1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

হিটলারের পথ অনুসরণ করছে আইএস?

গতমাসের শেষে পাকিস্তানের উপজাতিক এলাকা থেকে একটি ৩২ পাতার দলিল অ্যামেরিকান মিডিয়া ইনস্টিটিউট-এর হাতে আসে৷ দলিলে আগামী পাঁচ বছরে ইসলামিক স্টেট বা আইএস-এর স্ট্র্যাটেজি বর্ণনা করা হয়েছে৷

দৃশ্যত এক অনামা পাকিস্তানি নাগরিক – যার তালেবানের সঙ্গে অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ আছে – এএমআই-এর হাতে দলিলটি তুলে দেন৷ এএমআই তাদের এই সূত্রের পরিচয় গোপন রেখেছে, তবে ইউএসএ টুডে পত্রিকাকে তা জানিয়েছে৷ ইতিপূর্বে দলিলটি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে উর্দু থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করা হয় এবং মার্কিন গুপ্তচর বিভাগের তিনজন সাবেক ও কর্মরত কর্মকর্তাকে দেখানো হয়৷ কর্মকর্তারা দলিলটি প্রামাণ্য বলে ঘোষণা করেছেন৷

ইউএসএ টুডে-র প্রতিবেদনের প্রায় দু'সপ্তাহ পরে বিষয়টি একাধিক ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড ও পত্রিকায় স্থান পেয়েছে, যেমন ডেইলি মেল, ডেইলি এক্সপ্রেস অথবা ডেইলি মিরর-এর অনলাইন সংস্করণে৷ বিশেষত যখন ব্রিটিশ পুলিশ ও গোয়েন্দা বিভাগ আগামী শনিবার রানি এলিজাবেথের উপর আক্রমণের সম্ভাবনা নিয়ে ব্যতিব্যস্ত, তখন পাঁচ বছরের মধ্যে দক্ষিণ এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা ও দক্ষিণ-পশ্চিম ইউরোপের একাংশে আইএস-এর আধিপত্য জাহির করার পরিকল্পনা গুরুত্ব পাবে বৈকি – অন্তত খবর হিসেবে৷

যদিও কিছু কিছু বিশ্লেষকের মতে দলিলটি আইএস-এর ওপরমহলের না হয়ে, কোনো আইএস অনুপ্রাণিত সমর্থকের মস্তিষ্কপ্রসূত হতে পারে৷ যেমন পশ্চিমি বিশ্ব কিংবা ইউরোপকে যুদ্ধক্ষেত্র হিসেবে ঘোষণা না করে, ভারতকে ভবিষ্যৎ রণাঙ্গণ বলে ঘোষণা করাটা অপ্রত্যাশিত – যেমন অপ্রত্যাশিত উত্তর আফ্রিকা তথা আরব বিশ্ব জুড়ে সশস্ত্র অভ্যুত্থানের আহ্বান৷

৩২ পাতার দলিলটিকে নাৎসি নেতা আডল্ফ হিটলারের ‘‘মাইন কাম্ফ''-এর সঙ্গে তুলনা করাটাও সম্ভবত রগরগে সাংবাদিকতার খাতিরে, যদিও ছ'টি পর্যায়ে বিশ্ব দখলের পরিকল্পনা ‘‘ইসলামিক স্টেট খিলাফতের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস''-এও বিধৃত করা হয়েছে৷ ষষ্ঠ এবং চূড়ান্ত পর্যায়ের লড়াই শুরু হবে ২০১৭ সালে, চলবে ২০২০ সাল অবধি – এই হলো ভবিষ্যদ্বাণী৷

ভবিষ্যতের পরিকল্পনা যাই হোক, ইসলামিক স্টেট জঙ্গিরা বর্তমানেও নজর কাড়ছে তাদের নৃশংসতা ও নির্মমতা দিয়ে৷ আইএস দু'হাজার বছরের পুরনো রোমক শহর পালমিরা দখল করে গত মে মাসে৷ এবার তারা সিরিয়ার প্রখ্যাততম প্রত্নতত্ত্ববিদ ৮১ বছর বয়সি খালেদ আল-আসাদের শিরশ্ছেদ করেছে – এবং পরে তাঁর দেহ একটি রোমক খিলানের সঙ্গে বেঁধে রেখেছে৷ সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সানা ও ব্রিটেন ভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস-এর খবর অনুযায়ী, আল-আসাদকে মঙ্গলবার পালমিরার মিউজিয়ামের সামনে হত্যা করা হয়৷

এসি/ডিজি (এপি, রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন