1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘হিমু' ভাবলে নিজেকে মহাপুরুষের মতো মনে হয়

‘‘হিমু একটা অসাধারণ চরিত্র৷ আমি নিজে যখন হিমু হওয়ার চেষ্টা করি, তখন নিজেকে মহাপুরুষের মতো মনে হয়৷'' ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় এই মন্তব্য একজন পাঠকের৷ প্রয়াত সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে অনেকই এ রকম মন্তব্য করেছেন৷

আজ বাংলাদেশের জনপ্রিয় প্রয়াত সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন৷ তাই অনেকেই আজ আমাদের ফেসবুক পাতায় তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন৷ তাঁর লেখা কোন বই বা কোন চরিত্রটি মনে দাগ কেটেছে – সে সম্পর্কেও মন্তব্য করেছেন কেউ কেউ৷ তবে বেশিরভাগ বন্ধুরই পছন্দ ‘হিমু' চরিত্রটি৷

হিমু আর মিসির আলি – এই দুটো চরিত্রই ভালো লাগে দুলাল হাওয়াদারের৷ হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে ডয়চে ভেলের প্রশ্ন ছিল, তাঁর বইয়ের কোন চরিত্রটি মনে বেশি দাগ কেটেছে? উত্তরে হুমায়ূন আহমেদের দারুণ ভক্ত তানজিলুর রহমান লিখেছেন, ‘‘এরচেয়ে কোনটা দাগ কাটে নাই, সেটা বলাই সহজ৷''

আতিক আহসানের কাছে ‘‘হিমু ও মিসির আলির চরিত্র সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে এবং মাঝে মাঝে ঐ চরিত্রে নিজেকে আবিষ্কার করার ইচ্ছে জাগে লিখেছেন৷'' শরীফ হোসেনের কাছে হিমুকে ভালো লাগার কারণ হিসেবে জানিয়েছেন যে, হিমু সত্য সন্ধানকারী তাই৷

বর্ষণ আহমেদের কাছে হিমুর পাশাপাশি শুভ্রর চরিত্রটিও ভালো লাগে৷

হুমায়ূন আহমেদ যাতে জান্নাতবাসী হন – সেজন্য দোয়া করছেন পাঠক মেহেরুন নাহার শান্তা৷ অন্যদিকে নাসিমা নাজনীনের কাছে বাকের ভাইই সবচেয়ে পছন্দের চরিত্র৷ আর ইশতিয়াকের কাছে নবনী৷

ডয়চে ভেলের ফেসবুক বন্ধু নিলয় জানিয়েছেন যে তিনি হুমায়ূন আহমেদের ভীষণ ভক্ত এবং তাঁর লেখা প্রায় সব বই-ই তিনি পড়েছেন৷ শুধু তাই নয়, তাঁর গানেরও ভক্ত তিনি৷

হিমু, মিসির আলি, রুপা, শুভ্র – এই সবগুলো চরিত্রই কিন্তু দাগ কেটেছে আমাদের বন্ধু রাসেল আহমেদের মনে৷

আর পদ্মার মন জুড়ে আছে হুমায়ূন আহমেদের জনপ্রিয় নাটক ‘আজ রবিবার' ৷ তানহা হোসেন, লিপি সাহা, তন্ময় খান এবং পিয়াসের প্রিয় চরিত্রও হিমু৷

‘‘হিমু একটা অসাধারণ চরিত্র৷ আমি নিজে যখন হিমু হওয়ার চেষ্টা করি তখন নিজেকে মহাপুরুষের মতো মনে হয়৷'' ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় এই মন্তব্য বন্ধু বিকাশ চক্রবর্তীর৷ তবে কেউ কেউ যে প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদের সমালোচনা করেনি, তা কিন্তু নয়!

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন