1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

হেরেও আনন্দে শরিক শন হোয়াইট

স্নো-বোর্ডিংয়ের সুপারস্টার শন হোয়াইট৷ সোচিতে জিতলে অলিম্পিকে সোনা জয়ের হ্যাটট্রিক হয়ে যেত তাঁর৷ কিন্তু এবারের শীতকালীন অলিম্পিকে হয়েছেন চতুর্থ৷ অন্য কেউ হলে হতাশায় ভেঙে পড়তেন, কিন্তু হোয়াইট তারপরও আনন্দিত!

শীতকালীন অলিম্পিকের আগের দুই আসরে সোনা জিতেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের শন হোয়াইট৷ এবারও তাঁর সাফল্য সম্পর্কে কারো মনে বিন্দুমাত্র সংশয় ছিল না৷ কিন্তু সবাইকে অবাক করে আসরের সেরা অঘটনের জন্ম দিয়েছেন ইউরি পোদলাদচিকভ, শন হোয়াইটের হ্যাটট্রিকের স্বপ্ন চুরমার করে জিতেছেন সোনা৷ রুশ বংশোদ্ভূত সুইস এই ক্রীড়াবিদের আনন্দে তাই কেউ বিশেষ আগ্রহ দেখাচ্ছেন না৷ সবার কৌতূহল হোয়াইট কী বললেন সেদিকে৷

প্রথম নয়, দ্বিতীয় কিংবা তৃতীয়ও নয়, স্নো-বোর্ডিংয়ের সুপারস্টার হয়েছেন চতুর্থ৷ এমন ব্যর্থতার পর কী আর বলতে পারেন! সবার ধারণা, ইভেন্ট শেষে পোদলাদচিকভের সঙ্গে কথা বলার সময় হোয়াইট নিশ্চয়ই মনের সমস্ত ক্ষোভ আর হতাশা উগরে দিয়েছিলেন৷

ক্যামেরায় পরিষ্কার ধরা পড়েছে দু'জনের কথা বলার দৃশ্য৷ শন হোয়াইট অবশ্য ক্ষোভ বা হতাশা নয়, কথা বলেছেন মনে আনন্দ নিয়ে৷ সংবাদ সম্মেলনে খোদ পোদলাদচিকভই জানিয়েছেন সে কথা৷

স্নো-বোর্ডিং অনুরাগীদের কাছে ‘আইপড' নামে পরিচিত পোদলাদচিকভ জানিয়েছেন, চতুর্থ হয়ে স্বপ্নের আপাত যবনিকা দেখার পর খোলামনে তাঁকে অভিনন্দনই শুধু জানাননি, আরো জানতে চেয়েছিলেন ‘‘পার্টি দিচ্ছ কবে?'' অর্থাৎ হার মেনে নিয়ে বিজয়ীর সঙ্গে আনন্দ উদযাপনের জন্যও প্রস্তুত শন হোয়াইট৷ খেলোয়াড়সুলভ মনোভাবের এর চেয়ে ভালো দৃষ্টান্ত খুব কমই আছে ক্রীড়াঙ্গনে৷

অলিম্পিকের মতো আসরে এত বড় সাফল্য হাতছাড়া হওয়ার পরও পোদলাচিকভের প্রতি শন হোয়াইটের উদারতা দেখানোর কারণটা নাকি পুরোনো৷ দু'জনের মধ্যে অনেক দিন ধরেই প্রতিদ্বন্দ্বিতার পাশাপাশি চলছে বন্ধুত্ব, একে অন্যকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সুন্দর, সুস্থ প্রতিযোগিতা৷ পোদলাদচিকভের সাফল্যে খুশি হয়ে শন হোয়াইটও তাই বলেছেন, ‘‘ইউরিকে আমি বছর দুয়েক ধরে চিনি৷ ও মানুষ হিসেবেও দারুণ৷ এমন জয় ওর প্রাপ্য৷ সাফল্যের জন্য অনেক দিন ধরেই ও মনপ্রাণ দিয়ে চেষ্টা করছে৷ এমন একজনকে বিজয়স্তম্ভে দেখা সত্যিই আনন্দের৷''

এসিবি/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন