1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

হাঙ্গেরির কারখানার বিষাক্ত বর্জ্য দানিয়ুব দূষছে

বুদাপেস্টের ১৬০ কিলোমিটার পশ্চিমে, আজকা’র সেই অ্যালুমিনিয়াম কারখানার দেয়াল ভেঙে যাওয়ার কারণে দুর্ঘটনাবশত যে বিষাক্ত বর্জ্য রাবা নদীতে মিশেছিল, জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালের দিকে তা দানিয়ুব পৌঁছেছে৷

default

বর্জ্যের প্লাবন

প্রথমে সেটি দানিয়ুবের এর শাখা নদী মোসোনির জলে মিশেছে৷ আর এর কারণে পুরো দানিয়ুবের জলই এখন এক ভয়াবহ দূষণের মুখে৷ উল্লেখ্য, হাঙ্গেরির অ্যালুমিনিয়াম কারখানার এই বিষাক্ত বর্জ্যের কারণে এর আগে ৪ ব্যক্তি প্রাণ হারিয়েছিলেন৷

গত সোমবার কারখানাটির বর্জ্য সংরক্ষণের যে বিশাল আধারটি ছিল, সেটির দেয়াল ভেঙে পড়লে আশেপাশের গ্রাম ভেসে গিয়ে শতাধিক মানুষ আহত এবং চার জন নিহত হন৷ মৃত চার জনের তিনজন বয়স্ক, এবং একজন শিশু৷ এছাড়াও আরো তিন ব্যক্তির কোন সন্ধান এখনো পর্যন্ত পাওয়া যায় নি বলেই জানা গেছে৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, তারা রীতিমতো হতবাকই হয়ে পড়েছিলেন কারখানার দেয়াল ভেঙে সৃষ্ট এই বর্জ্য-প্লাবনের তীব্রতা দেখে৷ তাদের একজন জানিয়েছেন, ‘‘হঠাৎ বাঁধভাঙা জোয়ারের তীব্রতায় গ্যারাজগুলো থেকে গাড়িগুলো যেন ছিটকে বেরিয়ে গেলো, দরজা, জানালা ভেঙে চুরে সব ভাসিয়ে নিয়ে গেলো এই বর্জ্যের প্লাবন৷''

Flash-Galerie Unfall in Aluminiumfabrik Ungarn

এই লাল কাদা ভয়াবহ বিষাক্ত

জানা গেছে, হাঙ্গেরির অ্যালুমিনিয়াম কারখানার এই বিষাক্ত লাল কাদা রাবা নদীতে প্রবাহিত হয়ে দানিয়ুবে মেশা শুরু করেছে স্থানীয় সময় সকাল ৬ টা ৩০ মিনিটের দিকে৷ বুদাপেস্টের ডিজাস্টার রিলিফ সার্ভিসের স্থানীয় প্রধান টিবর ডবসন জানিয়েছেন, ‘‘আজ সকালে এই বিষাক্ত বর্জ্য নদীবাহিত হয়ে দানিয়ুবে পৌঁছেছে৷ ইতোমধ্যেই এই বর্জ্য দানিয়ুবের একটি শাখা নদী মোসোনিকে দূষিত করেছে৷ মোসোনি থেকে দানিয়ুবের প্রধান অংশের দূরত্ব ৬ কিলোমিটার৷''

এদিকে জোসেফ টথ নামের এক মুখপাত্র সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এর আগে রাবা নদী এবং দানিয়ুবের পানির অ্যালক্যালাইনিটি পরীক্ষা করে তারা দেখেছেন, পানিতে স্বাভাবিক মাত্রার চাইতে তা একটু বেশিই রয়েছে৷ আর পিএইচ এর মাত্রাটি স্বাভাবিক আট মাত্রার চাইতে বেড়ে নয় এ উঠেছিল৷ বিশেষজ্ঞরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ এবং পানি দূষণের দিকে সার্বক্ষণিক নজর রাখছেন৷ আজ সকালের পর্যবেক্ষণের হিসেব, দানিয়ুবের পানিতে পিএইচ এর মাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯.৩ এ৷

উল্লেখ্য, এই বিষাক্ত লাল কাদা যা এতো দুর্ঘটনা আর আতংকের জন্ম দিয়েছে তা আসলে অ্যালুমিনিয়াম কারখানার বর্জ্য হিসেবেই আধারটিতে রাখা হতো৷ এটি ভয়াবহ ধরণের বিষাক্ত৷ কারণ এই বর্জ্যে আর্সেনিক, ক্রোমিয়াম, ক্যাডমিয়ামের মত মারাত্মক সব ক্ষতিকর উপাদান আর ভারী ধাতু রয়েছে৷ যা সার্বিকভাবে পরিবেশ দূষণ ঘটাতে পারে৷

প্রতিবেদন: হুমায়ূন রেজা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন