমানের বিজনেস ক্লাসের সিটে বসেই তাঁর আলেকজান্দ্রিয়ার বাড়িতে ফিরে যেতে পারবেন বলে জানালেন বারিয়াট্রিক সার্জেন লাকড়েওয়ালা৷ তারপর আবার ইমানকে আসতে হবে দ্বিতীয় অপারেশনের জন্য যার নাম সাডি৷ আন্ত্রিকের লুপগুলি কেটে ছোট করা হবে৷ এখন ইমানকে দেয়া হচ্ছে কম ক্যালোরি, হাই প্রোটিন এবং তরল খাবার৷ পুরো চিকিৎসা প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে লাগবে মোটামুটি চার বছর৷ পাঁচ বছর আগে ইমানের ওজন ছিল ৩৩০ কেজির মতো৷ এখন তা বেড়ে হয়েছে দ্বিগুণের মতো, জানালেন ইমানের সঙ্গে আসা তাঁর বোন সায়মা৷

ইমানকে বারিয়াট্রিক অপারেশনের জন্য মুম্বাইয়ে আনার কোনো বিশেষ কারণ আছে অবশ্যই৷ ভারতে ‘মেডিক্যাল ট্যুরিজম' শিল্প দিনকে দিন প্রসারিত হচ্ছে৷ তার প্রধান কারণ ভারতে কম খরচে আন্তর্জাতিক মানের চিকিৎসার সুযোগ সুবিধা আছে৷ তাই দিল্লি, মুম্বাই, কলকাতা ও চেন্নাইয়ের মতো বড় বড় শহরগুলিতে সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল আছে, যেখানে আধুনিক চিকিৎসা প্রযুক্তির সঙ্গে আছে দক্ষ ডাক্তার৷ অথচ খরচ উন্নত দেশগুলি চেয়ে তুলনামূলকভাবে অনেক কম৷ তার উপর ভাষা সমস্যা নেই৷ ইংরেজি ভারতের মহানগরীগুলিতে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম৷ তাই মেডিক্যাল ট্যুরিজম মানচিত্রে ভারতের আকর্ষণ বাড়ছে৷

কনফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজের শ্বেতপত্র অনুসারে আগামী ২০২০ সালে ভারতে মেডিক্যাল ট্যুরিজমের বাজার ৮০০ কোটি ডলারে গিয়ে পৌঁছাবে৷ ভারতে যত ‘মেডিক্যাল ট্যুরিস্ট' আসেন, তার ৪০ শতাংশ বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তানের৷ বেশি রোগী আসেন বাইপাস অপারেশনের মতো হার্টের অসুখে, বোন-ম্যারো প্রতিস্থাপন, চোখ অপারেশন এবং হিপ ট্রান্সপ্লান্টের জন্য৷ অপারেশন পরবর্তী আরোগ্যকালীন সময়টা রোগীরা হয় হাসপাতালে কিংবা হাসপাতালের কাছাকাছি কোনো ভাড়া বাড়িতে থাকতে পারেন৷ সেই রকম ব্যবস্থা আছে৷ আছে টেলিমেডিসিন চিকিৎসা সুবিধা৷ পাশাপাশি ভারত সরকারের মেডিক্যাল ট্যুরিস্টদের ভিসা নিয়ম অনেক উদার৷ মোটকথা, বিশ্বের সবথেকে স্থূলাঙ্গী মহিলা কতটা তন্বী হতে পারবেন, তা সময়কালেই বোঝা যাবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন