1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

২০১৩ সালে বায়ার্নের পাঁচ শিরোপা

একটা-দুটো নয়, ২০১৩ সালে বায়ার্ন মিউনিখ শিরোপা জিতেছে পাঁচটি৷ শেষটা জিতলো শনিবার৷ মরক্কোর রাজা কাসাব্লাঙ্কাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ক্লাব বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ফুটবলের এই জার্মান জায়ান্ট৷

এর আগে ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নস লিগ, জার্মান লিগ বুন্ডেসলিগা, জার্মান কাপ ও ইউরোপীয় সুপার কাপ জেতে বায়ার্ন৷

দারুণ এই সাফল্যে স্বভাবতই বেশ খুশি বায়ার্নের কোচ ও খেলোয়াড়রা৷ কোচ পেপ গুয়ার্দিওয়ালা বলেছেন, ‘‘এক বছরে পাঁচ শিরোপা বায়ার্নের এক অসাধারণ সফলতা৷ আমি আমার খেলোয়াড় ও সমর্থকদের নিয়ে গর্বিত৷''

আগামীতেও এই সাফল্য ধরে রাখার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি৷ ‘‘দুই সপ্তাহের শীতকালীন ছুটি শেষে আমরা যখন ফিরবো তখন আমাদের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ থাকবে,'' খেলোয়াড়দের এই কথা মনে করিয়ে দিয়ে গুয়ার্দিওয়ালা ভবিষ্যতের জন্য তাঁদের প্রস্তুত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন৷

সে আশা তিনি করতেই পারেন, কেননা বায়ার্নের এই সাফল্যের বেশিরভাগই এসেছে সাবেক কোচ ইয়ুপ হাইঙ্কেসের সময়৷ তাই গুয়ার্দিওয়ালা চাইবেন তাঁর আমলেও যেন বায়ার্ন সাফল্যটা ধরে রাখতে পারে৷

সে পথে যে বায়ার্ন ঠিকভাবেই এগোচ্ছে তা বলা যায়৷ বুন্ডেসলিগার এখন বেশ ভালো অবস্থানেই আছে তারা৷ পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা বায়ার লেভারকুজেনের চেয়ে বায়ার্ন এগিয়ে আছে সাত পয়েন্টের ব্যবধানে৷ আর গতবারের রানার্স আপ ডর্টমুন্ডের সঙ্গে ব্যবধান ১২ পয়েন্টের৷ দুই দলের চেয়েই বায়ার্ন কিন্তু একটি ম্যাচ কম খেলেছে!

সব মিলিয়ে বুন্ডেসলিগায় টানা ৪১ ম্যাচে অপরাজিত আছে বায়ার্ন৷ এই মৌসুমে এখন পর্যন্ত খেলা ১৬ ম্যাচের মধ্যে ১৪টিতে জয় পেয়েছে তারা৷ ড্র হয়েছে বাকি দুটো৷

শীতের ছুটির পর জানুয়ারির ২৪ তারিখে বোরুসিয়া ম্যুনশেনগ্লাডবাখের সঙ্গে ম্যাচ দিয়ে খেলায় ফিরবে বায়ার্ন৷ এরপর ফেব্রুয়ারি মাসে রয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউট পর্বের ম্যাচ, আর্সেনালের বিপক্ষে৷

জেডএইচ / এসিবি (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়