1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

নেদারল্যান্ডস

হাতে হাত মিলিয়ে সমকামীদের প্রতি সংহতি

দোসরা এপ্রিল ভোরবেলা নেদারল্যান্ডসে এক সমকামী যুগলের ওপর হামলার পর সে দেশের পুরুষরা হাতে হাত ধরে সমকামীদের প্রতি সংহতি জানিয়েছেন৷ এর আগে টুইটারে এই প্রতীকী প্রতিবাদের ডাক দেওয়া হয়৷

পূর্ব নেদারল্যান্ডসের আর্নহেম শহরে ঐ সমকামী যুগল একটি সেতুর ওপর দিয়ে হাত ধরাধরি করে যাওয়ার সময় একদল তরুণ তাদের গালিগালাজ করে৷ বচসা থেকে যে হাতাহাতি শুরু হয়, তাতে সমকামীদের দু'জনেই আহত হন ও তাদের একজনের সামনের কয়েকটি দাঁত ভেঙে যায়৷

এই ঘটনা জানাজানি হয়ে যাবার পর সুপরিচিত প্রকাশক ও সাংবাদিক বারবারা বারেন্ড টুইটারে আবেদন জানান, ‘‘সব হেটেরো এবং হোমো পুরুষেরা কি এ সপ্তাহে হাত ধরাধরি করে হাঁটতে পারেন...?''

এই টুইট থেকে একটি ভাইরাল হ্যাশট্যাগ সৃষ্টি হয় #আলেমানেনহান্ডইনহান্ড (অল-মেন-হ্যান্ড-ইন-হ্যান্ড), যার পর ডাচ উপ-প্রধানমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রী থেকে শুরু করে খেলাধুলার জগতের বিভিন্ন তারকা ও টেলিভিশনের ব্যক্তিত্বরা তাঁদের হাত ধরাধরি করে তোলা ছবি পোস্ট করতে শুরু করেন৷

বুধবার সন্ধ্যায় শত শত মানুষ হাতে হাত ধরে আমস্টারডামের পথে পথে ঘুরে রবিবারের ঘটনায় আক্রান্ত সমকামীদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেন৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় লন্ডন থেকে নিউ ইয়র্ক অবধি পুরুষেরা হাতে হাত ধরে তোলা ছবি পোস্ট করে তাঁদের সংহতি জানাচ্ছেন৷

৩৫ বছর বয়সি ইয়াস্পার ভের্নেস-সেভ্রাতান ও ৩১ বছর বয়সি রনি সেভ্রাতান-ভের্নেসকে যে পাঁচজন কিশোর আক্রমণ করে, তাদের মধ্যে দু'জনের বয়স ১৪ এবং বাকি তিনজনের বয়স ১৬ বলে জানাচ্ছে সংবাদ সংস্থা এএফপি৷ আক্রমণের পর তারা পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে৷ তাদের আদালতে পেশ করা হচ্ছে৷

নেদারল্যান্ডস হলো বিশ্বের প্রথম দেশ, যেখানে সমকামীদের বিবাহ বৈধ করা হয়৷ ২০০১ সালে সে দেশে সমকামীদের বিয়ে বৈধ করা হয়৷ কাজেই রবিবারের ঘটনায় নেদারল্যান্ডস বিশেষভাবে নাড়া খেয়েছে৷ এমনকি নিইমেগেন ফার্স্ট ডিভিশন ফুটবল ক্লাব তাদের টুইটার অ্যাকাউন্টে স্টেডিয়ামের সামনে টিমের ফুটবলারদের হাত ধরাধরি করে, ক্যামেরার দিকে পিছন ফিরে তোলা একটি ছবি পোস্ট করেছে৷ ছবির ক্যাপশন হলো, ‘‘এন.ই.সি. সমকামী-বিরোধী সহিংসতা বর্জন করে''৷

এসি/এসিবি (এপি, এএফপি)

প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার বক্তব্য জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন