1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

হেরে গেলো বাংলাদেশ

ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বহীন খেলা ও বাজে রানিং বিটুইন দ্য উইকেটের মাশুল দিলো বাংলাদেশ৷ উদ্বোধনী ম্যাচে ৯ রানে হেরেই গেল জিম্বাবোয়ের কাছে৷

default

বাংলাদেশ-জিম্বাবোয়ে ম্যাচ (ফাইল চিত্র)

৪ জন ব্যাটসম্যান প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন রান আউট হয়ে৷ ৪৯ ওভার ব্যাট করে সবকটি উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ সংগ্রহ করে ২০০ রান৷ বাংলাদেশ ম্যাচ হারে ৯ রানে৷ এর আগে জিম্বাবোয়েকে ২০৯ রানে আটকে দিয়েছিল বাংলাদেশের বোলাররা৷

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও ভালো রান করা অধিনায়ক সাকিব আল হাসান এ ম্যাচে ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছিলেন৷ তার ১৬তম ওয়ানডে ফিফটি এসেছে এবার৷ পুরো ম্যাচে এটাই একমাত্র ফিফটি৷ এরই ফাঁকে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে তুলে নিয়েছেন এক হাজার রান৷ আজ তাঁর রান ছিল ৬৩৷

জয়ের জন্য ২১০ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমে আত্মবিশ্বাসী সূচনা করে বাংলাদেশ৷ আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে ১০ দশমিক ৫ ওভারের ৪৪ রানের মাথায় উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ২৩ রান করে পুফোর বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে গেলে প্রথম উইকেট হারায় তারা৷ জুনায়েদ সিদ্দিকির সাথে ৩২ রানের জুটি গড়ে সেট হয়ে যাওয়া অন্য ওপেনার ইমরুল কায়েস রে প্রাইসের বলে উইকেট ছুড়ে আসার আগে করেন ৪১ রান৷ এরপরই একে একে ফিরে আসেন জুনায়েদ ১১ রানে, আশরাফুল ৬ রানে, মুশফিক ১ রানে ও শুভ ১১ রানে৷ ফলে ৩১.৫ ওভারে ১১৫ রানে ৬ উইকেট হারায় স্বাগতিকরা৷ জুনায়েদ ভুল বোঝাবুঝির কারণে রান আউটের শিকার হন৷ আশরাফুলের কামব্যাক ইনিংস মোটেও ভালো হয়নি৷

এশিয়াডের ফাইনালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে যেভাবে আউট হয়েছিলেন সেভাবেই উৎসেয়ার বলে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি৷ মুশফিক রে প্রাইসের বলে বোল্ড ও শুভ ভুল বোঝাবুঝির কারণে রান আউটের শিকার হন৷ সব মিলিয়ে ৩ জন ব্যাটসম্যান রান আউটের শিকার হন এটা মোটেও কাজের কথা নয়৷

এর আগে জিম্বাবোয়েকে ২০৯ রানে আটকে দেয় বাংলাদেশের স্পিনাররা৷ ৪ উইকেট নিয়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন আব্দুর রাজ্জাক৷ রিয়াদ, শুভ, সাকিব দিয়েছেন যোগ্য সহায়তা৷ স্পিনারদের মারাত্মক বোলিংয়ে ৪৯ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২০৯ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবোয়ে৷ চিগুম্বুরা সকালে টস হারার পর বলেছিলেন ২৪০/২৫০ রানই হবে ফাইটিং স্কোর৷ ওই পর্যন্ত যেতে পারেননি স্বাগতিক স্পিনারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের কারণে৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়