1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

হিচ-হাইকিং করে ইউরোপ ঘোরা, আনন্দই সেখানে প্রধান

অ্যাডভেঞ্চারের অভিজ্ঞতা ও ভ্রমণের স্বাধীনতা এনে দেয় ‘হিচ হাইকিং' বা নিখরচায় কারো সফরসঙ্গী হওয়া৷ বুড়ো আঙুল তুলে অপরিচিত মানুষের গাড়ি থামিয়ে অজানার পথে পাড়ি দেওয়াটাই হলো ‘হিচ-হাইকিং'-এর মূল আকর্ষণ৷

অ্যাডভেঞ্চার ও কৌতূহল

প্রতিবছর শয়ে শয়ে হিচ-হাইকার এইভাবে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেন৷ মাটি ও মানুষের সঙ্গে পরিচিত হন৷

ডর্টমুন্ডের ২৪ বছর বয়সি লেনা মুকারমানের কণ্ঠে কৌতূহল ও আনন্দের সুর৷ এই প্রথম হিচ-হাইকিং করছে সে৷ ভ্যুরৎসবুর্গ থেকে ম্যাসেডোনিয়ায় যাবে৷

১০০-এরও বেশি তরুণ-তরুণীর মধ্যে লেনাও একজন, যারা এই গ্রীষ্মে হিচহাইকিং করে বিভিন্ন দেশে যাওয়ার তোরজোর করছে৷ প্লেন ও বাস টিকেট ছাড়া শুধু বুড়ো আঙুলই হলো অপরিচিত মানুষের গাড়িতে ওঠার টিকেট৷

২০০৮ সাল থেকে প্রতিবছর শয়ে শয়ে তরুণ-তরুণী সংগঠিত হিচ-হাইকিং করে দুই সপ্তাহ ধরে ইউরোপ ভ্রমণ করে৷ এই ধরনের ভ্রমণে সস্তায় এক জায়াগা থেকে আরেক জায়গায় যাওয়াটাই আসল কথা নয়৷ ‘‘যে হিচ-হাইকিং করে, সে অ্যাডভেঞ্চার খোঁজে৷'' জানায় এই কর্মসূচির অন্যতম আয়োজক ২৫ বছর বয়সি মার্কো ভেবার৷ হিচ-হাইকাররা নতুন নতুন ও আকর্ষণীয় মানুষের সঙ্গে পরিচিত হতে চায়৷ মিলিয়নিয়ার থেকে একেবারে সাধারণ গৃহিনী৷ তাঁরা জানেন না কার গাড়িতে উঠতে যাচ্ছে, বলে লেনা

Tramprennen 2014 von Würzburg zum Ohrid-See in Mazedonien Archivbild

‘‘যে হিচ-হাইকিং করে, সে অ্যাডভেঞ্চার খোঁজে৷'' জানায় এই কর্মসূচির অন্যতম আয়োজক

ঝুঁকি ও আনন্দের দোলাচলে

অবশ্য বিপদটা এখানেই৷ মা-বাবা ও পরিচিতজনদের কাছ থেকে রোমহর্ষক বিভিন্ন ঘটনার কথা শুনেছে লেনা৷ ডাকাতি, ধর্ষণ, অপহরণ ইত্যাদির কথা শোনান তাঁরা৷ কিন্তু কৌতূহল ও আনন্দকে স্তিমিত হতে দিতে চায় না এই ছাত্রী৷ ১৬ আগস্ট থেকে শুরু হবে তার যাত্রা ‘‘আমি তো একা হিচ-হাইকিং করবো না৷ নিরাপত্তা রক্ষার জন্য দুই জন একসঙ্গে যাত্রা করে৷ ''

‘‘দুঃখের বিষয় কোনো মেয়ে যদি রাস্তার ধারে একা দাঁড়িয়ে থাকে, সমাজে তাকে সহজলভ্য মনে করা হয়৷'' এই মন্তব্য মার্কো ভেবারের৷ ছেলে-মেয়ে একসঙ্গে দাঁড়িয়ে থাকলে এই চিন্তা করে না মানুষ৷ অংশগ্রহণকারীদের নিরাপত্তাও বৃদ্ধি পায়৷

এছাড়া নিরাপত্তার জন্য আরো কিছু পরামর্শ আছে বিশেষজ্ঞদের৷ যেমন মার্কো ভেবার কোনো গাড়িতে উঠলে তার নম্বর এসএমএস করে বন্ধুবান্ধবদের জানায়৷ এতে করে নিরাপত্তা বৃদ্ধি পায়৷ এছাড়া গাড়িচালককে দেখে যদি ভালো অনুভূতি না হয়, তাহলেও তার গাড়িতে ওঠা উচিত নয়৷ এ জন্য যতক্ষণ প্রয়োজন ততক্ষণ দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করা উচিত৷

বাঁচে অর্থ বাড়ে অভিজ্ঞতা

জার্মানির ফ্রাংকফুর্ট শহরের ‘ইন্সটিটিউট ফর সোস্যাল-ইকোলজিকাল রিসার্চ'-এর ‘লাইফ স্টাইল ও মোবিলিটি' বিষয়ক গবেষক কনরাড গ্যোটৎস নিজে হিচ-হাইকিং করে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছেন৷ ‘‘হিচ-হাইকিং করে ভ্রমণ করলে পর্যটনের খরচ বাঁচে৷ তরুণরা রকমারি অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারে৷'' বলেন গ্যোটৎস৷

হিচ-হাইকিং বাতাসের উল্টোদিকে পাল তোলার মতোই৷ আজকাল তো মা-বাবারা ছেলে-মেয়েদের সম্পূর্ণ নিরাপত্তা দিতে ব্যতিব্যস্ত৷ যা কখনও সম্ভব নয়৷

মার্কো ভেবার ও লেনা মুকারমান হিচ-হাইকিংয়ের মাধ্যমে এ সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণাটা বদলাতে চায়৷ ২৫ বছর বয়সি ছাত্র মার্কো মাঝে মাঝে অপ্রত্যাশিত ভালো সফরসঙ্গী বা চালক পেয়েছেন৷ অন্যদিকে গাড়ির চালকরাও পরে বিস্মিত হয়ে লক্ষ্য করেছেন কত ভালো ভালো তরুণ হিচ-হাইকিং করে৷

গড়ে ওঠে অন্তরঙ্গতা

গাড়িতে চালক ও হিচ-হাইকারদের মধ্যে দ্রুত অন্তরঙ্গতা গড়ে ওঠে৷ ব্যক্তিগত কথাবার্তা হয়৷ গত বছর পোল্যান্ডে হিচ-হাইকিং করে যাওয়ার আগে তাঁকে অনেক রকম ভয়ভীতি দেখানো হয়েছিল৷ ‘‘অবশ্যই যে কোনো কিছু ঘটে যেতে পারে৷ কিন্তু আমাদের কারো চুরি ডাকাতির অভিজ্ঞতা হয়নি, যা অনেকের কাছ থেকে শোনা গিয়েছিল৷'' বলে মার্কো৷ বিশেষ করে পূর্ব ইউরোপের মানুষরা অতিথিবৎসল ও আন্তরিক৷ রোমানিয়াকে তো হিচ-হাইকারদের স্বর্গই বলা যায়৷

হিচ-হাইকাররা তাদের যাত্রা পথে নানা দেশ ও সংস্কৃতি সম্পর্কে একটা ধারণা পায়৷ ‘‘গাড়িচালকরা নিজেদের দেশ দেখাতে পারলে খুশি হন৷ নিজেদের প্রিয় জায়গাগুলি দেখানোর জন্য গন্তব্যস্থলে সোজা না গিয়ে ঘোরাপথে যেতেও দ্বিধা করেন না অনেকে৷'' এই অভিজ্ঞতা হয়েছে মার্কোর৷ এই ধরনের অভিজ্ঞতা ‘প্যাকেজট্রিপ'-এ হয় না৷

জনপ্রিয় হবে

কনরাড গ্যোটৎস মনে করেন, হিচ-হাইকিং ভবিষ্যতে খুব জনপ্রিয় হবে৷ তাঁর কথায়, ‘‘অর্থনৈতিক কবলে পড়া তরুণদের জন্য ইউরোপের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার একটা ভালো সুযোগ এটা৷''

এই লাইফস্টাইল গবেষকের ধারণা, ভবিষ্যতে হিচ-হাইকিং আরো সংগঠিত ও নিরাপদও হবে৷ এখনই হিচ-হাইকারদের একটি ওয়েবসাইট রয়েছে৷ যাতে সংশ্লিষ্ট যাবতীয় তথ্য যেমন হিচ-হাইকিংয়ের জন্য ভালো ভালো জায়গা, কলা-কৌশল ইত্যাদি সম্পর্কে জানা যায়৷

বাণিজ্যকিকরণের পক্ষপাতী নয়

তবে বেশি বাণিজ্যকিকরণের পক্ষপাতী নয় হিচ-হাইকাররা৷ কেননা তাহলে অ্যাডভেঞ্চারের উত্তেজনা ও আনন্দটাই নষ্ট হয়ে যাবে৷

লেনার হাতে এখনও কিছুটা সময় আছে৷ কিন্তু বেশ আগে থেকেই এক ধরনের উত্তেজনা অনুভব করছে এই তরুণী৷ এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো অভিজ্ঞতা না থাকলেও সময় থাকলে হিচ-হাইকিং করাই ভ্রমণের সর্বোত্তম উপায় বলে মনে করে লেনা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন