1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

স্পেন

স্পেনে সন্ত্রাসী হামলা, দায় স্বীকার করলো আইএস

প্রথমে বার্সেলোনা, তারপর উপকূলবর্তী কামব্রিলস এবং আলকানার শহর৷ পর পর তিনটি সন্ত্রাসী হামলার মুখে পড়লো স্পেনের কাটালুনিয়া রাজ্য৷ বার্সেলোনা শহরে হামলার দায় স্বীকার করেছে তথাকথিত ইসলামিক স্টেট বা আইএস৷

বৃহস্পতিবার বিকেলে বার্সেলোনা শহরের এক ব্যস্ত এলাকায় দ্রুত গতিতে একটি ভ্যান চালিয়ে পথচারীদের পিষে দেয় এক আততায়ী৷ ফলে কমপক্ষে ১৪ জন নিহত ও প্রায় ১০০ জন আহত হয়৷ জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্র অনুযায়ী বার্সেলোনায় আহতদের মধ্যে ১৩ জন জার্মান নাগরিক রয়েছেন৷ তাঁদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর৷

হামলাকারী পালিয়ে যেতে সমর্থ হয়৷ পুলিশ তার খোঁজে অভিযান চালাচ্ছে৷ এর মধ্যে চার ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ তাদের একজন মরক্কোর নাগরিক, দ্বিতীয় জন স্পেনের নাগরিক৷ আটক মরক্কোর নাগরিক দ্রিস উকাবিরের ভাই মুসা-র খোঁজ চলছে৷ তবে সেই ভ্যান চালক ছিল কিনা, তা স্পষ্ট নয়৷

তারপর বার্সেলোনা শহর থেকে প্রায় ১২০ কিলোমিটার দক্ষিণে কামব্রিলস শহরে দ্বিতীয় হামলার খবর পাওয়া যায়৷ সেখানেও হামলাকারীরা পথচারীদের পিষে ফেলার চেষ্টা করেছিলো বলে জানিয়েছে কাটালান পুলিশ৷ তবে সেই কাজে তারা সফল হতে পারে নি৷ সেই ঘটনায় এক পুলিশ কর্মী ও ছ’জন পথচারী আহত হয়েছে৷ পুলিশ পাঁচজন হামলাকারীকে গুলি করে হত্যা করেছে৷ স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের সূত্র অনুযায়ী পুলিশের নির্দেষ অমান্য করে হামলাকারীরা গাড়ি নিয়ে পালাবার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের পেছনে ধাওয়া করে৷ তাদের গাড়ি উলটে যাওয়ার পর তারা পালাবার চেষ্টা করলে পুলিশের গুলিতে তারা নিহত হয়৷ হামলাকারীদের শরীরে বিস্ফোরক ছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছিল৷ পরে পুলিশের নিয়ন্ত্রণে কিছু বিস্ফোরণ ঘটানো হয়৷

বার্সেলোনা শহর থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দক্ষিণে আলকানার শহরে এক বিস্ফোরণে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে ও একটি বাড়ি ধসে পড়েছে৷ পুলিশ জানিয়েছে, তিনটি ঘটনার মধ্যেই যোগসূত্র রয়েছে৷ সম্ভবত ৮ থেকে ১২ জনের এক সেল এই হামলার ষড়যন্ত্রে জড়িত ছিল বলে তদন্তকারীরা সন্দেহ করছেন৷

আইএস তাদের ঘনিষ্ঠ আমাক সংবাদ সংস্থার মাধ্যমে বার্সোলোনায় হামলার দায় স্বীকার করেছে৷ তাদের দাবি, তাদের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযানের জবাবে আইএস ‘সৈন্যরা’ এই হামলা চালিয়েছে৷ উল্লেখ্য, স্পেনের কয়েক'শ সৈন্য ইরাকে সক্রিয় থাকলেও তারা স্থলবাহিনীর অভিযানে অংশ নিচ্ছে না৷

আইএস-এর দাবি সত্য প্রমাণিত হলে গত ১৩ মাসে ইউরোপে ট্রাক বা বড় গাড়ি চালিয়ে হামলায় একশ’ জনেরও বেশি নিহত হলো৷ নিস, বার্লিন, লন্ডন ও স্টকহোম শহরের পর এবার বার্সেলোনা হামলার শিকার হলো৷

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাখই নিজের ছুটি বাতিল করে বার্সেলোনায় পৌঁছেছেন৷ তিনি গোটা দেশে তিনদিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেন৷ তিনি বলেন, এমন ‘জিহাদি’ হামলার মুখে স্পেন নতি স্বীকার করবে না৷

স্পেনে সন্ত্রাসী হামলার খবর পেয়ে বিশ্বনেতারা হামলার নিন্দা করে স্পেনের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেছেন৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে কোনো ধরনের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন৷

এসবি/ডিজি (ডিপিএ, রয়টার্স)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন