1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

২০১১ সালের মধ্যে ভারত-ইইউ মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে একটি বিস্তৃত মুক্তি বাণিজ্য চুক্তির দ্বারপ্রান্তে ভারত৷ আশা করা হচ্ছে, আগামী বছরের শুরুতেই এই চুক্তি স্বাক্ষর করা হবে৷ ব্রাসেলসে শুক্রবার দুই পক্ষের শীর্ষ বৈঠক থেকে বেরিয়ে এসেছে এই তথ্য৷

default

ব্রাসেলসে ইউরোপীয় কমিশের প্রধান বারোসো ও ইইউ কাউন্সিলের প্রসেডিন্ট রম্পুই’র সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং

মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি

ভারতের সঙ্গে ইইউ অঞ্চলের দেশসমুহের বাণিজ্য প্রবাহের বর্তমান পরিমাণ বেশ কয়েক বিলিয়ন ইউরো৷ দুই অঞ্চলের মধ্যে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি হলে এই বাণিজ্য প্রবাহ আরো বাড়ার সম্ভাবনা দেখছেন অর্থনীতিবিদরা৷ ব্রাসেলসে শুক্রবার ইইউ এবং ভারতের শীর্ষ বৈঠকে তাই সবচেয়ে গুরুত্ব পেয়েছে এই সম্ভাব্য চুক্তি৷ ইতিমধ্যে চুক্তির বিষয়াদি অনেকটাই সম্পন্ন করেছেন দুই পক্ষ৷ ইউরোপীয় কমিশনের প্রধান জোসে মানুয়েল বারোসো এই প্রসঙ্গে বলেন, আগামী মাস কিংবা আগামী বছরের শুরুর দিকে আমরা এই এই বিষয়ে আলাপ-আলোচনা শেষ করতে চাই৷ ২০১১ সালের মধ্যেই আমরা এই চুক্তি সম্পন্ন করবো৷

ইইউ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট হারমান ফন রম্পুইও এই মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির বিষয়ে আশাবাদ প্রকাশ করেছেন৷ তিনি বলেন, এটি হবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সম্পাদিত সবচেয়ে বড় চুক্তি এবং এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা৷

ভারতের মন্তব্য

ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং মনে করছেন এই চুক্তি দুই পক্ষের জন্য প্রচুর সম্ভাবনা বয়ে আনবে৷ তিনি বলেন, ভারত-ইইউ মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে সমঝোতায় পৌঁছাতে আমাদের দু'পক্ষই অনেক চেষ্টা করেছে৷ আমরা এই জটিল প্রক্রিয়ার শেষ ধাপে রয়েছি৷ ২০১১ সালের শুরুতেই এই চুক্তি সম্পন্ন করতে আমরা আমাদের কর্মকর্তাদের দিকনির্দেশনা দিয়েছি৷

অবশ্য কোন কোন মহল প্রশ্ন তুলেছে যে, এই চুক্তির ফলে ভারতের ক্ষুদে কৃষকরা বা ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন৷ মনমোহন সেই আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছেন৷

পাকিস্তানি ইস্যুতে দ্বিমত

বন্যাবিধ্বস্ত পাকিস্তানের অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে নির্দিষ্ট সময়সীমার জন্য পাকিস্তান থেকে রপ্তানিকৃত কিছু পণ্যের ওপর থেকে শুল্ক প্রত্যাহারের পক্ষে ইউরোপীয় ইউনিয়ন৷ কিন্তু অন্য যেসব দেশ একইধরণের পণ্য ইউরোপে রপ্তানি করে, সেসব দেশ বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা বা ডব্লিউটিওতে এই বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছে৷ এদের মধ্যে ভারতও রয়েছে৷ ব্রাসেলসে শুক্রবারের আলোচনায় এই বিষয়টি উঠে আসলেও, দু'পক্ষ কোন সমঝোতায় পৌঁছাতে পারেনি৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়