1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

হাইকোর্টে ঝুলে আছে তিন লাখের বেশি মামলা

বিএনপির ডাকে হরতাল চলাকালে সংঘর্ষ ও গ্রেপ্তারের খবরটি আজ সব পত্রিকায় গুরুত্ব পেয়েছে৷ এছাড়া শেয়ার বাজারে অস্থিরতার খবরটিও এসেছে পত্রিকাগুলোতে৷ তবে এসবের মধ্যে উচ্চ আদালতে দ্রুত মামলা সুরাহার ইতিবাচক খবরও চোখে পড়ার মত৷

default

হরতালে মারমুখী পুলিশ

বেশিরভাগ পত্রিকাতেই শীর্ষ কিংবা দ্বিতীয় শীর্ষ খবর হিসেবে জায়গা পেয়েছে গতকালের হরতালের খবর৷ পাশাপাশি হরতাল চলাকালে পিকেটারদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ছবিও দেখা যাচ্ছে৷ যুগান্তরের প্রধান শিরোনাম, হরতালে মারমুখী পুলিশ: বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ৷ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশের মারমুখী আচরণের কারণে পিকেটাররা রাস্তায় নামতে না পারলেও বিক্ষিপ্তভাবে বিভিন্ন জায়গায় কয়েকটি যানবাহনে আগুন জ্বালিয়ে দেয়৷ যেখানেই বিএনপি মিছিল বের করেছে পুলিশ সেখানে লাঠিপেটার পাশাপাশি জলকামান ব্যবহার করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে৷ পুলিশের হামলায় সারা দেশে প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মি আহত হয়েছে বলে যুগান্তরের প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে৷ তবে সংবাদ মাধ্যমগুলোর মতে মোটামুটি শান্তিপূর্ণভাবেই হরতাল পালিত হয়েছে৷

Unruhen der Textilarbeiter in Bangladesch

রাজধানীতে মারমুখী পুলিশ (ফাইল ছবি)

শেয়ার বাজার নিয়ে বিক্ষোভ

গতকালও শেয়ার বাজারের দরপতন অব্যাহত ছিল৷ এই খবরটিও সবগুলো সংবাদ মাধ্যমে এসেছে৷ এই নিয়ে ইত্তেফাকের শিরোনাম বিক্ষোভের আগুন শেয়ার বাজারে৷ এতে বলা হয়েছে, সোমবার ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের আশা ছিল হরতালে কিছুটাও যদি ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া যায়৷ কিন্তু বাজারের পতন দেখে ব্রোকারেজ হাউজ ছেড়ে তাদের রাস্তায় নেমে আসতে হয়৷ সপ্তাহের দ্বিতীয় লেনদেনেও বিপর্যস্ত বাজার তাদের হতাশায় ফেলে দেয়৷ এদিকে কালের কন্ঠ একটি খবরে জানিয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ে শেয়ার ছাড়তে না পারলে ২৬টি সরকারি সংস্থার প্রধানকে পদত্যাগ করতে হবে, অর্থমন্ত্রীর এই হুঁশিয়ারির পর তারা নড়েচড়ে বসেছেন৷ ইতিমধ্যে ২২টি সংস্থা শেয়ার ছাড়ার জন্য কাজ শুরু করেছে বলে খবরটিতে বলা হয়েছে৷

উচ্চ আদালতে মামলা নিষ্পত্তির গতি বাড়ছে

প্রথম আলো এবং ডেইলি স্টারে ছাপা হয়েছে উচ্চ আদালতে দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির খবর৷ দুটি পত্রিকাই তাদের মূল শিরোনাম করেছে এই খবরটিকে৷ বলা হচ্ছে, গত চার মাসে প্রায় ৫০ হাজার মামলা সুরাহা হয়েছে হাইকোর্ট বিভাগে যা অন্যান্য সময়ের চেয়ে অনেক বেশি৷ তবে হাইকোর্টে বিচারাধীন রয়েছে আরও তিন লাখ তিন হাজারেরও বেশি মামলা৷

গ্রন্থনা: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: ফাহমিদা সুলতানা