1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

হাসিনা-খালেদা ফোনালাপ, গণভবনে সংলাপের আহ্বান

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার মধ্যে শনিবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে টেলিফোনে কথা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে সোমবার গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন৷ এছাড়া হরতাল প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলীয় নেত্রীকে সোমবার নৈশভোজের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন৷ তবে খালেদা জিয়া জবাবে কি বলেছেন তা জানা যায়নি৷

সংলাপের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টেলিফোন করবেন বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে৷ এই খবরে গত দুদিন রাজনৈতিক মহল এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে ছিল ব্যাপক আশা আর কৌতূহল৷ অবশেষে শনিবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী টেলিফোনে চেষ্টা করেও পাননি খালেদা জিয়াকে৷ প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ সংবাদ মাধ্যমকে জানান, প্রধানমন্ত্রী শনিবার বেলা পৌনে ২টা থেকে সোয়া ২টা পর্যন্ত ৩০ মিনিট খালেদা জিয়াকে লাল টেলিফোনে যোগাযোগ করেও পাননি৷ আর প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারি মাহবুবুল হক শাকিল জানান, বিরোধী দলীয় নেত্রীর মোবাইল ফোন ও কার্যালয়ের ফোনেও চেষ্টা করা হয়েছে৷

তবে খালেদা জিয়ার প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন শনিবার দুপুরে খালেদা জিয়া কোনো ফোন কল পাননি৷

এদিকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন সরকার এখন দ্বৈত নীতি অবলম্বন করছে৷ একদিকে আলোচনার কথা বলছে আর অন্যদিকে বিরোধী দলের নেতা কর্মীদের ওপর দমন-পীড়ন চালাচ্ছে৷ সরকার এর মাধ্যমে জনগণকে বিভ্রান্ত করে একদলীয় নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যেতে চাইছে৷ তিনি বলেন সর্বাত্মক হরতাল এবং আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে৷ সরকার যদি এরমধ্যে আলোচনা শুরু করে তাহলে হরতাল প্রত্যাহার করা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সময় হলে দেখা যাবে৷

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ক্ষমতাসীন ১৪ দল এক বৈঠক শেষে বিরোধী দলকে হরতাল প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছে৷ ১৪ দলের পক্ষে আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ বলেন, হরতাল প্রত্যাহার করলে আলোচনা হবে৷ কোনো চাপের মুখে বা আল্টিমেটাম দিয়ে আলোচনা হতে পারেনা বলে জানান তিনি৷