1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

হরতালের তারিখ পরিবর্তন, সাধারণ মানুষ অসন্তুষ্ট

হাইকোর্ট নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণা করায় জামায়াতে ইসলামী আগেই ১২ এবং ১৩ই আগস্ট হরতাল দেয়৷ এ নিয়ে যাঁরা ঈদের পর ঢাকায় ফিরবেন তাঁদের মধ্যে ছিল ক্ষোভ৷ তবুও ফিরতি টিকেট কিনেছেন তাঁরা৷ মঙ্গলবার হরতালের তারিখে পরিবর্তন এনেছে জামায়াত৷

মঙ্গলবার এক ঘোষণায় জামায়াত তাদের পূর্বঘোষিত হরতালের তারিখ পরিবর্তন করেছে৷ এবার তারা হরতাল ডেকেছে ১৩ এবং ১৪ই আগস্ট৷ জামায়াতের ওয়েবসাইটে দেয়া এক বিতৃতিতে বলা হয়েছে, ঈদের পর যাঁরা কর্মস্থলে ফিরবেন তাঁদের কথা বিবেচনা করেই তারা তাদের লাগাতার হরতাল একদিন পিছিয়েছে৷

সাধারণ মানুষ কিন্তু একে বলছেন তামাশা৷ ঢাকার চাকরিজীবী আশরাফুল আলম বলেন, তিনি হরতালের আগের তারিখ অনুযায়ী ১৪ই আগস্ট সকালের বাসের টিকেট কিনেছিলেন পঞ্চগড় থেকে ঢাকায় ফেরার জন্য৷ হরতালের নতুন তারিখ দেয়ার পর তিনি ১৫ই আগস্টের টিকেটের জন্য ফোন করেছেন৷ কিন্তু উত্তর পেয়েছেন যে, পরবর্তী পাঁচ দিনের কোনো টিকেট নেই৷ তাহলে এখন তিনি কি করবেন?

Bangladesch Dhaka Islamisten Generalstreik

বাংলাদেশে হরতাল নিয়মিত ব্যাপার, ঈদের আগে-পরেও হয় এখন

আবার যাঁরা ঠিক করেছিলেন ঈদের দু'দিন পর ফিরবেন, তাঁরাও এখন আগেই ফিরতে বাধ্য হবেন৷ কারণ ১৩ তারিখ থেকে লাগাতার দুই দিনের হরতাল৷ তবুও অনিশ্চয়তা থাকছে৷ এর কারণ, এই হরতালের কারণে অনেকেই এখন হরতালের আগে কর্মস্থলে ফিরতে চাওয়ায় টিকেটের প্রচণ্ড চাহিদা থাকবে৷ ১২ই আগস্টের টিকেট যাঁরা হরতালের কারণে ফেরত দিয়েছিলেন তাঁরা এখন ধরনা দিয়েও সেই টিকেট পাচ্ছেন না বলে জানান ঢাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম৷ তাঁর গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায়৷ তিনি বলেন, পরিবারের লোকজনকে আগেই পাঠিয়ে দিয়েছেন তিনি৷ আর হরতাল জটিলতায় এখন তিনি শেষ পর্যন্ত নাও যেতে পারেন৷ কারণ ফেররার নিশ্চয়তা নেই৷

এদিকে এবারের ঈদে কক্সবাজারে বিনোদন প্রেমীদের ভিড় কম হবে৷ প্রতি বছর ঈদের সময় এবং পরে কমপক্ষে দেড় লাখ মানুষ ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে কক্সবাজারে যান৷ কিন্তু হরতালের কারণে এবার সেই প্রবণতা কম৷ কক্সবাজারের হোটেল সী প্যালেসের কর্মচারী ইসমাইল হোসেন জানান, এবার তাদের রুম বুকিং গতবারের তুলনায় ৫০ ভাগ কম৷ তাদের ব্যবসাও লাটে উঠেছে৷

ঢাকার নুরজাহান বেগম জানান, তিনি এবার ঈদে পরিবারের লোকজনকে নিয়ে কক্সবাজার যাবেন বলে ছয় মাস আগেই পরিকল্পনা করেছিলেন৷ কিন্তু তা মাটি হয়ে গেল হরতালের কারণে৷ ওদিকে যাঁরা ঈদের পরে যাবেন বলে ভেবেছিলেন, তাঁরাও পরছেন না৷ রাকিবুল ইসলাম ও তাঁর পরিবার তাই হতাশ৷ এবারের আনন্দটাই যেন মাটি৷ তাই তাঁদের অনুরোধ, রাজনীতির নামে সাধারণ মানুষের এই ভোগান্তি যেন বন্ধ হয়৷ অন্তত উত্‍সব অনুষ্ঠানে রাজনীতিকরা যেন মানুষকে মুক্তি দেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়