1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

স্পেনে এবোলা, বাকি ইউরোপের জন্য ভয়

পশ্চিম আফ্রিকা ছেড়ে এবোলার থাবা এবার পড়েছে ইউরোপের মাটিতে৷ স্পেনের এক সেবিকার এবোলা ধরা পড়েছে৷ এবোলা আশঙ্কায় চারজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ বাকিদেরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে৷

default

স্পেনের এবোলা আক্রান্ত সেবিকাকে সোমবার হাসপাতালে নেয়া হয়

স্প্যানিশ গণমাধ্যমে আক্রান্ত সেবিকার নাম টেরেসা রোমেরো বলে জানানো হয়েছে৷ তাঁর বয়স ৪০ এর ঘরে৷ সোমবার থেকে তাঁকে আলাদাভাবে চিকিৎসা দেয়া শুরু হয়েছে৷ স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদের একটি হাসপাতালে তিনি কাজ করেন৷ সেখানেই তিনি পশ্চিম আফ্রিকা থেকে ফেরত আসা দু'জন স্প্যানিশ ধর্ম প্রচারককে সেবা প্রদান করেন, যাঁরা পরবর্তীতে এবোলার কারণে মারা যান৷

এই দুই ধর্ম প্রচারকের একজন গার্সিয়া বিয়েখো ৷ ৬৯ বছর বয়েসি বিয়েখো সিয়েরা লিওনে ছিলেন৷ সেখান থেকে স্পেনে ফেরার পর ২৫ সেপ্টেম্বর তাঁর মৃত্যু হয়৷ বিয়েখোকে সেবা দিয়েছিলেন রোমেরো৷ সেখানে থেকেই রোমেরো এবোলায় আক্রান্ত হতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে৷

কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে, কীভাবে মাদ্রিদের ঐ হাসপাতালের বিশেষ ইউনিটের নিরাপত্তা ব্যবস্থা টপকে রোমেরোর শরীরে এবোলা ভাইরাস প্রবেশ করলো৷ ইউরোপীয় ইউনিয়ন বিষয়টি জানতে স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছে৷ ইউরোপীয় কমিশনের মুখপাত্র ফ্রেডেরিক ভিনসেন্ট মনে করেন, ‘‘নিশ্চয়ই কোথাও না কোথাও সমস্যা আছে৷''

অবশ্য এবোলা আবিষ্কারকদের একজন পিটার পিওট বলেন, সারা বিশ্বের স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য এবোলা হুমকি হলেও উন্নত দেশে সেটা মহামারি রূপ ধারণ করতে পারে বলে তিনি মনে করেন না৷

এদিকে, এবোলা আক্রান্ত সেবিকা রোমেরোর সহকর্মীরা হাসপাতালের দূর্বল নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন৷ তাঁরা এর জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগও দাবি করেন৷ বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, সেবক-সেবিকাদের পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ দেয়া হয়নি৷

স্পেন পরিস্থিতি

রোমেরোর শরীরে এবোলা ধরা পড়ার পর তাঁর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তিনজন সহ আরেকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ এর মধ্যে একজন রোমেরোর স্বামী৷ তিনি ‘মারাত্মক ঝুঁকি'-র মধ্যে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা৷ সেজন্য তাঁকে পুরোপুরি আলাদাভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে৷ এছাড়া রোমেরোর আরও দুই সহকর্মীকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে৷

নাইজেরিয়া থেকে স্পেনে ফেরত যাওয়া এক প্রকৌশলীকেও এবোলা আক্রান্ত সন্দেহে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷

জেডএইচ/ডিজি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন