1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

২০১১ সালের বাংলাদেশ যেন হয় শান্তি ও সমৃদ্ধির

ইংরেজি নববর্ষকে বাংলাদেশের মানুষ বরণ করেছে শান্তি ও সমৃদ্ধির প্রত্যাশায়৷ তাদের আশা অতীতের সব হিংসা আর সংঘাত ভুলে ২০১১সালের বাংলাদেশ যেন হয় নতুন সম্ভাবনার আর স্বপ্ন পুরণের৷

থার্টিফার্স্ট রাত ১২টায় ঢাকায় ইংরেজি নববর্ষ বরণে মেতে ওঠে নগরবাসী৷ হোটেল-ক্লাবের পার্টি আর ঘরোয়া আয়োজনের বাইরে অনেকেই রাস্তায় বেরিয়ে পরেন মধ্যরাতে৷ নিরাপত্তার কড়াকড়ির মধ্যেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাসহ গুলশান বনানীর অভিজাত এলাকার সড়কগুলো হয়ে ওঠে লোকে লোকারণ্য৷ তারা স্বাগত জানান নতুন বছরকে৷ শেষ রাত পর্যন্ত বড় কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি৷ ঢাকায় বসবাসরত বিদেশীরাও উপভোগ করেন বাঙালির ইংরেজি বর্ষবরণকে৷

রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশবাসীকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন৷ তাঁরা এক সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ায় দেশবাসীকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন৷

২০১১সালে দেশের তরুণরা দেখতে চান নতুন এক বাংলাদেশকে৷ সেই স্বপ্নে নেই দলমতের কোন পার্থক্য৷ বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নাসির উদ্দিন অসীম চান তাদের যেন হরতাল করতে না হয়৷ তিনিও জানেন আধুনিক বাংলাদেশ গড়তে হলে প্রয়োজন তথ্য প্রযুক্তি৷

আর শাসক দল আওয়ামী লীগের তরুণ সংসদ সদস্য অপু উকিল চান সরকার বিদায়ি বছরে গ্যাস, বিদ্যুৎ, কৃষি, শিক্ষাসহ দেশের উন্নয়নে যে উদ্যোগ নিয়েছে তার সুফল যেন মানুষ পায় নতুন বছরে৷

সংসদকে নতুন বছরে কার্যকর দেখতে চান তাঁরা৷ দেখতে চান সহনশীল রাজনৈতিক পরিবেশ৷ বাংলাদেশ উইমেন চেম্বারের সভাপতি সেলিমা আহমেদ মনে করেন এজন্য সরকারকেই উদ্যোগ নিতে হবে আগে৷

নববর্ষের এই প্রত্যাশা যেন বাস্তবে রূপ নেয়৷ তারুণ্যের এই উচ্ছাস যেন থাকে বছর জুড়ে৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট বিষয়