1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

স্বপ্ন এবং জার্মানি, পর্ব ৩

বন-শহর ঘুরে দেখার জন্য বের হলাম জার্মানিতে পৌঁছার পরের দিনই৷ ক্রিসমাসের জন্য পুরো শহরটাকে খুব সুন্দরভাবে সাজানো হয়েছে৷ একে বলে ভাইনাক্টস মার্ক্ট৷ কত যে মানুষ চারিদিকে ! ভীষণ সুন্দর৷

default

ভাইনাক্টস মার্ক্ট

মার্কেটে মার্কেটে স্যান্টাক্লস৷ ছোটবেলা থেকে আমি শুধু বই পড়ে আর সিনেমা দেখে স্যান্টাক্লসকে চিনি৷ অনেক সুন্দর এই লাল পোশাকধারী স্যান্টা৷ তার কাছে বাচ্চাদের মতো চকলেট চাইলাম৷ অদ্ভুত ব্যাপার ! স্যান্টাক্লস হেসে চকলেট দিলেন আমায়৷

এরপর গেলাম বন-এর একটি জাদুঘরে৷ যেখানে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত সম্পূর্ণ ইতিহাস সমন্ধে জানা যায়৷ দেখলাম অতীতের জার্মান টেকনোলজি এবং বর্তমান টেকনোলজির তফাৎ৷ রাস্তায় যখন বের হলাম চারিদিকে শুধু মার্সিডিজ, ফোকস ভাগেন, বিএমডব্লিউ ,পোরশে অথবা ফোর্ড৷ কচিৎ কখনও টয়োটা দেখা যায়৷আর আমি যে দেশ থেকে এসেছি সেখানে টয়োটা এবং টয়োটার জয়জয়কার৷ অনেক সুন্দর একটি দেশ৷ আমি যেখানে আছি যেদিকে তাকাই শুধু সবুজ পাহাড় আর অরণ্য৷ এর মাঝেও দু-একজন মানুষকে রাস্তায় থাকতে দেখি৷ খুব অবাক হলাম আমি৷ জানতে পারলাম আসলে ওরা রাস্তায় থাকতে চায় বলেই রাস্তায় থাকে৷ সরকার ওদেরকে থাকার জন্য জায়গা দিলেও ওরা সেখানে থাকতে পছন্দ করেনা৷

এখানে ট্রামে-বাসে চড়ছি, রাস্তায় হাঁটছি , কখনও একটা লোককেও দেখলাম না যে আমার দিকে ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে আছে বা কোন ধরনের কমেন্ট করছে৷ রাতের বেলা রাস্তায় ঘুরছি অথচ পরিবেশ কত নিরাপদ৷সবাই এত ভদ্র৷ এর মাঝে দেখা হলো বন ইউনিভার্সিটি, ইসালন, ওয়েষ্টকিষাণ, আর রাতের বেলার কোলন ডোম, ক্যাথিড্রাল৷ রাতে যাওয়ায় কোলন ডোমের ভেতরে ঢুকতে পারলাম না আমি৷ কিন্তু ঠিক পাশেই ভাইনাক্টস মার্ক্ট৷ সাথে চলছে কনসার্ট আর গ্লু-ভাইন৷ দারুণ শহর এই কোলন আর বন৷ সত্যিই স্বপ্নের দেশ জার্মানি৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়