1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

হারিয়ে যাওয়া সন্তান খুঁজতে ওয়েবসাইট

চীনের এক তরুণ লুয়ো গাঙ৷ ১৯৯০ সালে সেচুয়ান প্রদেশ থেকে তাকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হয় ফুজিয়ানে৷ তখন তার বয়স ছিল পাঁচ৷ ২৩ বছর পর গাঙ আবার ফিরে পেয়েছে তার পরিবারকে৷ এতে সহায়তা করেছে একটি ওয়েবসাইট৷

চীনা ভাষার এই ওয়েবসাইটের নামের ইংরেজি করলে দাঁড়ায় ‘বেবি কাম হোম৷' ব্যাংকের সাবেক এক কেরানি ৫১ বছরের ঝাং বাওইয়ান এই ওয়েবসাইটের প্রতিষ্ঠাতা৷ সঙ্গে রয়েছে তার স্বামী, যিনি কম্পিউটার বিষয়ের একজন শিক্ষক৷

যেভাবে কাজ হয়

লুয়ো গাঙ ঐ ওয়েবসাইটে তাঁর ছোটবেলার কিছু স্মৃতি বর্ণনা করেছিল৷ এছাড়া নিজ এলাকা সম্পর্কে তার যতটুকু মনে ছিল সেটাও জানিয়েছিল৷ গাঙ এর দেয়া এসব তথ্যের ভিত্তিতে ওয়েবসাইটের স্বেচ্ছাসেবকরা পুরনো মানচিত্র ঘেঁটে, আশেপাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে গাঙ এর বাবা মা'কে খুঁজে বের করে৷

এভাবে হারিয়ে যাওয়া কেউ নিজেই নিজের ছবি দিয়ে বাবা'মাকে খুঁজে পেতে পারে৷ অথবা বাবা মা'ও তাদের হারিয়ে যাওয়া সন্তানের ছবি ওয়েবসাইটে আপলোড করতে পারে৷ সঙ্গে দিতে পারে বিভিন্ন তথ্য৷

Peng Wenle

এখন পর্যন্ত প্রায় ছয়শো পরিবার তাদের সন্তানে খুঁজে পেয়েছে

এরপর এসব বাবা-মা'ই একে অপরের সঙ্গে তথ্য আদান-প্রদানের মাধ্যমে সন্তান খুঁজে পেতে পারে৷

সফলতা

২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এই ওয়েবসাইট প্রায় ৬০০ পরিবারকে একত্র করতে সফল হয়েছে৷ পুরো চীনে এই ওয়েবসাইটের হয়ে কাজ করছে প্রায় ২০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক৷ প্রতিষ্ঠাতা ঝাং বাওইয়ান বলেন, ১৯৯৯২ সালে একবার তার সন্তান কয়েক ঘণ্টার জন্য নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিল৷ সেই সময় তিনি উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন সন্তান হারানোর যন্ত্রণা৷ ঐ ঘটনাটা তাঁকে এই ওয়েবসাইট চালু করতে উৎসাহিত করে বলে জানিয়েছেন তিনি৷ যদিও এই কাজের জন্য তাঁকে চাকরি ছাড়তে হয়েছে৷ তবুও অনেক বাবা-মা'র মুখে হাসি ফোটাতে পেরে গর্বিত তিনি৷ ইদানিং সরকারও তাঁর ওয়েবসাইট থেকে তথ্য নিচ্ছে বলে জানান বাওইয়ান৷

প্রয়োজনীয়তা

এক সন্তান নীতির কারণে এবং বাবা'মার কাছে ছেলে সন্তান বেশি মূল্যবান হওয়ায় প্রতিবছর অনেক শিশু এক প্রদেশ থেকে আরেক প্রদেশে পাচার হয়ে যায়৷ এক হিসেবে সংখ্যাটা প্রতি বছর প্রায় ২০ হাজার বলে জানা গেছে৷

জেডএইচ / এসবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন