1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

১৩ই আগস্টের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দেয়ার নির্দেশ

সাভারে রানা প্লাজা ধসের ঘটনার পর দায়ের করা মামলায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ বা সিআইডি যথাসময়ে তদন্ত রিপোর্ট দিতে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশে৷ তাই আগামী ১৩ই আগস্টের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দেয়ার সময়সীমা বেধে দিয়েছে আদালত৷

গত বছরের ২৪শে এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে মোট ১,১৩৮ জন নিহত হন৷ এই ঘটনায় মোট দু'টি মামলা হয়৷ তার মধ্যে একটি হত্যা মামলা এবং আপরটি ভবন নির্মাণে ত্রুটির কারণে ইমারত আইনের মামলা৷ বলা বাহুল্য, এই দু'টি মামলারই তদন্ত করছে সিআইডি৷

সোমবার আদালতে এই দু'টি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার কথা ছিল তাদের৷ কিন্তু সিআইডি-র তদন্ত কর্মকর্তা বিজয় কৃষ্ণ কর উল্লেখ্য প্রতিবেদন দিতে ব্যর্থ হন৷ তিনি আদালতে হাজির হয়ে তদন্তের জন্য আরো সময় চাইলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াসিম শেখ তদন্তের জন্য সময়সীমা বেধে দেন৷ আগামী ১৩ই আগস্টের মধ্যে তিনি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ বা সিআইডি-কে তদন্ত রিপোর্ট আদালতে জমা দিতে বলেন৷

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বিজয় কৃষ্ণ কর অবশ্য দাবি করেন যে, তাঁরা মামলা দু'টির তদন্ত প্রায় শেষ করে এনেছেন৷ এখন শেষ মুহূর্তের কাজ চলছে৷ অর্থাৎ মূলত তদন্তে পাওয়া সাক্ষ্য প্রমাণ, তথ্য-উপাত্ত যাচাই বাছাই করে দেখছেন৷

রানা প্লাজা ধসের ঘটনায় দায়ের করা হত্যা মামলাটি সঠিক ধারায় করা হয়নি৷ এক্ষেত্রে দণ্ডবিধির ৩০৪ ধারায় দুর্ঘটনাজনিত হত্যা মামলা দায়ের করা হয়৷ তদন্ত কর্মকর্তা ডয়চে ভেলেকে বলেন যে, তাঁরা তদন্তে সরাসরি হত্যাকাণ্ডের তথ্য-প্রমাণ পেয়েছেন৷ এ কারণে মামলার অভিযোগ-পত্র হবে সরাসরি হত্যার অভিযোগে দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায়, যার সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড৷ অন্যদিকে ইমারত আইনের মামলার তদন্তও একই সঙ্গে শেষ হবে বলে জানান তিনি৷

তদন্ত কর্মকর্তা জানান, রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানাসহ ২০ জন আসামিকে এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ এই ২০ জনসহ ২৪ থেকে ২৫ জনের বিরুদ্ধে তাঁরা অভিযোগ-পত্র দাখিলের প্রস্তুতি নিচ্ছেন৷ এই মামলায় স্প্যানিশ নাগরিক ডেভিড মেয়রকেও আসামি করা হয়েছে৷ তিনি রানা প্লাজার একটি পোশাক কারখানার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করতেন৷ তবে রানা প্লাজা ধসের পর থেকেই তিনি পলাতক৷ এছাড়া রানার বাবাও পলাতক আছেন বলে জানান তদন্ত কর্মকর্তা৷

তদন্ত কর্মকর্তাদের কথায়, দু'টি মামলাতেই রানার বিরেুদ্ধে অভিযোগ-পত্র দাখিল হবে৷ দু'ক্ষেত্রেই আসামিরা প্রায় একই৷ তাঁদের আশা, আদালতের বেধে দেয়া সময়, অর্থাৎ ১৩ই আগস্টের মধ্যে দু'টি মামলারই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে পারবেন তাঁরা৷

এদিকে গত সপ্তাহে রানা প্লাজার ভবন নিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন বা দুদক-এর স্বতঃপ্রণোদিত মামলায় তদন্ত শেষে সোহেল রানাকে অব্যাহতি দিয়েছে দুদক৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়